গুজরাটে বিনোদন পার্কে রাইড ভেঙে নিহত ২, আহত ২৭

গতকাল (১৪ জুলাই) ভারতে সাপ্তাহিক ছুটি থাকয় স্বাভাবিকভাবেই ভিড় ছিলো গুজরাটের আহমেদাবাদের বিনোদন পার্কটিতে। কচিকাঁচা আর ছুটি কাটাতে আসা সাধারণ মানুষের ভিড়ের মাঝেই প্রাণঘাতী দুর্ঘটনায় ছুটির মেজাজ বদলে গেলো শোকে। দুজন নিহত হওয়ার পাশাপাশি আহত হয়েছেন ২৭ জন।
Gujarat ride collapse
১৪ জুলাই ২০১৯, ভারতের গুজরাত রাজ্যের আহমেদাবাদ শহরে বিনোদন পার্কে রাইড ভেঙ্গে দুজন নিহত হন। ছবি: সংগৃহীত

গতকাল (১৪ জুলাই) ভারতে সাপ্তাহিক ছুটি থাকয় স্বাভাবিকভাবেই ভিড় ছিলো গুজরাটের আহমেদাবাদের বিনোদন পার্কটিতে। কচিকাঁচা আর ছুটি কাটাতে আসা সাধারণ মানুষের ভিড়ের মাঝেই প্রাণঘাতী দুর্ঘটনায় ছুটির মেজাজ বদলে গেলো শোকে। দুজন নিহত হওয়ার পাশাপাশি আহত হয়েছেন ২৭ জন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, কঙ্কারিয়া অ্যাডভেঞ্চার পার্কের একটি রাইড তখন চলছে ৩০ জন যাত্রীকে নিয়ে। আচমকাই ওই রাইডের প্রধান পাইপটি ভেঙে পড়ে। নিজস্ব গতিতে চলতে থাকা ওই রাইড আচমকা ভেঙে পড়ায় গুরুতর আহত হয়েছেন কমপক্ষে ১৫ জন।

কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আহতদের কাছাকাছি একটি হাসপাতালে ভর্তির ব্যবস্থা করেন। পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় দুজনের। নিহতরা হলেন, মানালি রাজওয়াদি (২৪) এবং মহাম্মদ জাভেদ (২২)।

দমকল বিভাগের শীর্ষ কর্মকর্তা এমএফ দস্তুর বলেন, “ওই রাইডটিতে ৩২টি আসন রয়েছে। রাইডের প্রধান পাইপটি আচমকা ভেঙে মাটিতে পড়ে যায়। কীভাবে ওই পাইপটি ভাঙল তা তদন্ত করে দেখছে ফরেনসিক সায়েন্স ল্যাবরেটরি (এফএসএল)।”

পৌরসভার তরফে এই জায়গায় বিভিন্ন রকমের রাইডস চালানোর জন্য বেসরকারি ঠিকাদারদের সঙ্গেই চুক্তি করা হয়। পৌর সংস্থার এক শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তা জানিয়েছেন, “পুলিশ এফএসএল দলের সঙ্গে মিলেই তদন্ত করছে কেনো এবং কীভাবে এই রাইডটি খারাপ হয়ে যায় তা বিশ্লেষণ করা হবে। ঘটনার পিছনে যান্ত্রিক গোলযোগের কারণও খতিয়ে দেখা হবে। আহতদের যথাযথ চিকিৎসা চলছে।”

তিনি আরও জানান, দুর্ঘটনার জন্য দায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

গত মাসেই, আহমেদাবাদে একটি মেলাতে হঠাৎই নাগরদোলা বিগড়ে গিয়ে আটকা পড়েন কমপক্ষে ৪০ জন। দমকল বিভাগ ঘটনাস্থল থেকে প্রায় মধ্যরাত্রে অভিযান চালিয়ে উদ্ধার করে মানুষদের। আটকে পড়া মানুষদের নামিয়ে আনতে দমকল বিভাগের উদ্ধারকারীদের ৫৫ মিটার লম্বা স্নরকেল ব্যবহার করতে হয়েছিলো। ওই ঘটনায় আটকা পড়াদের মধ্যে ছিলো ১৪ জন শিশু ও আটজন মহিলা।

Comments

The Daily Star  | English

Baily Road Fire: Rescue efforts underway, some feared trapped inside

10 hurt after jumping out of the building, 15 rescued so far

1h ago