আমরা বলার চেষ্টা করি, বাকিরা তো পাত্তা দেয় না: সাকিব

বাংলাদেশ বিপজ্জনক দল। নিজেদের দিনে যে কাউকে হারানো সামর্থ্য রাখে। এসব কথা নিজেরা বলার চেষ্টা করেন বরাবর। কিন্তু সাকিব আল হাসান জানালেন বাকি বিশ্ব বাংলাদেশের এসব হুঙ্কারে খুব বেশি পাত্তা দিতে চাইত না। দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে বিশ্বকাপ শুরুর পরও তাই প্রমাণের অনেক কিছু দেখছেন ম্যাচ সেরা এই তারকা।
Shakib Al hasan
ম্যাচ সেরার ট্রফি হাতে সাকিব আল হাসান। ছবি: বিসিবি

বাংলাদেশ বিপজ্জনক দল। নিজেদের দিনে যে কাউকে হারানো সামর্থ্য রাখে। এসব কথা নিজেরা বলার চেষ্টা করেন বরাবর। কিন্তু সাকিব আল হাসান জানালেন, বাকি বিশ্ব বাংলাদেশের এমন হুঙ্কারে খুব বেশি পাত্তা দিতে চায় না। দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে বিশ্বকাপ শুরুর পরও তাই প্রমাণের অনেক কিছু দেখছেন ম্যাচ সেরা এই তারকা।

রবিবার (২ জুন) ওভালে আগে ব্যাট করে ৩৩০ রানের রেকর্ড পুঁজি পায় বাংলাদেশ। সাকিবের সেখানে অবদান ৮৪ বলে ৭৫ রান। পরে বল হাতে নিয়েও দারুণ ক্ষিপ্র ছিলেন তিনি। ১০ ওভার বল করে ৫০ রান দিয়ে নিয়েছেন ১ উইকেট। গুরুত্বপূর্ণ ক্যাচ নিয়েছেন। ফিল্ডিংয়ে ছিলেন তৎপর।

সাকিবদের এমন তেতে থাকার দিনে পেরে ওঠেনি প্রোটিয়ারা। ম্যাচ শেষে মিক্সড জোনে ফুরফুরে মেজাজে পাওয়া গেল সাকিবকে। বার্তা কী তবে দিতে পারল বাংলাদেশ? সাকিব এখানে বাকি বিশ্বের মানসিকতার কথাও জানিয়ে দিলেন স্পষ্ট, ‘সেটা তো আমরা বলার চেষ্টা করি (বিপজ্জনক দল)। অন্যরা খুব বেশ পাত্তা দেয় না। ওই জায়গাগুলোতেই আমাদের প্রমাণ করার অনেক কিছু আছে। শুরুটা ভালো হলো। আমি মনে করি যে মানসিকভাবে সবাই ভালো একটা অবস্থায় আছে। এভাবে যদি আমরা যেতে পারি, অনেক দূর যাওয়া সম্ভব বলে আমি মনে করি।'

বিশ্বকাপ শুরুর আগে থেকেই একদম সেমিফাইনাল খেলার স্বপ্নের কথা এসেছে বারকয়েক। সে পথে দক্ষিণ আফ্রিকার মতো বড় দলকে হারাতেই হতো। সে বিশ্বাস অনেকদিন থেকেই ভেতরে পুষে রাখছিলেন ক্রিকেটাররা। তবে বিশ্বাস থাকলেই তো হলো না। মাঠে সেটা কাজেও লাগাতে হবে।

সবটা ঠিকঠাক হওয়ায় তাই স্বস্তি পাচ্ছেন বিশ্বের শীর্ষ অলরাউন্ডার, ‘খুবই ভালো লেগেছে। আমাদের ভেতরে বিশ্বাসটা ছিল। কিন্তু সেই বিশ্বাস আসলে কাজে দেখানোর দরকার ছিল। এটার জন্য সবাই খুব উদগ্রীব ছিল। ভাগ্য আমাদের পক্ষে ছিল। পাশাপাশি সবাই যেহেতু আত্মবিশ্বাসী ছিল, সেটা সাহায্য করেছে পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে।'

Comments

The Daily Star  | English

Hefty power bill to weigh on consumers

The government has decided to increase electricity prices by Tk 0.70 a unit which according to experts will predictably make prices of essentials soar yet again ahead of Ramadan.

2h ago