সম্ভাবনা শেষ হয়ে যায়নি তাসকিনের!

সবশেষ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) কি দারুণ ছন্দেই না ছিলেন পেসার তাসকিন আহমেদ। নিজেকে হারিয়ে খোঁজা এ পেসার যেন হঠাৎ করেই পুরনো সে গতি ফিরে পেলেন। দলের প্রয়োজনীয় মুহূর্তে কার্যকরী ব্রেকথ্রুও এনে দিচ্ছিলেন। ফিরেছিলেন জাতীয় দলেও। কিন্তু হঠাৎ এক ইনজুরিতে বাতিল হয়ে যায় তার নিউজিল্যান্ড সফর। আর সেই ইনজুরিই এবার কেড়ে নিল তার বিশ্বকাপ স্বপ্নও।
Taskin Ahmed
ফাইল ছবি: ফিরোজ আহমেদ

সবশেষ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) কি দারুণ ছন্দেই না ছিলেন পেসার তাসকিন আহমেদ। নিজেকে হারিয়ে খোঁজা এ পেসার যেন হঠাৎ করেই পুরনো সে গতি ফিরে পেলেন। দলের প্রয়োজনীয় মুহূর্তে কার্যকরী ব্রেকথ্রুও এনে দিচ্ছিলেন। ফিরেছিলেন জাতীয় দলেও। কিন্তু হঠাৎ এক ইনজুরিতে বাতিল হয়ে যায় তার নিউজিল্যান্ড সফর। আর সেই ইনজুরিই এবার কেড়ে নিল তার বিশ্বকাপ স্বপ্নও।

কিন্তু এটাই কি শেষ। আগের দিনই বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন স্পষ্ট বলেছেন এটাই চূড়ান্ত দল নয়। যে কোন সময় বদলে যেতে পারে স্কোয়াড। মূলত আইসিসির নতুন নিয়মের সুবিধা নিতে চায় তারা। তাই বিবেচনা করা হবে আয়ারল্যান্ডে অনুষ্ঠিতব্য ত্রিদেশীয় সিরিজ। কিন্তু সে সিরিজের দলেও নেই তাসকিন আহমেদ। তাই তার বিশ্বকাপ স্বপ্নটা বেশ কঠিনই।

তবে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে এখনও চারটি ম্যাচ খেলার সুযোগ রয়েছে তাসকিন আহমেদের। তালিকার শীর্ষে থাকা লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের হয়ে যদি দারুণ কিছু করতে পারেন তাহলে ফিরতেই পারেন বিশ্বকাপ দলে। আর কে না জানে বাংলাদেশে শেষ কথা বলে কিছু নেই। এর আগেও সিরিজের মাঝে হুটহাট অনেক খেলোয়াড়কেই নেওয়া হয়েছে। কখনো কখনো নির্বাচক-অধিনায়ককে না জানিয়েই।

আর সুযোগ যে রয়েছে তাও বললেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু, ‘এখন পর্যন্ত সে (তাসকিন) পুরোপুরি ফিট না। সেই হিসেবে আমরা তাকে স্কিল ফিট হিসেবে চাচ্ছি না। সে ঘরোয়া লীগে একটি ম্যাচে খেলেছে স্কিল ফিট হিসেবে। কিন্তু তার ফিটনেস শতভাগ নয়। তবে এখনও সময় আছে। আয়ারল্যান্ড সফরে আমাদের ১৭ জন সদস্য যাচ্ছে। এর মধ্যে ও যদি পুরো ফিট হয়ে যায় এবং দরকার হয় তাহলে ওকে আমরা ব্যাকআপ হিসেবে রাখবো।'

প্রায় ১৮ মাসের বেশি সময় ধরে জাতীয় দলের বাইরে তাসকিন। ইনজুরি থেকে ফিরলে আবারো পড়ে যান ইনজুরিতে। মূলত এটাই কাল হয়েছে তার। সবশেষ বিপিএলে ১২ ম্যাচে ১৪.৪৫ গড়ে পেয়েছিলেন ২২টি উইকেট। আসরের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারিও ছিলেন। কিন্তু দুর্ভাগ্যক্রমে শেষ ম্যাচে চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে ফিল্ডিং করার সময় চোট পান গোড়ালিতে। ইনজুরি কাটিয়ে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে একটি ম্যাচেও খেলেছিলেন। কিন্তু পুরনো ছন্দ খুঁজে পাননি।

তবে তাসকিনকে যে খুব করে চেয়েছেন তাও বলেছেন প্রধান নির্বাচক। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে লম্বা বিরতির কারণেই বিশ্বকাপে তাকে নেওয়ার ঝুঁকিটা নিতে পারেননি তারা। নান্নুর ভাষায়, 'আমরা ওকে নিয়ে অনেক দিন থেকেই চিন্তা করছি। সে কিন্তু ২০১৭ সালের ২২শে অক্টোবর সর্বশেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশের হয়ে। ওটার পরে কিন্তু আমরা যখন ওকে নিউজিল্যান্ড সফরের জন্য চিন্তা ভাবনা করেছিলাম তখন আবার ইনজুরিতে পড়ে গিয়েছে।’

Comments

The Daily Star  | English
remittances received in February

Remittance hits eight-month high

In February, migrants sent home $2.16 billion, up 39% year-on-year

4h ago