খেলা

মিরাকলের আশায় বাংলাদেশ

মাত্র তৃতীয় টেস্ট খেলতে নামা আফগানিস্তানের বিপক্ষে থই খুঁজে পাচ্ছে না বাংলাদেশ। চট্টগ্রামে ব্যাটে-বলে দাপট দেখিয়ে আফগানরা বাংলাদেশকে দিতে যাচ্ছে অসম্ভব এক চ্যালেঞ্জ। তৃতীয় দিন শেষে হারের শঙ্কার মধ্যে অবিশ্বাস্য কিছুর আশা করছেন মেহেদী হাসান মিরাজ।
Bangladesh test team
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

মাত্র তৃতীয় টেস্ট খেলতে নামা আফগানিস্তানের বিপক্ষে থই খুঁজে পাচ্ছে না বাংলাদেশ। চট্টগ্রামে ব্যাটে-বলে দাপট দেখিয়ে আফগানরা বাংলাদেশকে দিতে যাচ্ছে অসম্ভব এক চ্যালেঞ্জ। তৃতীয় দিন শেষে হারের শঙ্কার মধ্যে অবিশ্বাস্য কিছুর আশা করছেন মেহেদী হাসান মিরাজ।

টস জিতে প্রথম ইনিংসে ৩৪২ রান করে আফগানিস্তান। জবাবে মাত্র ২০৫ রানে অলআউট হয়ে বিপদে পড়ে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ইনিংসে এই পর্যন্ত আরও ২৩৭ রান যোগ করে ফেলেছে তারা। বাংলাদেশকে ইতিমধ্যে দিয়ে ফেলেছে ৩৭৪ রানের বোঝা। বৃষ্টি বাধা না হলে বাংলাদেশের সামনে ইতিহাস গড়ে জেতার অবিশ্বাস্য এক লক্ষ্যই দিতে যাচ্ছে তারা।

বাস্তবতা বলছে, এমন সমীকরণে ১০০ বারের মধ্যে বড় জোর দুই একবার কোনো দল সফল হতে পারে। ১৪২ বছরের টেস্ট ইতিহাসে এর চেয়ে (৩৭৪ রান) বেশি রান তাড়া করে জেতার ঘটনা হাতেগোনা- মাত্র সাতটি। শেষ দুই উইকেট নিয়ে আফগানরা আরও ৪৫ রান যোগ করতে পারলে বাংলাদেশের সামনে থাকবে বিশ্ব রেকর্ড গড়ার চ্যালেঞ্জ। এমন বেহাল দশাতেও ক্রিকেটের গৌরবময় অনিশ্চয়তার হাত ধরে আশা দেখছেন মিরাজ, ‘ক্রিকেটে সবকিছুই হতে পারে। আমরা চেষ্টা করব, যেহেতু আমাদের হাত দুটো দিন সময় আছে। প্রথম কাজ হলো দ্রুত ওদের বাকি দুটি উইকেট নেওয়া। এরপর দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটসম্যানদের দায়িত্বটা ঠিকভাবে বুঝে সেটা পালন করা। অবশ্যই আমি মনে করি, ক্রিকেট খেলায় সবই হতে পারে। জেতা ম্যাচও হেরে যেতে পারে কিংবা হেরে যাওয়া ম্যাচ সহজেই জিততে পারে- এমন অনেক ঘটনাই আছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে।’

‘টেস্ট ক্রিকেটে সব সময়ই চ্যালেঞ্জ নিতে হবে। চতুর্থ ইনিংসে অবশ্যই অনেক কঠিন থাকে। আমাদের ব্যাটসম্যানদের এখানে ধৈর্য পরীক্ষা দিতে হবে।’

বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের ধৈর্যের পরীক্ষা কতটুকু দিতে পারবেন বলে দেবে সময়। কিন্তু আফগানরা কম অভিজ্ঞতা নিয়েও দেখিয়েছে দৃঢ়তা। মিরাজ নিজেদের ঘাটতির চেয়েও প্রতিপক্ষের এই মুন্সিয়ানাকেই দিলেন বাহবা, ‘আমরা বোলাররা ভালো জায়গাতে বোলিং করেছি, কিন্তু উইকেট বের করতে পারিনি। ওরা অনেক ভালো ক্রিকেট খেলেছে, অনেক ধৈর্যের পরিচয় দিয়েছে। বিশেষ করে ব্যাটসম্যানরা যখন ব্যাটিং করেছে। আমি যখন বোলিং করেছি, অনেক কষ্ট করে উইকেট নিতে হয়েছে।  ওরা অনেক ভালো ক্রিকেট খেলেছে, এটা মানতেই হবে।’

এই নিয়ে ১১৫তম টেস্ট খেলছে বাংলাদেশ। আর মাত্রই টেস্ট মর্যাদা পাওয়া আফগানরা নেমেছে নিজেদের মাত্র তৃতীয় টেস্টে। এত কম অভিজ্ঞতা নিয়ে এমন পারফরম্যান্সে কিছুটা ভড়কে গেছে বাংলাদেশও। মিরাজ জানালেন, আফগানদের মধ্যে বিশ্বকে দেখিয়ে দেওয়ার রোমাঞ্চ দেখেছেন তিনি, ‘ওরা কিন্তু মাত্র টেস্ট ক্রিকেট শুরু করেছে। ওদের মধ্যে রোমাঞ্চটা আরও বেশি কাজ করবে। ওরা চাইবেই টেস্টে ক্রিকেটের মাধ্যমে বিশ্বকে দেখানোর। ওরা মানসিকভাবে প্রস্তুতি নিয়েই এসেছে আমাদের এখানে। আমাদের প্রস্তুতিও ভালো ছিল। কিন্তু অনেক সময় ভালো সময়, খারাপ সময় যায়- এটাই হয়তো হয়েছে। আমাদের দুর্ভাগ্য দুইটা দিন আমাদের ভালো যায়নি।’

Comments

The Daily Star  | English

How Ekushey was commemorated during the Pakistan period

The Language Movement began in the immediate aftermath of the establishment of Pakistan, spurred by the demands of student organisations in the then East Pakistan. It was a crucial component of a broader set of demands addressing the realities of East Pakistan.

14h ago