ডাকসুর ভিপি প্রার্থী লিটন নন্দীকে ধাওয়া

প্রগতিশীল ছাত্র ঐক্য প্যানেলের ডাকসুর সহ-সভাপতি পদপ্রার্থী লিটন নন্দীকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হাজী মুহম্মদ মুহসীন হলে ‘ক্ষমতাসীন ছাত্র লীগের কয়েকজন কর্মী’ ধাওয়া দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।
Liton Nandi
প্রগতিশীল ছাত্র ঐক্য প্যানেলের ডাকসুর সহ-সভাপতি পদপ্রার্থী লিটন নন্দী। ছবি: ফেসবুক থেকে নেওয়া

প্রগতিশীল ছাত্র ঐক্য প্যানেলের ডাকসুর সহ-সভাপতি পদপ্রার্থী লিটন নন্দীকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হাজী মুহম্মদ মুহসীন হলে ‘ক্ষমতাসীন ছাত্র লীগের কয়েকজন কর্মী’ ধাওয়া দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

ঘটনাস্থল থেকে আমাদের সংবাদদাতা জানান যে আজ (১১ মার্চ) সকাল পৌনে ১১টার দিকে বাম ছাত্র সংগঠনের নেতা লিটন নন্দীকে প্রথমে হল কেন্দ্রে ঢুকতে বাধা দেওয়া হয়। পরে তিনি হলে ঢুকে নির্বাচনে কারচুপির বিষয়ে অভিযোগ তোলেন। এসময় ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মীর সঙ্গে তার বাকবিতণ্ডা হয়।

সেসময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত হল প্রভোস্ট পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

লিটন নন্দী দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, “আমরা যখন মুহসীন হলের ভোটকেন্দ্র পরিদর্শনে যাই তখন ছাত্রলীগ নেতা সানির নেতৃত্বে কয়েকজন শিক্ষার্থী আমাদের ধাওয়া করে। আমরা কেন্দ্রীয় সংসদের প্রার্থী হওয়া সত্ত্বেও আমাদেরকে হলে ঢুকতে বাধা দেওয়া হয়। তারপর আমরা সেখান থেকে বের হয়ে প্রভোস্ট স্যারের সঙ্গে দেখা করতে চাইলে ছাত্রলীগের লোকজন আমাদেরকে ধাওয়া করে।”

সেসময় হলের প্রভোস্ট এবং নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তারা সেখানে উপস্থিত ছিলেন উল্লেখ করে লিটন আরও বলেন, “হামলার যে সংস্কৃতি বিরাজমান রয়েছে তা থেকে আমরা আশঙ্কা করতে পারি যে ভোটগ্রহণ সুষ্ঠুভাবে হচ্ছে না।”

তিনি আরও অভিযোগ করেন, “রোকেয়া হলে নয়টি ব্যালটবাক্স আসার কথা থাকলেও ছাত্রীদের ছয়টি বাক্স দেখানো হয়েছে। আর তিনটি ব্যালটবাক্স হল সংসদ রুমে তালাবদ্ধ করে রাখা হয়েছে। সেগুলো ছাত্রীদের দেখানো হচ্ছে না।”

আরও পড়ুন:

কুয়েত মৈত্রী হলের প্রাধ্যক্ষ বরখাস্ত

কুয়েত মৈত্রী হলে সিলযুক্ত ব্যালট উদ্ধার, ভোটগ্রহণ স্থগিত

ডাকসু: নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়া নিয়ে শঙ্কা

Comments

The Daily Star  | English

Ctg’s Tekpara slum fire guts 80 shanties

At least 80 shanties were burned down in a fire that broke out at a slum at Tekpara in Firingibazar of Chattogram city this afternoon

1h ago