চলচ্চিত্র নির্মাণে সরকারি অনুদান পাচ্ছেন শমী কায়সার

তথ্য মন্ত্রণালয় থেকে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণে প্রদেয় অনুদানের বিষয়ে শেষ সভায় যোগ হয়েছে নতুন একটি নাম। কোন কোন চলচ্চিত্রের জন্য এবার অনুদান দেওয়া হবে তা মঙ্গলবার চূড়ান্ত করা হয়েছে। সেখানে আগের আটটি চলচ্চিত্রের সঙ্গে যোগ হয়েছে অভিনেত্রী-ব্যবসায়ী শমী কায়সার প্রস্তাবিত ছবি ‘স্বপ্ন মৃত্যু ভালোবাসা’।
শমী কায়সার। স্টার ফাইল ছবি

তথ্য মন্ত্রণালয় থেকে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণে প্রদেয় অনুদানের বিষয়ে শেষ সভায় যোগ হয়েছে নতুন একটি নাম। কোন কোন চলচ্চিত্রের জন্য এবার অনুদান দেওয়া হবে তা মঙ্গলবার চূড়ান্ত করা হয়েছে। সেখানে আগের আটটি চলচ্চিত্রের সঙ্গে যোগ হয়েছে অভিনেত্রী-ব্যবসায়ী শমী কায়সার প্রস্তাবিত ছবি ‘স্বপ্ন মৃত্যু ভালোবাসা’।

তথ্য মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র দ্য ডেইলি স্টার অনলাইনকে বলেন,  গতকাল তথ্যসচিব আবদুল মালেকের সভাপতিত্বে সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব নাসির উদ্দীন ইউসুফ, চলচ্চিত্র নির্মাতা মোরশেদুল ইসলাম, মতিন রহমান, নাট্যকার মামুনুর রশীদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চলচ্চিত্র বিভাগের অধ্যাপক শফিউল আলম ভূঁইয়া, বাংলাদেশ টেলিভিশনের মহাপরিচালক এস এম হারুন অর রশীদ ও তথ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. মিজান উল আলম অনুদান বিষয়ে শেষ সভায় বসেন। তাদের সবার সম্মতিতে মোট নয়টি পূর্ণদৈর্ঘ্য ও পাঁচটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রকে অনুদানের জন্য চূড়ান্ত করা হয়েছে।

এতে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে অনুদান পাওয়া পূর্ণদৈর্ঘ্য নয়টি চলচ্চিত্র হলো সাধারণ শাখায় মীর সাব্বিরের ‘রাত জাগা ফুল’, খান শারফুদ্দীন মোহাম্মদ আকরামের ‘বিধবাদের কথা’, কাজী মাসুদের ‘অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া’, লাকী ইনামের ‘১৯৭১ সেই সব দিন’, সারাহ বেগম কবরীর ‘এই তুমি সেই তুমি’ ও শমী কায়সারের ‘স্বপ্ন মৃত্যু ভালোবাসা’; প্রামাণ্যচিত্র শাখায় হুমায়রা বিলকিসের ‘বিলকিস এবং বিলকিস’, পূরবী মতিনের ‘মেলাঘর’ এবং শিশুতোষ শাখায় আবু রায়হান মো. জুয়েলের ‘নসু ডাকাত কুপোকাত’।

এর মধ্যে সাধারণ শাখায় শমী কায়সারের ‘স্বপ্ন মৃত্যু ভালোবাসা’, মীর সাব্বিরের ‘রাত জাগা ফুল’, খান শারফুদ্দীন মোহাম্মদ আকরামের ‘বিধবাদের কথা’ এবং শিশুতোষ শাখায় আবু রায়হান মো. জুয়েলের ‘নসু ডাকাত কুপোকাত’ ছবির জন্য প্রত্যেক প্রযোজক পাবেন ৬০ লাখ টাকা করে।

কাজী মাসুদের ‘অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া’, লাকী ইনামের ‘১৯৭১ সেই সব দিন’, সারাহ বেগম কবরীর ‘এই তুমি সেই তুমি’ পাবে ৫০ লাখ টাকা করে। প্রামাণ্যচিত্র শাখার দুটি চলচ্চিত্র বানাতে প্রত্যেক প্রযোজক পাবেন ৩০ লাখ টাকা করে।

এ অর্থবছরে অনুদান পাওয়া পাঁচটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র হলো জান্নাতুল ফেরদৌস আইভির ‘খিজিরপুরের মেসি’, জাহিদ সুলতানের ‘মিঠুর একাত্তর যাত্রা’, মো. নাজমুল হাসানের ‘রুপালি কথা’, ফারাশাত রিজওয়ানের ‘শেকল ভাঙার গান’ ও উজ্জ্বল কুমার মন্ডলের ‘ময়না’। এ চলচ্চিত্রগুলো নির্মাণের জন্য প্রত্যেক প্রযোজক ১০ লাখ টাকা করে পাবেন।

Comments

The Daily Star  | English

Baily Road building fire under control, 68 rescued

10 hurt after jumping out of the building

2h ago