উড়িষ্যায় তাণ্ডব চালাচ্ছে ‘ফণী’

আবহাওয়াবিদরা গতকাল জানিয়েছিলেন প্রবল সামুদ্রিক ঝড় ‘ফণী’ ভারতের উড়িষ্যা রাজ্যে আঘাত হানবে আজ (৩ মে) বিকালে। কিন্তু, সকাল বেলায়ই রাজ্যটির উপকূলীয় এলাকায় হামলে পড়ে এটি। শুরু করে তাণ্ডবলীলা।
Storm Fani
উড়িষ্যা রাজ্যের পুরী শহরে ‘ফণী’-র তাণ্ডব। ছবি: সংগৃহীত

আবহাওয়াবিদরা গতকাল জানিয়েছিলেন প্রবল সামুদ্রিক ঝড় ‘ফণী’ ভারতের উড়িষ্যা রাজ্যে আঘাত হানবে আজ (৩ মে) বিকালে। কিন্তু, সকাল বেলায়ই রাজ্যটির উপকূলীয় এলাকায় হামলে পড়ে এটি। শুরু করে তাণ্ডবলীলা।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, উড়িষ্যা উপকূলের বিভিন্ন গ্রাম পানির নিচে চলে গেছে। ঝড়ো হাওয়ার ফলে রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় গাছ উপড়ে গিয়েছে।

ভারতীয় আবহাওয়া দপ্তরের বরাত দিয়ে হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, ‘ফণী’-র চোখ ২৫ কিলোমিটারের ব্যসার্ধের মধ্যে রয়েছে। বাতাসের গতিবেগ কোথাও কোথাও ঘণ্টায় ১৫০ থেকে ১৭৫ কিলোমিটার। কোথাও আবার তা বেড়ে ১৮০ কিলোমিটারের বেশি।

ঝড়ো হাওয়ায় বাড়িঘর, গাছপালা ও বৈদ্যুতিক খুঁটি উপড়ে গেছে।

এনডিটিভি জানায়, মধ্যরাত থেকেই উড়িষ্যার রাজধানীর ভূবনেশ্বরের বিমান চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। এছাড়াও, কলকাতায় আজ (৩ মে) রাত সাড়ে ৯টা থেকে আগামীকাল (৪ মে) সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত বিমান চলাচল বন্ধ থাকবে।

কলকাতায় ২০০ বেশি ফ্লাইট বন্ধ করা হবে।

এছাড়াও, আগামীকাল পর্যন্ত পূর্ব উপকূলীয় রেলওয়ের ১৪৭টি ট্রেন বাতিল করা হয়েছে।

বাংলা দৈনিক আনন্দবাজার জানায়, গত তিনদিন উপগ্রহ চিত্রে গতিবিধির ওপর নজর রাখার পরে আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, বেলা ১২টা পর্যন্ত ওড়িশায় তাণ্ডব চালাবে ফণী। তারপর তটরেখা ধরে পশ্চিমবঙ্গে ঢুকে দক্ষিণবঙ্গের ওপর দিয়ে বাংলাদেশের দিকে চলে যাবে।

আরও পড়ুন:

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪ মে’র পরীক্ষা স্থগিত

পশ্চিমবঙ্গে সতর্কতা জারি, রাতে কলকাতা বিমানবন্দর বন্ধ

উড়িষ্যায় আঘাত হেনেছে ‘ফণী’, বাতাসের গতি ঘণ্টায় ১৭৫ কিমি

পটুয়াখালীর ১০ গ্রাম প্লাবিত

উপকূল ধরেই পশ্চিমবঙ্গের দিকে ধেয়ে আসছে ‘ফণী’

মধ্যরাতে মূল আঘাত

উড়িষ্যায় নিহত ২

Comments

The Daily Star  | English
irregular migration routes to Europe from Bangladesh

To Europe via Libya: A voyage fraught with peril

An undocumented Bangladeshi migrant worker choosing to enter Europe from Libya, will almost certainly be held captive by armed militias, tortured, and their families extorted for lakhs of taka.

21h ago