১০০ বলের ক্রিকেটের নিলামে সাকিব

‘দ্য হান্ড্রেড’ বা ১০০ বলের ক্রিকেটের প্রথম আসরের পর্দা উঠতে যাচ্ছে আগামী ২০২০ সালে। ইংল্যান্ডের সাতটি শহরের আটটি দল অংশ নেবে এই প্রতিযোগিতায়। অভিষেক আসরের জন্য খেলোয়াড় নিলাম অনুষ্ঠিত হবে দুই ধাপে। মনোনীত খেলোয়াড়দের মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশের টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের নাম।
shakib al hasan
সাকিব আল হাসান। ফাইল ছবি: ফিরোজ আহমেদ

‘দ্য হান্ড্রেড’ বা ১০০ বলের ক্রিকেটের প্রথম আসরের পর্দা উঠতে যাচ্ছে আগামী ২০২০ সালে। ইংল্যান্ডের সাতটি শহরের আটটি দল অংশ নেবে এই প্রতিযোগিতায়। অভিষেক আসরের জন্য খেলোয়াড় নিলাম অনুষ্ঠিত হবে দুই ধাপে। নিলামের জন্য মনোনীত খেলোয়াড়দের মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশের টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের নাম।

বার্মিংহাম, লিডস, সাউদাম্পটন, নটিংহ্যাম, ম্যানচেস্টার ও কার্ডিফের একটি করে দল এবং লন্ডনের দুটি দল খেলবে। প্রতিটি দলের স্কোয়াড হবে ১৫ সদস্যের। আগামী ৩ অক্টোবর হবে প্রথম ধাপের নিলাম। সেদিন সর্বোচ্চ তিনজন করে খেলোয়াড় দলে টানা যাবে। এরপর ২০ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে চূড়ান্ত নিলাম। বিবিসি স্পোর্টস ওয়েবসাইট সরাসরি সম্প্রচার করবে আয়োজনটি।

মঙ্গলবার (১ অক্টোবর) প্রকাশ করা হয়েছে নিলামের জন্য নিবন্ধিত খেলোয়াড়দের তালিকা। ইংল্যান্ডের তারকা ক্রিকেটারদের সবাইকে রাখা হচ্ছে নিলামে। বিদেশিদের মধ্যে টাইগার বাঁহাতি অলরাউন্ডার সাকিব ছাড়াও রয়েছেন সময়ের সেরা রথী-মহারথীরা। আছেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরে যাওয়া অভিজ্ঞ ক্রিকেটাররাও। পাকিস্তানের বাবর আজম-শহিদ আফ্রিদি, দক্ষিণ আফ্রিকার কুইন্টন ডি কক-ফ্যাফ দু প্লেসি, অস্ট্রেলিয়ার ডেভিড ওয়ার্নার-স্টিভ স্মিথ-অ্যারন ফিঞ্চ, নিউজিল্যান্ডের কেন উইলিয়ামসন, শ্রীলঙ্কার লাসিথ মালিঙ্গা, ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিস গেইল-কাইরন পোলার্ডদের নাম উঠবে নিলামে।

আগামী বছরের ১৬ জুলাই শুরু হয়ে ১৭ অগাস্ট শেষ হবে ১০০ বলের ক্রিকেটের আসর। প্রাথমিক পর্বে মোট ৩২টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। পয়েন্ট তালিকার সেরা তিনটি দল পরের রাউন্ডে নাম লেখাবে। এদের মধ্যে শীর্ষ দল সরাসরি চলে যাবে ফাইনালে। দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে থাকা দল ফাইনালে ওঠার জন্য নিজেদের মধ্যে লড়াই করবে।

উল্লেখ্য, ১০০ বলের ক্রিকেটে একজন বোলার সর্বোচ্চ ২০টি ডেলিভারি করতে পারবেন। বোলিং স্পেল হবে ৫ বা ১০ বলের। ১০ বলের স্পেলের ক্ষেত্রে মাঝপথে প্রান্ত বদল করতে পারবেন বোলাররা। থাকছে পাওয়ার প্লেও। ইনিংসের প্রথম ২৫ ডেলিভারিতে মাত্র দুজন খেলোয়াড় ৩০ গজের বাইরে থাকতে পারবেন। চমকপ্রদ ব্যাপার হলো, দুই ইনিংসের মাঝখানে থাকবে না কোনো বিরতি।

Comments