বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচের হাইলাইটস

৪০ ওভার পর্যন্ত সমান তালেই লড়াই করেছে টাইগাররা। একই সময়ের বিবেচনায়, অস্ট্রেলিয়া এগিয়ে ছিল ৫ রানে। শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ গড়েছে নিজেদের ওয়ানডে ইতিহাসের সর্বোচ্চ স্কোর। তারপরও পাওয়া হয়নি জয়। কারণ শেষ দিকে অতিমানবীয় ঝড় তুলতে পারেননি কেউ। ফলে অস্ট্রেলিয়ার কাছে ৪৮ রানে হেরেছে টাইগাররা। এই হারে শেষ চারে ওঠার সমীকরণ শুধু কঠিনই নয়, প্রায় অসম্ভব হয়ে গেছে মাশরাফি বিন মর্তুজার দলের জন্য।

৪০ ওভার পর্যন্ত সমান তালেই লড়াই করেছে টাইগাররা। একই সময়ের বিবেচনায়, অস্ট্রেলিয়া এগিয়ে ছিল ৫ রানে। শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ গড়েছে নিজেদের ওয়ানডে ইতিহাসের সর্বোচ্চ স্কোর। তারপরও পাওয়া হয়নি জয়। কারণ শেষ দিকে অতিমানবীয় ঝড় তুলতে পারেননি কেউ। ফলে অস্ট্রেলিয়ার কাছে ৪৮ রানে হেরেছে টাইগাররা। এই হারে শেষ চারে ওঠার সমীকরণ শুধু কঠিনই নয়, প্রায় অসম্ভব হয়ে গেছে মাশরাফি বিন মর্তুজার দলের জন্য।

৩৮২ রানের লক্ষ্য তাড়ায় প্রয়োজন ছিল উড়ন্ত সূচনার। সৌম্যর রানআউটে তা হয়নি। আশা জাগিয়েও এদিন ইনিংস বড় করতে পারেননি ইনফর্ম ব্যাটসম্যান সাকিব আল হাসান। তামিম ইকবাল হাফসেঞ্চুরি তুলে নিলেও স্ট্রাইক রেটটা আফসোস বাড়িয়েছে। তবে ৯৭ বলে ১২৭ রানের পঞ্চম উইকেট জুটিতে দারুণ লড়াই করেন মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহ। মুশফিক করেন বিশ্বকাপে নিজের প্রথম সেঞ্চুরি। ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ফিফটি তুলে নেন মাহমুদউল্লাহও। কিন্তু সবমিলিয়ে ৮ উইকেটে ৩৩৩ রানের বেশি করতে পারেনি বাংলাদেশ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

অস্ট্রেলিয়া: ৫০ ওভারে ৩৮১/৫ (ফিঞ্চ ৫৩, ওয়ার্নার ১৬৬, খাওজা ৮৯, ম্যাক্সওয়েল ৩২, স্টয়নিস ১৭*, স্মিথ ১, ক্যারি ১১*; মাশরাফি ০/৫৬, মোস্তাফিজ ১/৬৯, সাকিব ০/৫০, রুবেল ০/৮৩, মিরাজ ০/৫৯, সৌম্য ৩/৫৮)।

বাংলাদেশ: ৫০ ওভারে ৩৩৩/৮ (তামিম ৬২, সৌম্য ১০, সাকিব ৪১, মুশফিক ১০২*, লিটন ২০, মাহমুদউল্লাহ ৬৯, সাব্বির ০, মিরাজ ৬, মাশরাফি ৬; স্টার্ক ২/৫৫, কামিন্স ০/৬৫, ম্যাক্সওয়েল ০/২৫, কোল্টার-নাইল ২/৫৮, স্টয়নিস ২/৫৪, জাম্পা ১/৬৮)।

ফল: অস্ট্রেলিয়া ৪৮ রানে জয়ী।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: ডেভিড ওয়ার্নার (অস্ট্রেলিয়া)।

Comments

The Daily Star  | English
Israel bombing of Rafah

Column by Mahfuz Anam: Another veto prolongs genocide in Gaza

The goal of the genocide in Gaza is to take over what's left of Palestinian land.

10h ago