ফুটবল

ফিফার নিয়মে আগামী মৌসুমে নেইমারকে আটকাতে পারবে না পিএসজি

'৩০০ মিলিয়ন ইউরো ছাড়া নেইমারকে ছাড়ছি না।' হাঁকডাক দিয়ে কদিন আগেও এ কথা বলেছেন প্যারিস সেইন্ত জার্মেইর (পিএসজি) মালিক নাসের আল-খেলাইফি। কিন্তু সত্যিই এ পরিমাণ অর্থ আদায় করে নিতে পারবেন তিনি। অন্তত আন্তর্জাতিক ফুটবল সংস্থা ফিফার নিয়ম বলছে 'সম্ভব নয়'।
ছবি: টুইটার

'৩০০ মিলিয়ন ইউরো ছাড়া নেইমারকে ছাড়ছি না।' হাঁকডাক দিয়ে কদিন আগেও এ কথা বলেছেন প্যারিস সেইন্ত জার্মেইর (পিএসজি) মালিক নাসের আল-খেলাইফি। কিন্তু সত্যিই কি এ পরিমাণ অর্থ আদায় করে নিতে পারবেন তিনি? অন্তত আন্তর্জাতিক ফুটবল সংস্থা ফিফার নিয়ম বলছে 'সম্ভব নয়'।

গ্রীষ্মের দল-বদলের সময় ফুরিয়েছে দুই দিন আগেই। এ সময়ে অনেক চেষ্টা করেও নেইমারকে ফেরাতে পারেনি ফুটবল ক্লাব বার্সেলোনা। বেশ কিছু লোভনীয় প্রস্তাব দিয়েছিল দলটি। কিন্তু কিছুতেই কোনো কাজ হয়নি। নেইমারকে ছাড়তে প্রায় ৩০০ মিলিয়ন ইউরো দাবি করে পিএসজি। শেষ পর্যন্ত ডেড লাইন ডের দুই দিন আগেই এ ইস্যু থেকে সরে আসে কাতালানরা।

তবে নেইমারকে এ মৌসুমে না পেলেও আগামী মৌসুমে পাবেন বলে আশায় বুক বেঁধেছেন বার্সা কর্তারা। অধিনায়ক লিওনেল মেসি, লুইস সুয়ারেজ, জেরার্দ পিকেদের এ বিষয়ে আশ্বাসও দিয়েছেন বলে জানিয়েছে স্প্যানিশ গণমাধ্যম মুন্ডো দিপার্তিভো। ফিফার নিয়মের বেড়াজালেই পিএসজি আটকে যাবে বলে আশা করছেন তারা। তাই নেইমার ও বার্সেলোনার খেলোয়াড়দের এক মৌসুম ধৈর্য ধরতে বলেছেন তারা।

কিন্তু, কি আছে ফিফার নিয়মে? 'প্রোটেক্টেড পিরিয়ড' বলে একটি অধ্যায় রয়েছে খেলোয়াড়দের দল বদলের ক্ষেত্রে। আর এই প্রোটেক্টেড পিরিয়ড' খেলোয়াড়দের জন্য প্রযোজ্য প্রথম তিন বছর। অর্থাৎ কোনো খেলোয়াড়কে কেনার পর যদি তিন বছরের মধ্যে ওই চুক্তি আবার নবায়ন না করা হয় তাহলে ওই ক্লাবকে একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ ক্ষতিপূরণ দিয়ে দল বদল করতে পারবে সে খেলোয়াড়।

তবে সেক্ষেত্রে ফিফার কাছে আবেদন করতে হবে নেইমারকে। একজন খেলোয়াড়ের ট্রান্সফার ফি ও বাজার মূল্যের ভিত্তিতে এ ক্ষতিপূরণ ঠিক করে দেয় ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নেইমারের এজেন্ট জানিয়েছেন, এ ক্ষতিপূরণের পরিমাণ ১৭০ মিলিয়ন ইউরোর আশেপাশে হবে। আর এ পরিমাণ অর্থ দিতে প্রস্তুত বার্সেলোনা। তাই আগামী মৌসুমে নেইমারের দল ছাড়তে কোনো বাধাই কাজ হবে না বলে সংবাদ প্রকাশ করেছে স্প্যানিশ গণমাধ্যমটি।

উল্লেখ্য, নেইমারকে ফেরাতে মৌসুমের শুরু থেকেই চেষ্টা করেছে বার্সেলোনা। শুরুতে ১০০ মিলিয়ন ইউরোর সঙ্গে ফিলিপ কৌতিনহোসহ তিন খেলোয়াড়কে দিতে চেয়েছিল বার্সেলোনা। পরে ১১৮ মিলিয়ন ইউরোর সঙ্গে ইভান রাকিতিচ, জ্যাঁ-ক্লেয়ার তোদিবো ও ধারে উসমান দেম্বেলেকে দিতে চায় দলটি। মাঝে ধারেও নেইমারকে নেওয়ার প্রস্তাবও দিয়েছিল। কিন্তু, কোনো প্রস্তাবেই মন গলেনি পিএসজি কর্তাদের। শেষে ১৫০ মিলিয়ন ইউরোর সঙ্গে ইভান রাকিতিচ ও উসমান দেম্বেলেকে চেয়েছিল ফরাসী ক্লাবটি। সে প্রস্তাবে আবার রাজী হয়নি বার্সেলোনা।

Comments

The Daily Star  | English

Consumers brace for price shocks

Consumers are bracing for multiple price shocks ahead of Ramadan that usually marks a period of high household spending.

7m ago