লাইভ আপডেট: হোয়াইটওয়াশই হলো বাংলাদেশ

শেষ পর্যন্ত হোয়াইটওয়াশই হলো বাংলাদেশ। শেষ ম্যাচটি জিতে সান্ত্বনা নিয়ে দেশে ফিরতে চেয়েছিল টাইগাররা। কিন্তু সেটাও জুটল না তাদের। এমনকি ম্যাচে প্রতিদ্বন্দ্বিতাটাও করতে পারেনি তারা। ব্যাটিং বিপর্যয়ে ১২২ রানের বিশাল ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ। ফলে তিন ম্যাচ সিরিজে ৩-০ ব্যবধানে হারল টাইগাররা।
ছবি: বিসিবি

শেষ পর্যন্ত হোয়াইটওয়াশই হলো বাংলাদেশ। শেষ ম্যাচটি জিতে সান্ত্বনা নিয়ে দেশে ফিরতে চেয়েছিল টাইগাররা। কিন্তু সেটাও জুটল না তাদের। এমনকি ম্যাচে প্রতিদ্বন্দ্বিতাটাও করতে পারেনি তারা। ব্যাটিং বিপর্যয়ে ১২২ রানের বিশাল ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ। ফলে তিন ম্যাচ সিরিজে ৩-০ ব্যবধানে হারল টাইগাররা।

শুরুতে দারুণ বোলিং করলেও ডেথ ওভারের ব্যর্থতায় ২৯৫ রানের বিশাল লক্ষ্যই পেয়েছিল বাংলাদেশ। সে লক্ষ্য তাড়ায় শুরু থেকেই উইকেট হারাতে থাকে টাইগাররা। এক সৌম্য সরকার ছাড়া আর কোন ব্যাটসম্যানই দায়িত্ব নিতে পারেননি। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রানটি এসেছে একজন বোলারের ব্যাট থেকে। হার না মানা ৩৯ রান করেছেন তাইজুল ইসলাম। শেষ দিকে ঝড়ো ব্যাটিং করেন তিনি। কিন্তু তার ক্যামিও কেবল হারের ব্যবধানই কমিয়েছে। ১৭২ রানে গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

শ্রীলঙ্কা: ৫০ ওভারে ২৯৪/৮ (ফের্নান্ডো ৬, কারুনারাত্নে ৪৬, পেরেরা ৪৬, মেন্ডিস ৫৪, ম্যাথিউজ , শানাকা ৩০, জয়াসুরিয়া ১৩, হাসারাঙ্গা ১২*, ধনাঞ্জয়া ০, রাজিথা ০*; শফিউল ২/৬৩, রুবেল ১/৫৫, তাইজুল ১/৩৪, মিরাজ ০/৫৯, সৌম্য ৩/৫৬, মাহমুদউল্লাহ ০/২২)।

বাংলাদেশ: ৩৬ ওভারে ১৭২ (বিজয় ১৪, তামিম ২, সৌম্য ৬৯, মুশফিক ১০, মিঠুন ৪, মাহমুদউল্লাহ ৯, সাব্বির ৭, মিরাজ ৮, তাইজুল ৩৯*, শফিউল ১, রুবেল ২; জয়াসুরিয়া ০/৪০, রাজিথা ২/১৭, আকিলা ১/৪৪, শানাকা ৩/২৭, হাসারাঙ্গা ১/১৬, কুমারা ২/২৬)।

ফলাফল: শ্রীলঙ্কা ১২২ রানে জয়ী।

স্টাম্পিংয়ের ফাঁদে শফিউল

বাংলাদেশ দলের নবম উইকেটের পতন হয়েছে। ফিরে গেছেন শফিউল ইসলাম। হাসারাঙ্গার বলে সুইপ করতে গেলে মিস করেন তিনি। বল ধরে দ্রুত স্টাম্প ভাঙেন কুসল পেরেরা। ৫ বলে ১ রান করেছেন শফিউল।

৩৪ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৯ উইকেটে ১৪৯ রান। তাইজুল ১৮ রানে ব্যাট করছেন। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন রুবেল হোসেন।  

ফিরে গেলেন শেষ ভরসা সৌম্যও

শুরু থেকেই দারুণ খেলছিলেন সৌম্য সরকার। এক প্রান্ত আগলে রেখে বাংলাদেশের আশা জিইয়ে রেখেছিলেন তিনি। কিন্তু আকিলা ধনাঞ্জয়ার দুসরা বুঝতে না পেরে বোল্ড হয়ে ফিরে গেছেন এ ব্যাটসম্যান। ৮৬ বলে ৬৯ রানের ইনিংস খেলেছেন তিনি। এ রান করতে ৫টি চার ও ১টি ছক্কা মেরেছেন এ ব্যাটসম্যান।

