এবার ওয়ানডে মাতাতে চান আফিফ

দেশের ক্রিকেটে আফিফ হোসেনের আলোয় আসা টি-টোয়েন্টি দিয়ে। ২০১৬ সালে বিপিএলে বল হাতে ঝলক দেখিয়ে আলোচনায় এসেছিলেন। মূলত ব্যাট হাতে পটু আফিফ জাতীয় দলের হয়ে আলোয় এলেন এইবছর। ত্রিদেশীয় সিরিজে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে কঠিন পরিস্থিতিতে দলকে জিতিয়ে চিনিয়েছেন জাত। জাতীয় লিগ খেলতে প্রস্তুতি নেওয়ার মধ্যেই এসেছে ‘এ’ দলের হয়ে শ্রীলঙ্কায় ওয়ানডে খেলার ডাক। ভারত সফরের আগে সেখানেও দেখা চান সামর্থ্যের প্রমাণ।
afif
আফিফ হোসেন। ফাইল ছবি: ফিরোজ আহমেদ

দেশের ক্রিকেটে আফিফ হোসেনের আলোয় আসা টি-টোয়েন্টি দিয়ে। ২০১৬ সালে বিপিএলে বল হাতে ঝলক দেখিয়ে আলোচনায় এসেছিলেন। মূলত ব্যাট হাতে পটু আফিফ জাতীয় দলের হয়ে আলোয় এলেন এইবছর। ত্রিদেশীয় সিরিজে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে কঠিন পরিস্থিতিতে দলকে জিতিয়ে চিনিয়েছেন জাত। জাতীয় লিগ খেলতে প্রস্তুতি নেওয়ার মধ্যেই এসেছে ‘এ’ দলের হয়ে শ্রীলঙ্কায় ওয়ানডে খেলার ডাক। ভারত সফরের আগে সেখানেও দেখা চান সামর্থ্যের প্রমাণ।

শ্রীলঙ্কা ‘এ’ দলের বিপক্ষে তিনটি একদিনের ম্যাচ খেলতে যাচ্ছেন আফিফসহ পাঁচজন। সিরিজটাকে আফিফ দেখছেন আগামীর পথচলার রসদ হিসেবে, ‘দুইদিন অনুশীলন ছিল। এর আগেও সবাই যার যার মতো অনুশীলন করেছে। আমরা যে পাঁচজন শ্রীলঙ্কায় যাচ্ছি, ওরা এই দুইদিন কাজে লাগিয়েছি। যাতে ভালো খেলা যায় ওই চেষ্টা করব।   প্রতিপক্ষ ভালো থাকে 'এ' দলে বা এইচপি দলে। তো ওখানে যদি ভালো খেলতে পারি তাহলে আত্মবিশ্বাস বাড়ে।’

‘লক্ষ্য হচ্ছে ওখানে যে তিনটা ম্যাচ আছে আমাদের তিনটা ম্যাচেই যেন আমরা জিতি। ভালো খেলার চেষ্টা করব। আর দলের লক্ষ্য হচ্ছে, যেন দলের জন্য ভালো করতে পারি।’

সীমিত ওভারের ক্রিকেটেই বিবেচিত হন তিনি। দীর্ঘ পরিসরের ক্রিকেটে এখনো সেভাবে নজর কাড়তে পারেননি। গত জাতীয় লিগে পাঁচ ম্যাচে করেছিলেন ১৪৩ রান, অফ স্পিনে পেয়েছিলেন ৯ উইকেট। সীমিত ওভারে আলো ছড়ালেও কোন একটা ফরম্যাটে নিজেকে আটকে রাখতে চান না তিনি,  ‘কোন ফরম্যাটের জন্য নিজেকে ভালো প্রমাণ করতে পারব সেটা আমি বলতে পারব না। কিন্তু যেখানেই আমার সুযোগ আসবে সেখানেই আমি আমার সেরাটা দেয়ার চেষ্টা করব।’

শ্রীলঙ্কা  ‘এ’ দলের বিপক্ষে ৯   ও ১০ অক্টোবর হাম্বানটুটায় প্রথম দুই ওয়ানডে খেলবে বাংলাদেশ ‘এ’ দল। ১২ অক্টোবর কলম্বোতে হবে দু’দলের শেষ ওয়ানডে। 

Comments