বাংলাদেশের অর্থনীতিকে এগিয়ে নিতে ভারতীয় ব্যবসায়ীরা বড় ভূমিকা রাখতে পারে: প্রধানমন্ত্রী

ভারতীয় বিনিয়োগকারীদের বাংলাদেশে শিল্প কারখানা স্থাপন এবং সেখানে উৎপাদিত পণ্য ভারত ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশসমূহের বিশাল বাজারে রপ্তানি করার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ছবি: ফাইল ফটো

ভারতীয় বিনিয়োগকারীদের বাংলাদেশে শিল্প কারখানা স্থাপন এবং সেখানে উৎপাদিত পণ্য ভারত ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশসমূহের বিশাল বাজারে রপ্তানি করার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

পূর্ব ও উত্তর-পূর্ব ভারত, চীন ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার মাঝে অবস্থিত বাংলাদেশ বৈশ্বিক ও ভারতীয় ব্যবসায়ীদের আকর্ষণের যোগ্যতা রাখে জানিয়ে তিনি বলেন, “আমরা একসাথে ব্যবসা ও বিনিয়োগ করতে চাই। দুদেশের উন্নত যোগাযোগের সুবিধা কাজে লাগিয়ে ভারতের বড় বড় বিনিয়োগকারীরা আমাদের দেশে শিল্প-কারখানা স্থাপন করতে পারে এবং ভারতের উত্তর-পূর্ব রাজ্য এবং দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের এশিয়ার দেশসমূহে উৎপাদিত পণ্য রপ্তানি করতে পারে।”

আজ (৪ অক্টোবর) ভারতের রাজধানী নতুনদিল্লিতে হোটেল আইটিসি মৌরিয়ায় আয়োজিত ভারত-বাংলাদেশ বিজনেস ফোরামের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এ আহ্বান জানান।

শেখ হাসিনা বলেন, ভৌগোলিক অবস্থানের কারণে এই উপ-অঞ্চলের অর্থনৈতিক কেন্দ্র হিসেবে ‘অপার সম্ভাবনা’ রয়েছে বাংলাদেশের। পূর্ব ও উত্তর-পূর্ব ভারত, চীন ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার মাঝে অবস্থিত বাংলাদেশ প্রায় চার বিলিয়ন মানুষের সমন্বিত বাজারের সংযোগকারী ভূখণ্ড হতে পারে।

বিশ্বের অধিকাংশ ক্রমবর্ধমান অর্থনীতির দেশ তাদের প্রতিবেশী দেশ থেকে প্রাথমিক ব্যবসা ও বিনিয়োগের প্রকল্প গ্রহণ করেছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, একইভাবে ভারতীয় ব্যবসায়ী নেতারা বাংলাদেশের অর্থনৈতিক সম্ভাবনাকে আরো এগিয়ে নিয়ে যেতে বড় ভূমিকা রাখতে পারে।

শেখ হাসিনা বলেন, “আমরা একসাথে সোনার বাংলা বা সোনার বাংলাদেশ গড়ে তুলতে পারি, যেমনটি আমাদের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন ছিলো।”

তিনি বলেন, ২০০৯ সালে তার সরকার দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে বাংলাদেশের বৈশ্বিক বিদেশি সরাসরি বিনিয়োগের (এফডিআই) ক্রমশ প্রবৃদ্ধি এদেশে বৈদেশিক বিনিয়োগের ক্রমবর্ধমান আস্থা প্রতিফলিত করে।

“বর্তমানে বৈদেশিক বিনিয়োগের আইনি সুরক্ষা, উদার আর্থিক প্রণোদনা, যন্ত্রপাতি আমদানিতে ছাড়, অবাধে প্রস্থান নীতি এবং পুরো লাভ ও মূলধন ফিরিয়ে নেওয়ার বিচারে দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশ সবচেয়ে উদার বিনিয়োগ ব্যবস্থা দিচ্ছে,” উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ ১০০ বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপন করছে। ইতিমধ্যে ১২টি অঞ্চলে কার্যক্রম চলমান রয়েছে। তিন দেশের বিনিয়োগকারীদের জন্য চারটি অঞ্চল সংরক্ষিত আছে।

সেই সঙ্গে প্রযুক্তি ও উদ্ভাবনী প্রতিষ্ঠানের জন্য বেশ কয়েকটি হাইটেক পার্ক প্রস্তুত রয়েছে বলে প্রধানমন্ত্রী উল্লেখ করেন।

ভারতীয় বিনিয়োগকারীদের জন্য মংলা, ভেড়ামারা ও মিরসরাইয়ে তিনটি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল দেওয়ার প্রস্তাব দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, “বাংলাদেশের এই তিনটি অর্থনৈতিক অঞ্চলে ভারতীয় বিনিয়োগকারীদের যথেষ্ট বিনিয়োগ আমাদের রপ্তানি ভিত্তিকে আরো প্রশস্ত করতে সহায়তা করবে।”

Comments

The Daily Star  | English

Consumers brace for price shocks

Consumers are bracing for multiple price shocks ahead of Ramadan that usually marks a period of high household spending.

7h ago