৩২ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৮ ওভারে ১৪৩ রান। ১৩ রানে ব্যাট করছেন তাইজুল ইসলাম। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন শফিউল ইসলাম।

ফিরে গেলেন মিরাজও

সাব্বির রহমানের বিদায়ের পর শেষ স্বীকৃত ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছিলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। কিন্তু আউট হয়েছেন অনেকটা আনকোরা ব্যাটসম্যানদের মতো। লাহিরু কুমারার কিছুটা বাড়তি পেসের বলে রক্ষণাত্মক ভঙ্গীতে খেলতে গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু ব্যাটের কানায় লেগে বল চলে যায় কভারে দাঁড়ানো অতিরিক্ত ফিল্ডার ধনাঞ্জয়া ডি সিলভার হাতে। ৬ বলে ২টি চারের সাহায্যে ৮ রান করেছেন মিরাজ।

২৭ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৭ উইকেটে ১১৭ রান। ৫৬ রানে ব্যাট করছেন সৌম্য সরকার। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন তাইজুল ইসলাম। 

বিপদ বাড়িয়ে ফিরলেন সাব্বির

দুই ওভার আগেই রিভিউ নিয়ে বেঁচেছিলেন সাব্বির রহমান। কিন্তু নিজের ইনিংসকে লম্বা করতে পারলেন না তিনি। হতাশা বাড়িয়ে ফিরে গেলেন লাহিরু কুমারার বলে। তার অফস্টাম্পের বেশ বাইরের বলে জায়গায় দাঁড়িয়ে ড্রাইভ করতে গিয়ে কভারে আউট হয়েছেন অতিরিক্ত ফিল্ডার ধনাঞ্জয়া ডি সিলভার হাতে। অবশ্য ঝাঁপিয়ে পরে দারুণ ক্যাচ ধরেছেন ধনাঞ্জয়া। ১৭ বলে ৭ রান করেছেন সাব্বির।

২৫ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ১০৯ রান। ৫২ রানে ব্যাট করছেন সৌম্য সরকার। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ।

সৌম্যর হাফসেঞ্চুরি, বাংলাদেশের দলীয় শতক

ভানিদু হাসারাঙ্গার করা ২৪তম ওভারের প্রথম বলে পয়েন্টে ঠেলে সিঙ্গেল নিলেন সৌম্য সরকার। তাতে পূরণ করলেন নিজের হাফসেঞ্চুরি। একই দলীয় শতকও পূর্ণ হয় বাংলাদেশের। ৬১ বলে নিজের ফিফটি স্পর্শ করেছেন সৌম্য। ৩টি চার ও ১টি ছক্কার সাহায্যে এ রান করেন তিনি। আর বাংলাদেশের দলীয় শতক পূরণ হয় ২৩.১ ওভারে (১৩৯ বলে)।

২৪ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ১০৪ রান। সৌম্য ৫২ ও সাব্বির ৭ রানে ব্যাট করছেন।

রিভিউ নিয়ে বাঁচলেন সাব্বির

আকিলা ধনাঞ্জয়ার বলে সাব্বির রহমানকে এলবিডাব্লিউ দিয়েছিলেন আম্পায়ার। দ্রুতই রিভিউর আবেদন করেন সাব্বির। রিপ্লেতে দেখা যায় প্যাডে লাগার আগে গ্লাভসের লেগেছিল বল। ফলে এ যাত্রা বেঁচে যান এ ব্যাটসম্যান। এ সময় ৩ রানে ব্যাট করছিলেন তিনি।

২৩ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ৯৯ রান। সৌম্য ৪৯ ও সাব্বির ৪ রানে ব্যাট করছেন।  

আবারো হতাশ করলেন মাহমুদউল্লাহ

৬০ রানেই শেষ টপ অর্ডারের চার উইকেট। এ অবস্থায় অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান মাহমুদউল্লাহ দিকে তাকিয়ে ছিল বাংলাদেশ। কিন্তু দুঃসময় থেকে বের হতে পারলেন এ ব্যাটসম্যান। আবারো দলকে হতাশ করেছেন। দলের বিপদ বাড়িয়ে ফিরে গেছেন দাসুন শানাকার বলে। তার বলে খোঁচা মারতে গিয়ে উইকেটরক্ষক কুসল পেরেরার হাতে ধরা পড়েছেন তিনি। ১২ বলে ৯ রান করেছেন মাহমুদউল্লাহ।

