শান্তয় মুগ্ধ ডমিঙ্গো খুশি মুশফিকের কিপিংয়ে

ত্রিদেশীয় সিরিজ দিয়ে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে অভিষেক হয়েছে নাজমুল হোসেন শান্তর। কিন্তু নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি তিনি। টেস্ট ও ওয়ানডের মতো এ সংস্করণেও হতাশ করেছেন এ ওপেনার। তবে ব্যাট হাতে অবদান না রাখতে পারলেও তার ফিল্ডিং, ফিটনেস ও অনুশীলনে মুগ্ধ বাংলাদেশের প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। এছাড়া নানা সমালোচনার মধ্যে থাকা উইকেটরক্ষক মুশফিকুর রহিমের কিপিংয়েও সন্তুষ্ট এ প্রোটিয়া।
russell domingo
রাসেল ডমিঙ্গো। ফাইল ছবি: ফিরোজ আহমেদ

ত্রিদেশীয় সিরিজ দিয়ে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে অভিষেক হয়েছে নাজমুল হোসেন শান্তর। কিন্তু নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি তিনি। টেস্ট ও ওয়ানডের মতো এ সংস্করণেও হতাশ করেছেন এ ওপেনার। তবে ব্যাট হাতে অবদান না রাখতে পারলেও তার ফিল্ডিং, ফিটনেস ও অনুশীলনে মুগ্ধ বাংলাদেশের প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। এছাড়া নানা সমালোচনার মধ্যে থাকা উইকেটরক্ষক মুশফিকুর রহিমের কিপিংয়েও সন্তুষ্ট এ প্রোটিয়া।

শান্ত ছাড়া আরও এক তরুণ নাঈম শেখ রয়েছেন বাংলাদেশ দলে। গত বছর থেকে ঘরোয়া ক্রিকেটে দারুণ পারফর্ম করেই জায়গা পেয়েছেন। পাওয়ার হিটিংয়েও বেশ নাম রয়েছে তার। কিন্তু হুট করে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে আফগানিস্তানের বিপক্ষে তাকে নামানোর পরিকল্পনা নেই বললেই চলে। কারণ শান্ততেই সন্তুষ্ট কোচ ডমিঙ্গো।  সোমবার (২৩ সেপ্টেম্বর) তিনি বলেছেন, ‘সে (শান্ত) তরুণ একজন ক্রিকেটার। যতটুকু দেখেছি, আমি ওকে নিয়ে মুগ্ধ।’

অভিষেক ম্যাচে অবশ্য ভালো কিছুর ইঙ্গিত দিয়েছিলেন শান্ত। লিটন দাসের সঙ্গে ওপেনিং জুটিও জমে উঠেছিল। কিন্তু ব্যক্তিগত ১১ রানে বাজে শটে আউট হন। পরের ম্যাচে আফগানদের বিপক্ষে তার অবদান ৫ রান। তবে ফিল্ডিংয়ের সময় বেশ চটপটে ছিলেন তিনি। তার ফিটনেসও দারুণ। এ সবকিছুকে গুরুত্বপূর্ণ মনে করছেন ডমিঙ্গো, ‘সে যেভাবে নিজেকে উপস্থাপন করে, যেভাবে ট্রেনিং করে, তার ফিল্ডিং, ফিটনেস- সবকিছু দারুণ। কখনও কখনও রান ও উইকেটের চেয়েও বড় কিছু থাকে। নিজের কাজের ব্যাপারে তার নৈতিকতা অবিশ্বাস্য। সে মানসিকতায় দারুণ, যেটি আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। রান করতে পারেনি, কিন্তু ওকে দেখে আমি মুগ্ধ।’

বরাবরের মতো এবারও উইকেটের পেছনে হতাশ করেছেন উইকেটরক্ষক মুশফিক। ক্যাচ ছেড়েছেন, স্টাম্পিংও মিস করেছেন। সঙ্গে বেশ কিছু বল ছেড়ে বাই হিসেবে প্রতিপক্ষকে বাউন্ডারি উপহার দিয়েছেন। তারপরও তাকে শুধু ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলানোর কথা উড়িয়ে দিয়েছেন ডমিঙ্গো। লিটন দলে থাকলেও তাকে ফিল্ডার হিসেবেই চান তিনি, ‘এই মুহূর্তে সম্ভাবনা নেই (লিটনের কিপিংয়ের)। লিটন মাঠে যেভাবে নিজেকে মেলে ধরে, আমরা তাতে সন্তুষ্ট। সে দারুণ ফিল্ডার, মুশির চেয়ে ভালো ফিল্ডার। আমার মতে, যতজন ভালো ফিল্ডারকে আমরা পাই, তত দলের জন্য ভালো। লিটন-আফিফ-শান্তর মতো ফিল্ডাররা যে ৫-৬ রান বাঁচায় মাঠে, সেটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।’

লিটন নয়, মুশফিককে দিয়ে কিপিং করানোর পক্ষে যুক্তিও দিয়েছেন কোচ, ‘সে (লিটন) ভালো ফিল্ডার। মুশি সম্প্রতি দুয়েকটি বল মিস করেছে বটে। তবে মুশি যেভাবে কিপিং করে, তাতে এমনিতে আমরা খুশি। স্টাম্পের পেছনে সে দারুণ প্রাণবন্ত, অনেক অভিজ্ঞ। স্টাম্পের পেছন থেকে খুব ভালো দেখতে পারে বলে অধিনায়ককে কার্যকর কিছু পরামর্শ সে দিতে পারে। সে কিপিং করলে অনেক সুবিধা পাই আমরা।’

Comments

The Daily Star  | English

Loan default now part of business model

Defaulting on loans is progressively becoming part of the business model to stay competitive, said Rehman Sobhan, chairman of the Centre for Policy Dialogue.

4h ago