শান্ত-ইয়াসিরের ব্যাটে সিরিজে সমতা

প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশের এইচপি দলকে রীতিমতো গুঁড়িয়ে দিয়েছিল শ্রীলঙ্কার ইমার্জিং দল। দ্বিতীয় ম্যাচের আগে এই জুনিয়রদের প্রেরণা দেন মাশরাফি মর্তুজা, মুশফিকুর রহিম। বড়দের কাছ থেকে পরামর্শ নিয়ে নতুন করে কৌশল আর কঠোর অনুশীলন করে মাঠে নেমে ফল পেয়েছে নাজমুল হোসেন শান্তর দল। ইয়াসির আলি রাব্বি আর অধিনায়ক শান্ত ব্যাটে রান তাড়া করে জিতেছে তারা।

প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশের এইচপি দলকে রীতিমতো গুঁড়িয়ে দিয়েছিল শ্রীলঙ্কার ইমার্জিং দল। দ্বিতীয় ম্যাচের আগে এই জুনিয়রদের প্রেরণা দেন মাশরাফি মর্তুজা, মুশফিকুর রহিম। বড়দের কাছ থেকে পরামর্শ নিয়ে নতুন করে কৌশল আর কঠোর অনুশীলন করে মাঠে নেমে ফল পেয়েছে নাজমুল হোসেন শান্তর দল। ইয়াসির আলি রাব্বি আর অধিনায়ক শান্ত ব্যাটে রান তাড়া করে জিতেছে তারা।

বুধবার বিকেএসপিতে আগে ব্যাট করে ২৭৩ রান করেছিল লঙ্কানরা। জবাবে শান্তর ৭৭ আর ইয়াসিরের ৮৫ রানে ওই রান তাড়া করে ২ উইকেটে জিতে সিরিজে সমতা ফিরিয়েছে এইচপি দল।

২৭৪ রান তাড়া করতে নেমে শুরুটা একদম ভাল হয়নি এইচপির। দলের মাত্র ১২ রানেই ৫ রান করা নাঈম শেখ ফিরে যান। ওয়ানডাউনে নেমে অধিনায়ক শান্ত সাইফ হাসানকে নিয়ে দলকে এগিয়ে নিতে থাকেন। ৬৪ রানে ২৭ করা সাইফের আউটে ভাঙে জুটি।

তৃতীয় উইকেটে দারুণ জুটি পায় বাংলাদেশের তরুণরা। অধিনায়ক সাইফ আর ইয়াসির আলি রাব্বি ১২০ রানের জুটিতে ম্যাচ নিয়ে আসেন মুঠোয়। ম্যাচ জেতানো জুটিতে বেশি আগ্রাসী ছিলেন ইয়াসির। ৯৩ বলের ইনিংসে ৩ চার আর ৫ ছক্কায় করেছেন ৮৫। অধিনায়ক শান্ত ৮৮ বলে করেন ৭৭।

সেঞ্চুরির হাতছানি থাকা ইয়াসির লেগ স্পিনার হাসারাঙ্গার বলে আউট হতেই তালগোল পাকিয়ে ফেলেছিল সাইমন হেলমটের শিষ্যরা। দ্রুত উইকেট হারিয়ে পথ হারানো দল শেষ পর্যন্ত টেল এন্ডারদের ব্যাটে শেষ ওভারে গিয়ে তরী ভেড়ায় তিরে। 

এর আগে টস জিতে ব্যাট করতে গিয়ে ৩১ রানে ওপেনার সুন্দন ভিক্রডিকে নাঈম হাসানের বলে হারায় শ্রীলঙ্কা। ওয়ানডাউনে নামা চারিথা আসালাঙ্কা আর পাদুন নিশাকা ৬৬ রানের জুটিতে দলকে রাখেন পথে। ৫৫ করা নিশাকাকে ফেরান আমিনুল ইসলাম বিপ্লব।

পেসার শফিকুল ইসলাম আর নাঈম হাসান পর পর চারিথা, শামু আসালান আর ওয়াইন্দু হাসারাঙ্গাকে তুলে পথ হারায় চামিন্দা ভাসের শিষ্যরা।

কিন্তু অলরাউন্ডার কামিন্দু মেন্ডিস আর জিহান ডেনিয়েল ফের লড়াইয়ে ফেরান লঙ্কানদের। কামিন্দু ৬৬ আর জিহান ৪৩ করলে ২৭০ ছাড়িয়ে যায় লঙ্কা।

২৪ অগাস্ট খুলনা তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে নামবে দুদল।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

শ্রীলঙ্কা ইমার্জিং দল: ৪৯.৪ ওভারে ২৭৩ (নিশাকা ৫৫, সুন্দন ৭, চারিথা ৪৫, সামু ২১, কামিন্দু ৬৫, হাসারাঙ্গা ৫, বান্দারা ১২, জেহান ৪৩, শিরান ৪, আমিলা ৫, নুয়ান ১*; শফিকুল ৩/৫১, নাঈম ২/৩৫, সুমন ১/৫০, আফিফ ০/১৯, বিপ্লব ১/৫৩, ইয়াসিন ১/৬১)

বাংলাদেশ এইচপি দল: ৪৯.৪ ওভারে ২৭৪/৮ ( সাইফ ২৭, নাঈম ৫, শান্ত ৭৭, ইয়াসির ৮৫, আফিফ ১৮, আমিনুল ৮, জাকের ১১, নাঈম ৯*, সুমন ৫, ইয়াসিন ১২* ; শিরান ২/৩০, নুয়ান ০/৩৭, আমিলা ১/৭৪, জেহান ২/৪৬, ওয়াইন্দু ১/৫৪, কামিন্দু ০/৪৪)

ফল: বাংলাদেশ এইচপি দল ২ উইকেটে জয়ী।

সিরিজ: তিন ম্যাচ সিরিজের দুই ওয়ানডে শেষে ১-১ সমতা।

Comments