২০ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ৮৬ রান। ৩৯ রানে ব্যাট করছেন সৌম্য। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন সাব্বির রহমান।  

মিঠুনকে হারিয়ে বিপদে বাংলাদেশ

লক্ষ্য তাড়ায় ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়েছে বাংলাদেশ দল। আগের দুই ম্যাচে তিন নম্বরে ব্যাট করতে নেমে সুবিধা করে উঠতে পারেননি মোহাম্মদ মিঠুন। এদিন ফিরলেন নিজের পছন্দের জায়গায়। কিন্তু ফলাফল একই। দাসুন শানাকার অফস্টাম্পের বাইরে রাখা বাউন্সারে হুক করতে গিয়েছিলেন তিনি। ফাইন লেগে অবশ্য প্রথম দফায় ঠিকভাবে ক্যাচ ধরতে পারেননি লাহিরু কুমারা। তবে পরে বলের নিয়ন্ত্রণ নেন। ১১ বলে ৪ রান করে ফিরলেন মিঠুন।

১৬ ওভার শেষে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ৪ উইকেটে ৬১ রান। ২৫ রানে ব্যাট করছেন সৌম্য। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন মাহমুদউল্লাহ।  

বাংলাদেশের দলীয় ফিফটি

বাংলাদেশের দলীয় হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ হয়েছে। ১৪.২ ওভারে (৮৬ বলে) পূরণ হয়েছে দলের ফিফটি। শ্রীলঙ্কা তাদের প্রথম ফিফটি পূরণ করেছিল ৭৪ বলে। রানের গতি কমের পাশাপাশি উইকেটও বেশি হারিয়েছে বাংলাদেশ। বড় চাপেই আছে টাইগাররা।

১৫ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ৫৯ রান। সৌম্য ২৪ ও মিঠুন ৪ রানে ব্যাট করছেন।  

শানাকার বলে আউট মুশফিক

শুরুতেই দুই ওপেনারকে হারিয়ে বড় চাপে পড়েছিল বাংলাদেশ। সে চাপ থেকে উদ্ধারে অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিমের দিকে তাকিয়ে ছিল টাইগাররা। কিন্তু হতাশ করেছেন তিনি। দলের চাপ আরও বাড়িয়ে সাজঘরে ফিরেছেন তিনি। দাসুন শানাকার বলে জায়গায় দাঁড়িয়ে খেলতে গিয়ে স্লিপে কুসল মেন্ডিসের হাতে ধরা পড়েছেন এ উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান। ১৫ বলে ১০ রান এসেছে মুশফিকের ব্যাট থেকে।

১২ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ৪৬ রান। সৌম্য ১৫ রানে ব্যাট করছেন। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন মোহাম্মদ মিঠুন। 

টিকলেন না বিজয়ও

কাসুন রাজিথার আগের দুই বলেই দারুণ দুটি বাউন্ডারি মেরেছিলেন এনামুল হক বিজয়। পরের বলেও গেলেন বাউন্ডারি হাঁকাতে। কিন্তু এবার ব্যাটের কানায় লেগে উঠিয়ে দিলেন আকাশে। মিড উইকেটে ভালো ক্যাচ ধরেছেন আভিস্কা ফের্নান্ডো। ফলে বড় লক্ষ্য তাড়ায় শুরুতেই চাপে পড়েছে টাইগাররা।

৮ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ২ উইকেটে ২৯ রান। ১০ রানে ব্যাট করছেন সৌম্য সরকার। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন মুশফিকুর রহিম।

আবারো শুরুতেই বিদায় তামিমের

ব্যর্থতার বৃত্ত থেকে বের হতেই পারছেন না বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক তামিম ইকবাল। বিশ্বকাপ থেকে আজে সময় বয়ে যাওয়া এ ওপেনার এদিন আউট হলেন তরুণ পেসার কাসুন রাজিথার বলে। তার বলে খোঁচা মারতে গিয়ে উইকেটের পেছনে ধরা পড়েছেন উইকেটরক্ষক কুসল পেরেরার হাতে। ৬ বলে ২ রান করেছেন অধিনায়ক।

২ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১ উইকেটে ৫ রান। এনামুল হোক বিজয় ব্যাট করছেন ২ রানে। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন সৌম্য সরকার।

