ঢাকার রাস্তায় সাইকেল লেন

সহজে এক জায়গায় থেকে আরেক জায়গায় যাওয়ার জন্যে অথবা স্বাস্থ্য সচেতন ব্যক্তিদের অনেকে বাইসাইকেল ব্যবহার করে থাকেন। কিন্তু, ঢাকার রাস্তা সাইকেলচালকদের জন্যে কতোটা উপযোগী তা নিয়ে অনেকের মনে প্রশ্ন রয়েছে।
bicycle lane
ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে আগারগাঁওয়ে তৈরি করা হচ্ছে নয় কিলোমিটার বাইসাইকেল লেন। এটি আগামী মার্চে খুলে দেওয়া হবে। ছবি: স্টার

সহজে এক জায়গায় থেকে আরেক জায়গায় যাওয়ার জন্যে অথবা স্বাস্থ্য সচেতন ব্যক্তিদের অনেকে বাইসাইকেল ব্যবহার করে থাকেন। কিন্তু, ঢাকার রাস্তা সাইকেলচালকদের জন্যে কতোটা উপযোগী তা নিয়ে অনেকের মনে প্রশ্ন রয়েছে।

এমন পরিস্থিতিতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) আগারগাঁওয়ে নয় কিলোমিটার লেন করছে সাইকেলচালকদের জন্যে।

ভয়ানক যানজট, বেপরোয়া গাড়িচালক, মোটরসাইকেলের আধিক্য এবং অসচেতন পথচারীদের হাত থেকে নিজেদের রক্ষা করে ঢাকার ব্যস্ত সড়কে বাইসাইকেল চালানো অনেক কষ্টসাধ্য কাজ। পৃথিবীর অনেক শহরে শুধুমাত্র সাইকেলচালকদের জন্যে আলাদা লেন থাকলেও ঢাকার রাস্তায় এটি অনুপস্থিত।

সাইকেলচালকদের জন্যে আলাদা লেন হচ্ছে আগারগাওঁয়ে অবস্থিত ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উত্তরপ্রান্ত থেকে এলজিইডি সড়ক এবং বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন পর্যন্ত।

ডিএনসিসি কর্মকর্তারা জানান, নয় কিলোমিটার রাস্তার মধ্যে ২৮৫ মিটারের কাজ শেষ হয়েছে। মূল সড়কের দুই পাশে সাইকেলচালকদের জন্যে ছয় ফুট করে জায়গা রাখা হয়েছে।

গত ২৬ সেপ্টেম্বর সেই স্থান ঘুরে দেখেন মেয়র আতিকুল ইসলাম। বলেন, “ঢাকায় সাইকেলচালকদের জন্যে বিশেষ কোনো রাস্তা নেই। সম্ভবত এটিই ঢাকার প্রথম সাইকেল লেন। সাইকেলপ্রেমীদের জন্যে এটি সুখবর।”

তিনি আরো জানান, “আমরা বিভিন্ন জাতের গাছ লাগিয়েছি। আশা করছি, আগামী দুই বছরের মধ্যে গাছগুলো এই এলাকার সৌন্দর্য বাড়িয়ে দিবে।”

ডিএনসিসির অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী শরীফ উদ্দিন বলেন, “আন্তর্জাতিকমান বিবেচনায় রেখে সাইকেল লেনটি করা হয়েছে। আন্তর্জাতিকমান অনুযায়ী বাইসাইকেল লেন পাঁচ ফুটের হয়। কিন্তু, আমরা এখানে লেনটি ছয় ফুট রেখেছি।”

এর চেয়ে বেশি বড় রাখলে অন্যান্য গাড়ি সেই লেনে ঢুকে যেতে পারে বলেও মন্তব্য করেন শরীফ উদ্দিন। তিনি জানান, সাইকেল লেনটি আগামী মার্চে খুলে দেওয়া হবে। এছাড়াও, মানিক মিয়া অ্যাভিনিউয়ে এক কিলোমিটারের মতো সাইকেল লেন করা হচ্ছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

ডিএনসিসির এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছে সাইকেলচালকরা। বিডিসাইক্লিস্টের একজন প্রতিনিধি ফুয়াদ আহসান চৌধুরী বলেন, “আমরা সবসময়ই চেয়েছিলাম সরকার এমন একটি উদ্যোগ নিক। আমরা আনন্দিত যে ডিএনসিসি এমন কাজে হাত দিয়েছে।”

ডিএনসিসির কর্তাব্যক্তিদের ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি আশা করেন যে আগারগাঁওয়ের মতো ভবিষ্যতে বনানী থেকে উত্তরা পর্যন্ত একটি সাইকেল লেন তৈরি করতে সরকার সচেষ্ট হবে।

(ঈষৎ সংক্ষেপিত, পুরো প্রতিবেদনটি পড়তে এই Dhaka’s first bike lane in the offing লিংকে ক্লিক করুন)

Comments

The Daily Star  | English

7km tailback on Tangail side of Bangabandhu Bridge

Tk 3.80cr toll collected from the bridge in 24 hours

27m ago