আরও একটি টেস্ট সহজে জেতার কাছাকাছি ভারত

১৬২ রানে অষ্টম ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হয়ে গিয়েছিলেন অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসি। দুশো পর্যন্ত যাওয়াই তখনই প্রায় দুঃসাধ্য ব্যাপার। কিন্তু নবম উইকেটে ভারনন ফিল্যান্ডার আর কেসব মহারাজ দেখালেন চোয়ালবদ্ধ দৃঢ়তা। তাতে রান এল, জুটি বড় হলো কিন্তু ঠেকানো গেল না ফলোঅন। বিশাল লিড নিশ্চিত করা ভারত এখন ছড়ি ঘুরিয়ে অপেক্ষায় আছে আরেকটি টেস্ট জেতার। বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপেও সর্বোচ্চ পয়েন্টকে আরও চূড়ায় তোলার সামনে বিরাট কোহলির দল।
India
Photo: AFP

১৬২ রানে অষ্টম ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হয়ে গিয়েছিলেন অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসি। দুশো পর্যন্ত যাওয়াই তখনই প্রায় দুঃসাধ্য ব্যাপার। কিন্তু নবম উইকেটে ভারনন ফিল্যান্ডার আর কেসব মহারাজ দেখালেন চোয়ালবদ্ধ দৃঢ়তা। তাতে রান এল, জুটি বড় হলো কিন্তু ঠেকানো গেল না ফলোঅন। বিশাল লিড নিশ্চিত করা ভারত এখন ছড়ি ঘুরিয়ে অপেক্ষায় আছে আরেকটি টেস্ট জেতার। বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপেও সর্বোচ্চ পয়েন্টকে আরও চূড়ায় তোলার সামনে বিরাট কোহলির দল।

পুনে টেস্টে ভারতের ৬০১ রানের জবাবে দক্ষিণ আফ্রিকা গুটিয়ে গেছে ২৭৫ রানে। এতে ৩২৬ রানের লিড পেয়েছে ভারত। চতুর্থ দিনে ফলোঅনে পড়া দক্ষিণ আফ্রিকাকে আবার ব্যাট করতে পাঠানোর সুযোগ আছে ভারতের।

দ্বিতীয় দিনেই ৩৬ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বসেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। চতুর্থ দিনের সকালে তারা পড়ে আরও ভয়াবহ পরিস্থিতিতে। নাইটওয়াসম্যান আনরিক নরকিয়া নেমেই ফিরে যান। টিউনিস ডি ব্রুইন খানিক পরই তার পথ ধরেন। ৫৩ রানেই নেন ৫ উইকেট। অধিনায়ক ডু প্লেসি আর কুইন্টেন ডি কক মিলে সে সংকট সামাল দেন ৫৩ রানের জুটিতে। ৪৮ বলে ৩১ করা ডি কককে ফিরিয়ে প্রতিরোধ ভাঙেন রবীচন্দ্র অশ্বিন।

দিনের সেরা বোলার এরপর নিয়েছেন আরও তিন উইকেট। তারমধ্যে সবচেয়ে দামি ডু প্লেসির উইকেট। ১১৭ বলে ৬৪ করা প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান অশ্বিনের বলে আজিঙ্কা রাহানেকে ক্যাচ দিয়ে ফেরত যান। 

টপাটপ উইকেট হারিয়ে বিপর্যস্ত সফরকারীরা ছিল দুশোর নিচে গুটিয়ে যাওয়ার অবস্থায়। নয়ে নামা ফিল্যান্ডার আর দশে নামা মহারাজ তখনই গড়েন প্রতিরোধের দেয়াল। নবম উইকেট জুটিতে দুজনে আনেন ১০৯ রান। ১৩২ বলে ১২ চারে ৭২ করা মহারাজও ফেরেন অশ্বিনের অফ স্পিনে।

এরপর কাগিসো রাবাদা এসে দ্রুত আউট হয়ে গেলে ফিল্যান্ডার অপরাজিত থেকে যান ৪৪ রান করে।

Comments

The Daily Star  | English

Cattle sales yet to gain momentum

Till this evening, a number of sacrificial animals, especially bulls, were present at all 16 cattle markets in Dhaka, but customer turnout was notably low until 5:00pm

47m ago