রোহিঙ্গা সমাবেশ প্রসঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী

‘ভবিষ্যতে এ ধরনের পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার পদক্ষেপ নেবে সরকার’

কক্সবাজারে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত রোহিঙ্গাদের মহাসমাবেশের বিষয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন বলেছেন, ভবিষ্যতে এমন পরিস্থিতি মোকাবিলায় সরকার সব পক্ষের সাথে পরামর্শক্রমে যথাযথ পদক্ষেপ নেবে।
AK Abdul Momen
পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন। ছবি: স্টার ফাইল ফটো

কক্সবাজারে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত রোহিঙ্গাদের মহাসমাবেশের বিষয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন বলেছেন, ভবিষ্যতে এমন পরিস্থিতি মোকাবিলায় সরকার সব পক্ষের সাথে পরামর্শক্রমে যথাযথ পদক্ষেপ নেবে।

আজ (২৬ আগস্ট) রাজধানীতে জাতীয় শোক দিবসের আলোচনায় অংশগ্রহণ শেষে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, “(২৫ আগস্ট রোহিঙ্গা শিবিরে অনুষ্ঠিত) রোহিঙ্গাদের সমাবেশ সম্পর্কে আমাদের আগে থেকে জানানো হয়নি।”

তিনি বলেন, তারা মিডিয়ার মাধ্যমে সমাবেশ সম্পর্কে জানতে পেরেছেন এবং ভবিষ্যতে এই ধরনের পরিস্থিতি সামাল দিতে ইতোমধ্যেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কথা বলেছেন।

ড. মোমেন বলেন, রোহিঙ্গারা দোয়ার জন্য সেখানে জড়ো হয়েছে জানতে পেরে সরকার তাতে আপত্তি জানায়নি।

২৫ আগস্টকে ‘গণহত্যা দিবস’ উল্লেখ করে সেদিন হাজার হাজার রোহিঙ্গা কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শিবিরে মহাসমাবেশ করে।

সমাবেশ থেকে মিয়ানমারের নাগরিকত্ব দেওয়া, নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা, নিজেদের ভিটেবাড়ি ফিরিয়ে দেওয়া, ক্ষতিপূরণ দেওয়া এবং মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের হত্যা ও নির্যাতনকারীদের আন্তর্জাতিক আদালতে বিচার করার দাবি জানানো হয়।

ভবিষ্যতে কীভাবে এই জাতীয় পরিস্থিতি ‘সামাল’ দেবেন তা তারা নতুন করে ভাবছেন উল্লেখ করে ড. মোমেন বলেন, “বড় সমাবেশ ছিলো। অনেক দাবি এসেছে।”

সরকার রোহিঙ্গাদের যে কোনো আন্দোলন বন্ধ করবে কী না জানতে চাইলে তিনি বলেন, যে পদক্ষেপের প্রয়োজন হবে তা তারা অবশ্যই গ্রহণ করবেন।

“রোহিঙ্গারা তাদের নিজ ভূমিতে ফেরত না যেতে চাওয়ার জন্য মিয়ানমার দায়ী” উল্লেখ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “রোহিঙ্গাদের মধ্যে এখনো বিশ্বাসের ঘাটতি রয়েছে। তারা (মিয়ানমার) রোহিঙ্গাদের বোঝাতে ব্যর্থ হয়েছে।”

Comments

The Daily Star  | English

Bheem finds business in dried fish

Instead of trying his luck in other profession, Bheem Kumar turned to dried fish production and quickly changed his fortune.

48m ago