ফেবারিটরাই সবসময় জয় পায় না: জেমি ডে

২০২২ ফুটবল বিশ্বকাপের বাছাই পর্বের নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে আগামীকাল (৯ অক্টোবর) মাঠে নামছে বাংলাদেশ। প্রতিপক্ষে বিশ্বকাপের স্বাগতিক দেশ কাতার। বর্তমান এশিয়ান চ্যাম্পিয়ন দলও তারা। শক্তি, সামর্থ্য ও র‍্যাংকিং সব দিক থেকেই বাংলাদেশের চেয়ে অনেক এগিয়ে তারা। ম্যাচের পরিষ্কার ফেবারিট। কিন্তু মাঠে সবসময় যে ফেবারিট দল জয় পায় না, তা মনে করিয়ে দিলেন বাংলাদেশ দলের কোচ জেমি ডে।
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

২০২২ ফুটবল বিশ্বকাপের বাছাই পর্বের নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে আগামীকাল (৯ অক্টোবর) মাঠে নামছে বাংলাদেশ। প্রতিপক্ষে বিশ্বকাপের স্বাগতিক দেশ কাতার। বর্তমান এশিয়ান চ্যাম্পিয়ন দলও তারা। শক্তি, সামর্থ্য ও র‍্যাংকিং সব দিক থেকেই বাংলাদেশের চেয়ে অনেক এগিয়ে তারা। ম্যাচের পরিষ্কার ফেবারিট। কিন্তু মাঠে সবসময় যে ফেবারিট দল জয় পায় না, তা মনে করিয়ে দিলেন বাংলাদেশ দলের কোচ জেমি ডে।

বাংলাদেশের কোচ হিসেবে জেমি বরাবরই আত্মবিশ্বাস রেখে কথা বলেন। কিন্তু বাস্তবতাটাও জানেন এ ইংলিশ। জানেন কাতারের শক্তি সামর্থ্যের কথা, ‘বাস্তবতা হচ্ছে যদি আমি কাতারের কোচ হতাম অবশ্যই জিততে চাইতাম। বিশ্বকাপের স্বাগতিক দেশ, দলে অনেক ভালো খেলোয়াড় রয়েছে, ভালো সুবিধা রয়েছে। তারা আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল, ইংল্যান্ডের মতো দলের বিপক্ষে খেলে প্রস্তুতি নিয়েছি। বাস্তবতা হচ্ছে বাংলাদেশকে তাদের হারানো উচিৎ।’

কিন্তু ফেবারিটদের হারার রেকর্ড অবশ্য ফুটবল ইতিহাসে রয়েছে ভুরিভুরি। নিজেদের রক্ষণ জমাটবদ্ধ রেখে পাল্টা আক্রমণে গোল আদায় করে নেওয়াটা নতুন কিছু নয়। জেমি ডেও ভাবছেন এমন কিছুই, ‘আমার কথা হচ্ছে, ফুটবলে অনেক বিস্ময়কর ফলাফল হয়। সবসময় ফলাফল শক্তিশালী দলের পক্ষে যায় না। আমরা যদি খুব ভালো খেলি… কাতারকে হারাতে হলে সাম্প্রতিক সময়ে যা খেলছি তার চেয়েও ভালো খেলতে হবে। যদিও এটা খুব কঠিন। কিন্তু আমরা ম্যাচের দিকে তাকিয়ে আছি।’

আর জেমির কথার প্রমাণ পেতে খুব দূরেও যেতে হয় না। কাতার অনূর্ধ্ব-২৩ দলকে গত বছরই জাকার্তা এশিয়ান গেমসে ১-০ গোলে হারিয়েছিল বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ দল। সে ম্যাচেও পরিষ্কার এগিয়ে ছিল কাতারই। সে ম্যাচের কোচও ছিলেন জেমি। তাই অনুপ্রেরণাটা সেখান থেকেই পেতে পারেন এ কোচ।

তবে এর জন্য ভাগ্যকেও সঙ্গে চান জেমি, ‘প্রস্তুতি খুব ভালো নিয়েছি, কীভাবে কাতারকে আটকানো যায় এ নিয়ে আমরা কাজ করেছি। তাদের দুর্বলতা খুঁজে বের করার চেষ্টা করেছি। সব দলই জিততে চায়, আমরাও জেতার জন্যই খেলব। কাতারও জিততে চাইবে। আমার ছেলেরা যদি তাদের সেরাটা দিতে পারে, নিজেদের সামর্থ্য অনুযায়ী খেলতে পারে… যদি ভাগ্য আমাদের সঙ্গে থাকে, তাহলে আপনি বলতে পারবেন না কি হবে…।‘

আর কাতারকে শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ফেলতে প্রস্তুতিটাও ভালো নিয়েছে বাংলাদেশ। ভুটানের বিপক্ষে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচে সহজ জয় তুলে নিয়েছে তারা। তাই বাড়তি আত্মবিশ্বাস নিয়ে মাঠে নামছে স্বাগতিকরা। জেমির ভাষায়, ‘ভুটানের বিপক্ষে দুটি জয়ে আমাদের প্রস্তুতিটাও ভালো হয়েছে। সেখান থেকে আমরা আত্মবিশ্বাস পেয়েছি। আমরা জানি ভালো ফলাফলের জন্য আমাদের সেরাটা খেলতে হবে। তারা (কাতার) দুর্দান্ত একটি দল, ভালো অনেক খেলোয়াড় রয়েছে। এশিয়ান চ্যাম্পিয়নও তারা। এ ম্যাচের জন্য আমরা মুখিয়ে আছি, তবে এটা খুব কঠিন হবে।’

Comments

The Daily Star  | English

Lucky’s sources of income, wealth don’t add up

Laila Kaniz Lucky is the upazila parishad chairman from Raypura upazila of Narshingdi and a retired teacher of a government college.

2h ago