ধোনির জন্যে ফুল নিয়ে দাঁড়িয়ে পাকিস্তানি ‘বশির চাচা’

বার্মিংহামের হায়াত রিজেন্সি হোটেলে উঠেছে বাংলাদেশ দল। ইংল্যান্ড ও বাংলাদেশের বিপক্ষে পরের দুই ম্যাচ খেলতে ম্যানচেস্টার থেকে এই হোটেলেই এসে উঠছে ভারতীয় ক্রিকেট দল। বিরাট কোহলিরা আসবেন, তাই সকাল থেকেই সেখানে জনাকয়েক ভারতীয় সমর্থকের সঙ্গে দাঁড়িয়ে এক পাকিস্তানি। কোহলি নয়, তার অপেক্ষা মহেন্দ্র সিং ধোনির জন্য।
পাকিস্তানের ক্রিকেট ভক্ত বশির আহমেদ। ছবি: একুশ তাপাদার

বার্মিংহামের হায়াত রিজেন্সি হোটেলে উঠেছে বাংলাদেশ দল। ইংল্যান্ড ও বাংলাদেশের বিপক্ষে পরের দুই ম্যাচ খেলতে ম্যানচেস্টার থেকে এই হোটেলেই এসে উঠছে ভারতীয় ক্রিকেট দল। বিরাট কোহলিরা আসবেন, তাই সকাল থেকেই সেখানে জনাকয়েক ভারতীয় সমর্থকের সঙ্গে দাঁড়িয়ে এক পাকিস্তানি। কোহলি নয়, তার অপেক্ষা মহেন্দ্র সিং ধোনির জন্য।

বশির আহমেদের বাড়ি পাকিস্তান। কিন্তু বিয়ে করেছেন হায়দ্রাবাদের মেয়েকে। ভারত-পাকিস্তানের খেলা হলে হৃদয়ের টানে তিনি পাকিস্তান আর স্ত্রীকে খুশি করতে সমর্থন করেন ভারতকে। পাকিস্তান ছাড়া ভারত অন্য যার সঙ্গেই খেলুক, তার সমর্থন যায় ভারতের পক্ষে। দুই দেশের রাজনৈতিক তেতো সম্পর্কের বেশ ব্যতিক্রম এই ভদ্রলোক।

তবে বশিরের ভারত সমর্থনের আরেক কারণ ধোনি। ২০১১ সালে মোহালিতে ধোনি না-কি তাকে খেলা দেখার টিকেট দিয়েছিলেন। সেই থেকেই ধোনির ভক্ত হয়ে গেছেন। ধোনির নাম লেখা টি-শার্ট পরে ঘুরে বেড়ান। এবার বিশ্বকাপই ধোনির শেষ বিশ্বকাপ। ‘নম্বর সেভেন’ ধোনির অভাব কতটা বোধ করবে ক্রিকেট বিশ্ব তা যেন বোঝাতে চান বশির।

পাকিস্তানি হয়েও কেন ভারত সমর্থন করেন? প্রশ্ন থামিয়েই শুরু করলেন, ‘হোম মিনিস্টার (স্ত্রী) ঠিক রাখতে হবে তো (হাসি)! আসলে আমার স্ত্রীর বাড়ি ভারতে। তার জন্য ভারত সাপোর্ট করি। আর আমি পাকিস্তানের, সেজন্য আমার দল পাকিস্তান। আর ধোনি আমাকে ভালোবেসে টিকেট দিয়েছিল, তাই আমি ধোনির ভক্ত।’

বার্মিংহাম সিটি সেন্টার থেকে ৩০ পাউন্ড দিয়ে লাল গোলাপের পাপড়ি কিনেছেন। অর্ধেক দিতে চান ধোনিকে। বাকি অর্ধেক না-কি বাংলাদেশ দলের জন্য।

সারা দুনিয়ায় পাকিস্তানের খেলা দেখে বেড়ান বশির। বাংলাদেশেও গিয়েছেন একাধিকবার। বাংলাদেশ দলের পাড় ভক্ত ‘টাইগার শোয়েব’ সেই সূত্রে তার বন্ধু। বাংলাদেশও তাই তার পছন্দের দল। সাকিব আল হাসান আর মাশরাফি বিন মর্তুজার কথা উল্লেখ করে জানালেন, বাংলাদেশকে সেমিফাইনালে দেখছেন তিনি। তার হিসাব, ইংল্যান্ড বাকি দুই ম্যাচ হারবে। বাংলাদেশ ভারতের কাছে হারলেও পাকিস্তানকে হারাবে। নিজ দেশ পাকিস্তান থেকে এই মুহূর্তে বাংলাদেশকেই শক্তিশালী মনে করেন বশির, ‘পাকিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশের জেতার সম্ভাবনা ৯০ শতাংশ। বাংলাদেশের বিপক্ষে পাকিস্তানের সম্বল কেবল দোয়া।’

Comments

The Daily Star  | English

Why was Abu Sayeed shot dead in cold blood?

Why was Abu Sayed of Rangpur's Begum Rokeya University shot down by police? He was standing alone, totally unarmed with arms stretched out, holding no weapons but a stick

14m ago