বড় লক্ষ্যই পেল বাংলাদেশ

শেষ ওভারটা বেশ ভালোই করলেন সৌম্য সরকার। অন্যথায় অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজ যে মেজাজে ছিলেন তাতে দলের সংগ্রহ ৩০০ পার হতেই পারতো। কিন্তু প্রথম বলেই ম্যাথিউজ ফিরে গেলে তিনশর মধ্যেই শ্রীলঙ্কাকে আটকে রেখেছে বাংলাদেশ। তবে আউট হওয়ার আগে দারুণ এক ইনিংস খেলেছেন শ্রীলঙ্কার সাবেক এ অধিনায়ক। তাতে ৮ উইকেটে ২৯৪ রানের দারুণ স্কোর গড়েছে শ্রীলঙ্কা।

তবে এদিন শুরুতে দারুণ নিয়ন্ত্রিত বোলিং করেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু শুরুর ধারা ধরে রাখতে পারেনি শেষ পর্যন্ত। শেষ ১০ ওভারে ১০৬ রান সংগ্রহ করেছে শ্রীলঙ্কা। ডেথ ওভারে প্রত্যাশা মেটাতে পারেননি কোন বোলারই। ক্যাচ মিসও হয়েছে একাধিক। ম্যাথিউজের মতো ব্যাটসম্যানও জীবন পেয়েছেন। ফলে ২৯৫ রানের বিশাল লক্ষ্যই পেয়েছে টাইগাররা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

শ্রীলঙ্কা: ৫০ ওভারে ২৯৪/৮ (ফের্নান্ডো ৬, কারুনারাত্নে ৪৬, পেরেরা ৪৬, মেন্ডিস ৫৪, ম্যাথিউজ , শানাকা ৩০, জয়াসুরিয়া ১৩, হাসারাঙ্গা ১২*, ধনাঞ্জয়া ০, রাজিথা ০*; শফিউল ২/৬৩, রুবেল ১/৫৫, তাইজুল ১/৩৪, মিরাজ ০/৫৯, সৌম্য ৩/৫৬, মাহমুদউল্লাহ ০/২২)।

জয়াসুরিয়াকে ফেরালেন শফিউল

উইকেটে যখন নেমেছেন তখন চলে ৪৭তম ওভার। তাই দ্রুত রান তুলতে শুরু থেকেই হাত খুলে মারার চেষ্টায় ছিলেন শিহান জয়াসুরিয়া। তবে খুব বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি তিনি। শফিউলের বলে ছক্কা হাঁকাতে গেলে ঠিকভাবে ব্যাটে না লাগায় বল উঠে যায় আকাশে। এক্সট্রা কভারে সহজ ক্যাচ ধরে নিয়েছেন অধিনায়ক তামিম ইকবাল। ৭ বলে ১৩ রান করেছেন জয়াসুরিয়া।

শানাকাকে ফিরিয়ে জুটি ভাঙলেন শফিউল

আগের ওভারেই অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজের সহজ ক্যাচ মিস করে জুটি ভাঙার সুযোগ নষ্ট করেছেন শফিউল ইসলাম। তবে পরের ওভারে বল হাতে নিয়ে জুটি ভেঙেছেন তিনি। তবে ম্যাথিউজকে নয়, ফিরিয়েছেন শানাকাকে। তবে আউটে অবদান বেশি সাব্বির রহমানের। লংঅফ থেকে দৌড়ে দারুণ এক ক্যাচ ধরেছেন তিনি। মাত্র ১৪ বলে ২টি করে চার ও ছক্কায় ৩০ রান করেছেন শানাকা।

৪৭ ওভার শেষে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ৫ উইকেটে ২৬০ রান। ৭২ রানে ব্যাট করছেন ম্যাথিউজ। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন শিহান জয়াসুরিয়া।

ম্যাথিউজ-শানাকা জুটিতে পঞ্চাশ

উইকেটে নেমেই ঝড়ো গতিতে ব্যাটিং করছেন দাসুন শানাকা। শফিউল ইসলামের করা ৪৫তম ওভারে মেরেছেন দুটি ছক্কা ও একটি চার। অন্য প্রান্তে তোপ দাগাচ্ছেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজও। তাতে দারুণ এক জুটি গড়েছেন তারা। মাত্র ২৫ বলে এসেছে এ জুটির পঞ্চাশ। তাতে শানাকার অবদানই বেশি ২৯ রান করেছেন তিনি। ম্যাথিউজের অবদান ২১ রান।

