নুসরাত হত্যা

পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগের বিচার বিভাগীয় তদন্ত চায় টিআইবি

ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় পুলিশের বিরুদ্ধে গাফিলতি ও যোগসাজশের যে অভিযোগ উঠেছে তার বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি করেছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)।
Feni madrasa student
আগুনে পোড়া ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি। ছবি: সংগৃহীত

ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় পুলিশের বিরুদ্ধে গাফিলতি ও যোগসাজশের যে অভিযোগ উঠেছে তার বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি করেছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)।

টিআইবির আশঙ্কা, পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ তদন্তে আবার পুলিশকেই দায়িত্ব দেওয়ায় কার্যকরী কিছু বের হয়ে আসবে না।

ফেনীর পুলিশ সুপার লিখিতভাবে অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যের পক্ষ নেওয়ায় তাদের এই আশঙ্কা আরও জোরদার হয়েছে বলেও টিআইবি দাবি করেছে।

আজ বৃহস্পতিবার বিবৃতিতে সংস্থাটির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, “সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মকর্তা নুসরাতের অভিযোগ যথাযথ গুরুত্ব দিয়ে আমলে তো নেনইনি, বরং অভিযোগটির সত্যতা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন। এমনকি নুসরাতকে হাত -পা বেঁধে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেওয়ার পরও ওই পুলিশ কর্মকর্তা একে আত্মহত্যার চেষ্টা হিসেবে চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছেন। মামলা নেওয়ার ক্ষেত্রেও ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা চালিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে তার বিরুদ্ধে।”

এ কারণেই পুলিশ প্রশাসনকে জবাবদিহিতার আওতায় এনে বিচারবিভাগীয় তদন্তের দাবি তুলেছে টিআইবি।

কারণ টিআইবি মনে করে, পুলিশ বাহিনী যথাযথভাবে দায়িত্ব পালন না করলে দেশে বিচারহীনতার সংস্কৃতি প্রাতিষ্ঠানিক রূপ লাভ করবে।

পুলিশের নিজস্ব তদন্ত এক্ষেত্রে যথেষ্ট নয় বলে মন্তব্য করে ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, “পুলিশ বাহিনী নিজেদের কতটা জনবান্ধব ও জনমুখী প্রতিষ্ঠান হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে পেরেছেন সেটা তারা নিজেরাই ভেবে দেখতে পারেন। একজন পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে এমন গুরুতর অভিযোগের তদন্ত হচ্ছে, অথচ এরই মধ্যে ফেনীর পুলিশ সুপার লিখিতভাবে অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যের পক্ষ নিয়েছেন। সুতরাং পুলিশের এই তদন্ত কতটা কার্যকরী হবে সে ব্যাপারে আমরা একেবারেই আশ্বস্ত হতে পারছি না।”

শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট থানা থেকে প্রত্যাহার করে নেওয়াটা কোন শাস্তি হতে পারে না উল্লেখ করে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক বলেন, “দোষীরা কেউ ছাড়া পাবে না- মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এই আশ্বাসের যথাযথ বাস্তবায়ন দেখতে চায় দেশের মানুষ। এ লক্ষ্যে অনতিবিলম্বে বিচারবিভাগীয় তদন্তের উদ্যোগ নেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।”

Comments

The Daily Star  | English

President appoints seven new state ministers

President Mohammed Shahabuddin today appointed seven new state ministers in the cabinet led by Prime Minister Sheikh Hasina

1h ago