ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবি: নিহতদের মধ্যে ৬ বাংলাদেশির পরিচয় শনাক্ত

লিবিয়া থেকে ইতালি যাওয়ার পথে তিউনিসিয়ার উপকূলে ভূমধ্যসাগরে অভিবাসীবাহী একটি নৌকা ডুবে নিহত অন্তত ৩৭ বাংলাদেশির মধ্যে সিলেট ও মৌলভীবাজারের ছয়জন রয়েছেন।
bangladesh migrants drown
১১ মে ২০১৯, ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবির ঘটনায় জীবিত উদ্ধার ব্যক্তিদের তিউনিসিয়ার জার্জিস শহরে রেড ক্রিসেন্টের একটি আশ্রয় কেন্দ্রে রাখা হয়েছে। ছবি: রয়টার্স

লিবিয়া থেকে ইতালি যাওয়ার পথে তিউনিসিয়ার উপকূলে ভূমধ্যসাগরে অভিবাসীবাহী একটি নৌকা ডুবে নিহত অন্তত ৩৭ বাংলাদেশির মধ্যে সিলেট ও মৌলভীবাজারের ছয়জন রয়েছেন।

তারা হলেন- মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার ভূকশিমইল গ্রামের আহসান হাবীব শামীম (২৩), সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার কুদুপুর গ্রামের কামরান আহমেদ মারুফ (২২) এবং ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার কটালপুর গ্রামের আহমদ হোসেন (২৪), আব্দুল আজিজ (২৩) ও লিটন মিয়া (২৩), আফজাল মুহাম্মদ (২৫)।

এর মধ্যে আহসান হাবীব শামীম সিলেট জেলা শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সাহরিয়ার আলম সামাদের ভাই এবং আহমেদ মারুফ সামাদের শ্যালক বলে জানা গেছে।

গোলাপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মামুনুর রহমান, ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আয়েশা হক এবং কুলাউড়ার ভূকশিমইল ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য শাহেদ আহমদ আমাদের সিলেট সংবাদদাতাকে নিহতদের পরিচয় নিশ্চিত করেছেন।

সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহবুবুল আলম বলেন, “সিলেটের পাঁচজন অভিবাসনপ্রত্যাশীর মৃত্যুর কথা শুনেছি কিন্তু আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো তথ্য পাইনি।”

নিহত লিটনের বাবা সিরাজ মিয়া দাবি করেছেন, গত বছরের নভেম্বরে আহমদ ও আজিজের সঙ্গে তার ছেলে লিটন বাংলাদেশ ত্যাগ করে। লিবিয়া হয়ে ইতালি যাওয়ার জন্য তারা প্রত্যেকে একটি ট্রাভেল এজেন্সিকে আট লাখ করে টাকা দেয়।

এদিকে, লিবিয়া থেকে ইতালি যাওয়ার পথে তিউনিসিয়ার উপকূলে ভূমধ্যসাগরে গত বৃহস্পতিবার রাতে (৯ মে) অভিবাসীবাহী একটি নৌকা ডুবে অন্তত ৩৭ বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে ত্রিপলির বাংলাদেশ দূতাবাস।

লিবিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাসের শ্রম কাউন্সেলর আ স ম আশরাফুল ইসলাম আজ বলেছেন, “আমরা তিউনিসীয় রেড ক্রিসেন্টের সঙ্গে কথা বলে নিশ্চিত হয়েছি যে, ইউরোপগামী নৌকাটিতে অন্যান্যদের সঙ্গে ৫১ বাংলাদেশি নাগরিক ছিলেন।”

আরও পড়ুন:

ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবিতে অন্তত ৩৭ বাংলাদেশির মৃত্যু

Comments

The Daily Star  | English

Hefty power bill to weigh on consumers

The government has decided to increase electricity prices by Tk 0.70 a unit which according to experts will predictably make prices of essentials soar yet again ahead of Ramadan.

12m ago