৪৬ ওভার শেষে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ৪ উইকেটে ২৫১ রান। ম্যাথিউজ ৭০ ও শানাকা ৩০ রানে ব্যাট করছেন।  

ম্যাথিউজকে জীবন দিলেন শফিউল

ক্রমেই ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজ। শ্রীলঙ্কার ইনিংস গড়ে রানের গতি বাড়ানোর কাজে লেগেছেন তিনি। তবে মেহেদী হাসান মিরাজের বলে আউট হতে পারতেন তিনি। ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে টাইমিংয়ে হেরফের করে শূন্যে উঠিয়ে দিয়েছিলেন। কিন্তু লংঅনে সে ক্যাচ মিস করেছেন শফিউল ইসলাম। এ সময়ে ৬৩ রানে ব্যাট করছিলেন ম্যাথিউজ।

ম্যাথিউজের হাফসেঞ্চুরি

আগের দুই ম্যাচের মতো এদিনও দারুণ ব্যাটিং করছেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজ। দলের ইনিংস মেরামত করেছেন। নিজেও তুলে নিয়েছেন হাফ সেঞ্চুরি। ৬৯ বলে নিজের ফিফটি স্পর্শ করেছেন তিনি। এ রান করতে ৫টি চার মেরেছেন এ ব্যাটসম্যান।

৪৪ ওভার শেষে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ৪ উইকেটে ২২১ রান। ম্যাথিউজ ৬১ ও শানাকা ৯ রানে ব্যাট করছেন।  

শ্রীলঙ্কার দলীয় দ্বিশতক

কুসল মেন্ডিসের বিদায়ের পর অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজের সঙ্গে ইনিংস মেরামতের কাজে নেমেছেন দাসুন শানাকা। এরমধ্যে দলের দ্বিশতক পূর্ণ হয়েছে। ৪১.৫ ওভারে (২৫১ বলে) এসেছে এ রান। দলীয় প্রথম শতকটি এসেছিল ১৩৮ বলে।

৪২ ওভার শেষে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ৪ উইকেটে ২০০ রান। ৪৯ রানে ব্যাট করছেন ম্যাথিউজ। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন দাসুন শানাকা। 

মেন্ডিসকে ফিরিয়ে জুটি ভাঙলেন সৌম্য

দারুণ ব্যাটিং করছিলেন কুসল মেন্ডিস। অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজের সঙ্গে দারুণ জুটি গড়ে দলকে বড় সংগ্রহের ভিত গড়ে দিয়েছেন। নিজেও তুলে নিয়েছেন হাফসেঞ্চুরি। তবে আরও বড় ক্ষতি করার আগে তাকে ফিরিয়েছেন সৌম্য সরকার। রানের গতি বাড়াতে সৌম্যর বলে ছক্কা হাঁকাতে গিয়েছিলেন। কিন্তু স্লোয়ার বলে ঠিকভাবে টাইমিং করতে না পারায় লংঅনে ধরা পড়েছেন সাব্বির রহমানের হাতে। ৫৮ বলে ৫টি চার ও ১টি ছক্কার সাহায্যে ৫৪ রান করেছেন মেন্ডিস

মেন্ডিসের ফিফটি

দারুণ ব্যাটিংয়ে শ্রীলঙ্কাকে বড় সংগ্রহের পথে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন কুসল মেন্ডিস। চতুর্থ উইকেটে অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজের সঙ্গে দারুণ এক জুটি গড়েছেন। নিজেও তুলে নিয়েছেন হাফসেঞ্চুরি। ৫৫ বলে বলে এসেছে তার ফিফটি। এ রান করতে ৫টি চার ও ১টি ছক্কা মেরেছেন তিনি।

৪১ ওভার শেষে ৩ উইকেটে ১৯৭ রান তুলেছে শ্রীলঙ্কা। মেন্ডিস ৫৩ ও ম্যাথিউজ ৪৭ রানে ব্যাট করছেন।  

মেন্ডিস-ম্যাথিউজ জুটিতে পঞ্চাশ

দ্রুত সময়ে টাইগার বোলাররা দুই সেট ব্যাটসম্যানকে তুলে বেশ চাপ সৃষ্টি করেছিল লঙ্কান শিবিরে। তবে সে চাপ কুসল মেন্ডিসকে সঙ্গে নিয়ে সামলে নিয়েছেন অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজ। দারুণ এক জুটি গড়েছেন এ দুই ব্যাটসম্যান। এরমধ্যেই তাদের জুটি পঞ্চাশ পেরিয়েছে। চতুর্থ উইকেটে ৭০ বলে জুটির ফিফটি স্পর্শ করেন এ দুই ব্যাটসম্যান। জুটিতে অবশ্য মেন্ডিসের অবদান বেশি। ৩০ রান এসেছে তার ব্যাট থেকে। ম্যাথিউজ করেছেন ২০ রান।

