বার্সেলোনা থেকে বায়ার্নে যাচ্ছেন কৌতিনহো

শুক্রবার অ্যাথলেতিক বিলবাওয়ের বিপক্ষে ম্যাচে শুরুতে স্কোয়াডে থাকলেও পরে বাদ দেওয়া হয় ফিলিপ কৌতিনহোর নাম। গুঞ্জনটা শুরু হয়েছিল তখন থেকেই। শেষ পর্যন্ত সে গুঞ্জনই সত্যি হচ্ছে। এক বছরের জন্য ধারে বায়ার্ন মিউনিখে যাচ্ছেন এ ব্রাজিলিয়ান। আলনার পর দুই ক্লাব ঐক্যমত্যে পৌঁছেছে বলে জানানো হয়েছে আগের দিন রাতে।

শুক্রবার অ্যাথলেতিক বিলবাওয়ের বিপক্ষে ম্যাচে শুরুতে স্কোয়াডে থাকলেও পরে বাদ দেওয়া হয় ফিলিপ কৌতিনহোর নাম। গুঞ্জনটা শুরু হয়েছিল তখন থেকেই। শেষ পর্যন্ত সে গুঞ্জনই সত্যি হচ্ছে। এক বছরের জন্য ধারে বায়ার্ন মিউনিখে যাচ্ছেন এ ব্রাজিলিয়ান। আলনার পর দুই ক্লাব ঐক্যমত্যে পৌঁছেছে বলে জানানো হয়েছে আগের দিন রাতে।

বায়ার্নে কৌতিনহোর ধারে খেলার ব্যাপারটি নিশ্চিত করেছেন জার্মান ক্লাবটির প্রধান নির্বাহী কার্ল হেইঞ্জ রুমেনিগে, 'আমি ও আমাদের স্পোর্টিং ডিরেক্টর বুধবার বার্সেলোনাতে গিয়েছিলাম। সেখানে কৌতিনহোর ব্যাপারে চুক্তি চূড়ান্ত হয়েছে। কয়েকদিনের মাঝেই সেই বায়ার্নে আসবে। মেডিকেল পরীক্ষার পরেই সে চুক্তিতে সাক্ষর করবে। সবমিলিয়ে বার্সেলোনা কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ।'

এছাড়া খেলোয়াড় কৌতিনহোর উচ্ছ্বসিত প্রশংসাও করেন প্রধান নির্বাহী, 'কৌতিনহো আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ ফুটবলার। এটা শুধু তার নামের জন্য নয়, তার দারুণ ফুটবল শৈলী আমাদের আক্রমণাত্মক ফুটবলকে আরও সাহায্য করবে। তাকে পেয়ে আমরা খুবই খুশি।'

নেইমার বার্সেলোনা ছাড়ার পর থেকেই তার জায়গা পূরণ করতে কৌতিনহোকে কিনতে উঠেপড়ে লাগে বার্সেলোনা। পরে ২০১৮ সালের শীতকালীন দলবদলে লিভারপুল থেকে ১৪২ মিলিয়ন পাউন্ডের বিনিময়ে কৌতিনহোকে কিনেছিল দলটি। তবে দলের প্রত্যাশা পূরণ করতে ব্যর্থ হন এ ব্রাজিলিয়ান। তাতেই সমর্থকের রোষানলে পড়েন তিনি।

অবশ্য বার্সেলোনায় শুরুটা খারাপ হয়নি কৌতিনহোর। ভাঙা মৌসুমে ভালোই খেলেছিলেন। দলও সন্তুষ্ট ছিল। পরে নতুন মৌসুমে ধীরে ধীরে রঙ হারাতে থাকেন। একসময় দলে অনিয়মিত হয়ে পড়েন কৌতিনহো।

বার্সেলোনায় সবমিলিয়ে ৭৬টি ম্যাচ খেলেছেন কৌতিনহো। তাতে গোল করেছেন ২১টি। দলের হয়ে জিতেছেন দুটি লা লিগার শিরোপা।

Comments

The Daily Star  | English

Pm’s India Visit: Dhaka eyes fresh loans from Delhi

India may offer Bangladesh fresh loans under a new framework, as implementation of the projects under the existing loan programme is proving difficult due to some strict loan conditions.

2h ago