মেসি-রোনালদো নয়, মরিনহোর চোখে সেরা দ্য ফেনমেনন

রিয়াল মাদ্রিদের কোচ থাকাকালে শিষ্য হিসেবে পেয়েছেন সময়ের অন্যতম সেরা ফুটবলার ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোকে। রিয়ালকে কোচিং করানোর সময়ে লা লিগায় ক্লাবটির চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনার জার্সিতে মাঠ মাতাতে দেখেছেন সময়ের আরেক সেরা তারকা লিওনেল মেসিকে। ফলে দুজনের প্রতিভা, সামর্থ্য ও দক্ষতা খুব কাছ থেকে বিশ্লেষণ করতে পেরেছেন তিনি। তারপরও হোসে মরিনহোর দৃষ্টিতে রোনালদো কিংবা মেসি সেরা নন।
ronaldo nazario
বার্সেলোনার জার্সিতে দ্য ফেনোমেনন রোনালদো। ছবি: এএফপি

রিয়াল মাদ্রিদের কোচ থাকাকালে শিষ্য হিসেবে পেয়েছেন সময়ের অন্যতম সেরা ফুটবলার ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোকে। রিয়ালকে কোচিং করানোর সময়ে লা লিগায় ক্লাবটির চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনার জার্সিতে মাঠ মাতাতে দেখেছেন সময়ের আরেক সেরা তারকা লিওনেল মেসিকে। ফলে দুজনের প্রতিভা, সামর্থ্য ও দক্ষতা খুব কাছ থেকে বিশ্লেষণ করতে পেরেছেন তিনি। তারপরও হোসে মরিনহোর দৃষ্টিতে রোনালদো কিংবা মেসি সেরা নন। জীবদ্দশায় যাদের খেলা দেখেছেন, তাদের মধ্য থেকে ব্রাজিলের সাবেক স্ট্রাইকার, দ্য ফেনোমেনন খ্যাত রোনালদোকে সবচেয়ে এগিয়ে রাখছেন তিনি।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম লাইভস্কোরকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে মরিনহো বলেন, ‘তুলনামূলকভাবে রোনালদো (দ্য ফেনোমেনন), ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো ও লিও মেসির ক্যারিয়ার বেশ দীর্ঘ। তারা ১৫ বছর ধরে প্রতিদিন একেবারে শীর্ষে অবস্থান করেছে।’

‘তবে যদি প্রতিভা ও দক্ষতাকে যথাযথভাবে বিবেচনায় নেওয়া হয়, তাহলে রোনালদোকে (দ্য ফেনোমেনন) কেউ অতিক্রম করতে পারবে না।’

১৯৯৬-৯৭ মৌসুমের শুরুতে নেদারল্যান্ডসের ক্লাব পিএসভি আইন্দহোভেন থেকে বার্সেলোনায় নাম লিখিয়েছিলেন ১৯ বছর বয়সী রোনালদো লুইস নাজারিও দে লিমা (ব্রাজিলের বিশ্বকাপ জয়ী তারকার পুরো নাম)। ওই মৌসুমেই কাতালানদের কোচের দায়িত্ব বুঝে নিয়েছিলেন প্রয়াত ইংলিশ ফুটবলার ববি রবসন। তার কোচিং স্টাফদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন পর্তুগিজ মরিনহো। সেসময়ের স্মৃতিচারণ করে তিনি বলেন, ‘যখন ববি রবসনের অধীনে সে বার্সেলোনায় খেলেছে, তখন আমি বুঝতে পেরেছিলাম যে, যাদেরকে আমি মাঠে খেলতে দেখেছি, তাদের মধ্যে সে-ই সেরা।’

‘চোট সমস্যা না থাকলে তার ক্যারিয়ার আরও দুর্দান্ত হতে পারত। তবে মাত্র ১৯ বছর বয়সে তার যে প্রতিভা ছিল, সেটা এক কথায় অবিশ্বাস্য।’

Comments

The Daily Star  | English

Cattle prices still high

With only a day left before Eid-ul-Azha, the number of buyers was still low, despite a large supply of bulls

57m ago