৩৩ ওভার শেষে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১৪৮ রান। মেন্ডিস ৩১ ও ম্যাথিউজ ২০ রানে ব্যাট করছেন।  

শ্রীলঙ্কার দলীয় শতরান

এদিন শুরু থেকেই কিছুটা নিয়ন্ত্রিত বোলিং করছেন টাইগার বোলাররা। মাঝে কারুনারাত্নে ও পেরেরা দারুণ একটি জুটি গড়েছিলেন। তবে দ্রুতই দুই সেট ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে কিছুটা চাপে পড়েছে শ্রীলঙ্কা। এরমধ্যে অবশ্য দলীয় শতক তুলে নিয়েছে দলটি। ২৩ ওভারে (১৩৮ বলে) এসেছে দলীয় শতক। আগের দুই ম্যাচের তুলনায় অনেক ধীরে। প্রথম ম্যাচে ৮২ এবং দ্বিতীয় ম্যাচে ১০০ বলে দলের প্রথম শতক তুলেছিল দলটি।

২৪ ওভার শেষে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১১১ রান। অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজ ও কুসল মেন্ডিস দুইজনই ব্যাট করছেন ৭ রানে।  

পেরেরাকেও ফেরালেন রুবেল

আগের ওভারেই অধিনায়ক কারুনারাত্নেকে ফিরিয়েছেন তাইজুল ইসলাম। এবার আরেক সেট ব্যাটসম্যান কুসল পেরেরাকে ফেরালেন রুবেল হোসেন। রুবেলের অফ স্টাম্পের বেশ বাইরে রাখা বলে খোঁচা মারতে গিয়ে বিপদ ডেকে আনেন পেরেরা। সহজ ক্যাচ ধরে নিয়েছেন উইকেটরক্ষক মুশফিকুর রহিম। ৫১ বলে ৫টি চারের সাহায্যে ৪২ রান করেছেন পেরেরা।

২২ ওভার শেষে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ৩ উইকেটে ৯৮ রান। মেন্ডিস ১ রানে ব্যাট করছেন। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজ।

কারুনারাত্নেকে ফিরিয়ে জুটি ভাঙলেন তাইজুল

আভিস্কা ফের্নান্ডোর বিদায়ের পর কুসল পেরেরাকে নিয়ে দলের হাল ধরেছিলেন দিমুথ কারুনারাত্নে। দারুণ একটি জুটিও গড়েছিলেন। এ জুটি স্কোরবোর্ডে ৮৩ রান যোগ করার পর কারুনারাত্নেকে ফিরিয়েছেন তাইজুল ইসলাম। তার বলে সুইপ করতে গেলে ব্যাটের কানায় লেগে শূন্যে উঠে গেলে উইকেটের পেছনে সহজ ক্যাচ ধরেছেন মুশফিকুর রহিম। ৬০ বলে ৬টি চারের সাহায্যে ৪৬ রান করেছেন কারুনারাত্নে।

২১ ওভার শেষে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ২ উইকেটে ৯৮ রান। পেরেরা ৪২ রানে ব্যাট করছেন। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন কুসল মেন্ডিস।

কারুনারাত্নে-পেরেরা জুটিতে পঞ্চাশ

দলীয় ১৩ রানেই ইনফর্ম ব্যাটসম্যান আভিস্কা ফের্নান্ডোকে হারিয়েছিল শ্রীলঙ্কা। এরপর কুসল পেরেরাকে নিয়ে দলের হাল ধরেছেন অধিনায়ক দিমুথ কারুনারাত্নে। প্রাথমিক চাপ সামলে দলকে এগিয়ে নিচ্ছেন এ দুই ব্যাটসম্যান। এরমধ্যেই তাদের জুটি পার করেছে পঞ্চাশের কোটা। ৬৪ বলে জুটির ফিফটি স্পর্শ করেছেন তারা। তাতে দুইজনেরই অবদান ২৪ রান করে।

১৬ ওভার শেষে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ১ উইকেটে ৭৪ রান। কারুনারাত্নে ৪০ ও পেরেরা ২৫ রানে ব্যাট করছেন।  

শ্রীলঙ্কার দলীয় পঞ্চাশ

আভিস্কা ফের্নান্ডোর দ্রুত বিদায়ের পর কিছুটা ধীর গতিতেই ব্যাটিং করেছে শ্রীলঙ্কা। পাওয়ার প্লেতে তাদের সংগ্রহ করেছিল ৩৬ রান। তবে পাওয়ার প্লে শেষ হতেই কিছুটা হাত খুলে ব্যাট করার চেষ্টা করছেন দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান। এরমধ্যেই এসেছে দলীয় ফিফটি। ১২.২ ওভারে (৭৪ বলে) এসেছে দলটির পঞ্চাশ রান।

১৩ ওভার শেষে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ১ উইকেটে ৫৩ রান। কারুনারাত্নে ২৭ ও পেরেরা ১৮ রানে ব্যাট করছেন।  

পাওয়ার প্লেতে শ্রীলঙ্কার ৩৬ রান

পাওয়ার প্লেতে শ্রীলঙ্কা কিছুটা হলেও আটকে রাখতে পেরেছে বাংলাদেশ দল। আগের দুই ম্যাচেই পাওয়ার শেষ হওয়ার অনেক আগেই পঞ্চাশের কোটা পার হয়েছে। তবে এদিন দারুণ নিয়ন্ত্রিত বোলিং করায় মাত্র ৩৬ রান সংগ্রহ করতে পেরেছে শ্রীলঙ্কা। অবশ্য অধিনায়ক দিমুথ কারুনারাত্নে দেখে শুনে খেললেও কিছুটা হাত খুলে খেলার চেষ্টা করছেন কুসল পেরেরা।

১০ ওভার শেষে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ১ উইকেটে ৩৬ রান। পেরেরা ১৩ ও কারুনারাতে ১৫ রানে ব্যাট করছেন। 

ফের্নান্ডোকে ফেরালেন শফিউল

শ্রীলঙ্কান শিবিরে শুরুতেই আঘাত হেনেছেন শফিউল ইসলাম। ফিরিয়েছেন দারুণ ছন্দে থাকা আভিস্কা ফের্নান্ডোকে। শফিউলের বলে এলবিডাব্লিউর ফাঁদে পড়েছেন এ ওপেনার। লাইন মিস করলে প্যাডে লাগে বল। আউট দিতে কালক্ষেপণ করেননি আম্পায়ার। রিভিউও নেননি ফের্নান্ডো। ১৪ বলে ৬ রান করেছেন এ ওপেনার। আগের ম্যাচেই শ্রীলঙ্কার জয়ের নায়ক ছিলেন ফের্নান্ডো।

৫ ওভার শেষে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ১ উইকেটে ১৩ রান। ৬ রানে ব্যাট করছেন অধিনায়ক দিমুথ কারুনারাত্নে। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন প্রথম ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান কুসল পেরেরা।

শ্রীলঙ্কা দলে চার পরিবর্তন

আগের সিরিজ নিশ্চিত হয়ে যাওয়ায় শেষ ম্যাচে পরিবর্তন কিছুটা অনুমিতই ছিল। রিজার্ভ বেঞ্চ বাজিয়ে দেখতে চায় দলটি। তাই একাদশের বাইরে রাখা হয়েছে নুয়ান প্রদিপ, ইসুরু উদানা, ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা ও লাহিরু থিরিমান্নেকে। তাদের জায়গায় একাদশে এসেছেন দাসুন শানাকা, শিহান জয়াসুরিয়া, ভানিদু হাসারাঙ্গা ও তাসুন রাজিথা।

শ্রীলঙ্কা একাদশ: দিমুথ করুনারাত্নে, কুসল পেরেরা, আভিস্কা ফের্নান্ডো, কুসল মেন্ডিস, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজ, দাসুন শানাকা, শিহান জয়াসুরিয়া, ভানিদু হাসারাঙ্গা, আকিলা ধনাঞ্জয়া, কাসুন রাজিথা, লাহিরু কুমারা।

বাংলাদেশের একাদশে নেই মোস্তাফিজ, ফিরলেন বিজয়-রুবেল

টসের আগে গা গরমের সময় হালকা চোট পেয়েছেন মোস্তাফিজুর রহমান। তাই বাধ্য হয়েই একটি পরিবর্তন করতে হয়েছে। তার জায়গায় একাদশে ফিরেছেন রুবেল হোসেন। এছাড়া অলরাউন্ডার মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের জায়গায় ফিরেছেন এনামুল হক বিজয়। প্রায় এক বছর পর আবার জাতীয় দলের জার্সি গায়ে খেলছেন এ উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান। 

বাংলাদেশ একাদশ: তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, এনামুল হক, মোহাম্মদ মিঠুন, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ, সাব্বির রহমান, মেহেদী হাসান মিরাজ, শফিউল ইসলাম, তাইজুল ইসলাম ও রুবেল হোসেন।

টস হেরে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ

আগের দুই ম্যাচেই অসহায় আত্মসমর্পণ করেছে বাংলাদেশ দল। সিরিজ তাই আগেই খুইয়েছে। শেষ ম্যাচটা তাদের জন্য সান্ত্বনার। জিততে পারলে অন্তত হোয়াইটওয়াশ হওয়ার লজ্জাটা এড়ানো যাবে। এমন ম্যাচের শুরুটা ভালো হয়নি বাংলাদেশের। টস হেরেছেন বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক তামিম ইকবাল খান। লঙ্কান অধিনায়ক দিমুথ কারুনারাত্নে টস জিতে বেছে নিয়েছেন ব্যাটিং। অর্থাৎ প্রথমে ফিল্ডিং করতে হবে টাইগারদের। বাংলাদেশ সময় বেলা ৩টায় শুরু হবে ম্যাচটি।

মাইলফলকের সামনে মাহমুদউল্লাহ

এ ম্যাচ দিয়ে নিজের ১৮৪তম ম্যাচ খেলবেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। আগের ১৮৩টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছেন রান করেছেন ৩৯৮৫। আর ১৫ রান করলেই চার হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করবেন তিনি। তামিম, সাকিব ও মুশফিকের পর চতুর্থ ব্যাটসম্যান হিসেবে চার হাজারের রানের এ কীর্তি গড়বেন সাইলেন্ট কিলার। মাইলফলকে সামনে আছেন অধিনায়ক তামিম ইকবালও। আর ১১০ রান করতে পারলে দেশের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে ৭ হাজারী ক্লাবে যোগ দিবেন তিনি।

শেষটা ভালো করতে চায় বাংলাদেশ

সিরিজ হার নিশ্চিত হয়ে গেছে আগের ম্যাচেই। এ ম্যাচটি নিছক আনুষ্ঠিকতার। জিততে পারলে সান্ত্বনাটুকু জুটবে টাইগারদের। সেটাই বাঁ কম কিসে। আত্মবিশ্বাসের তলানিতে থাকা দলটি সেটা নিয়েই ফিরতে চায়। অধিনায়ক তামিম ইকবালও বললেন একই কথা, ‘আমার কাছে মনে হয় আমার নিজেদেরই অনেক কিছু পাওয়ার আছে। হয়তো এই সিরিজে আমরা হেরে গেছি। কিন্তু ৩-০ বা ২-১ এর মধ্যে ব্যবধান এটা হবে আমরা যদি এই ম্যাচটা জিততে পারি, ভালো ক্রিকেট খেলতে পারি তাহলে নিজেদের একটা সন্তুষ্টি থাকবে। দেশে সবাই আমাদের খেলা দেখে, তাদের জন্য তো বটেই।’

বাংলাদেশ দলের মতো অধিনায়ক তামিমেরও আত্মবিশ্বাস তলানিতে। শেষ ছয় ম্যাচেই আউট হয়েছে একই ভাবে। দলের খুব বেশি কিছু পাওয়ার না থাকলেও ব্যক্তিগতভাবে তামিমের পাওয়ার যে আছে অনেক সেই তাড়না অনুভব করছেন তিনি, ‘আমি প্রতিদিনই অনুভব করার চেষ্টা করি। প্রতিদিনই আমার মনে হয় যে আজকে হয়ে যাবে, আজকে হয়ে যাবে। একজন ক্রিকেটার হিসেবে এসব থেকে বেরুনোর বিশ্বাস রাখতে হবে। ইতিবাচক ব্যাপার হচ্ছে, এই রকম পরিস্থিতিতে আমি প্রথমই পড়লাম না। অভিজ্ঞতা আগেও হয়েছে। নিজের উপর বিশ্বাস রাখতে হবে যে এর থেকে বেরুতে পারব। বিশ্বাস না রাখলে এটা আরও কঠিন হয়ে যাবে।’

Comments

The Daily Star  | English

No global leader raised any questions about polls: PM

The prime minister also said that Bangladesh's participation in the Munich Security Conference reflected the country's commitment to global peace

4h ago