জাতীয় লিগের ম্যাচ থেকে সাব্বির, নাঈম, মিরাজদের জরুরী তলব

স্পিন বোলিং পরামর্শক ড্যানিয়েল ভেট্টোরি পরখ করবেন বলে তাই তিন স্পিনার। আর দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে হবে তাই আরও ছয়জন ক্রিকেটারকে জাতীয় লিগে খেলার মাঝে থেকেই ঢাকায় জরুরী তলব করা হয়েছে।
Nazmul Hasan & Daniel Vettori
স্পিন বোলিং পরামর্শক ড্যানিয়েল ভেট্টোরির সঙ্গে পরিচিত হচ্ছেন বোর্ড প্রধান নাজমুল হোসেন। ছবি: ফিরোজ আহমেদ

স্পিন বোলিং পরামর্শক ড্যানিয়েল ভেট্টোরি পরখ করবেন বলে তাই তিন স্পিনার। আর দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে হবে তাই আরও ছয়জন ক্রিকেটারকে জাতীয় লিগে খেলার মাঝে থেকেই ঢাকায় জরুরী তলব করা হয়েছে।

জাতীয় লিগের ম্যাচ ফেলে রোববার জাতীয় দলের ক্যাম্পে যোগ দিতে ঢাকায় আসছেন নয়জন ক্রিকেটার। তারা হলেন  সাব্বির রহমান (রাজশাহী বিভাগ), মোহাম্মদ মিঠুন (খুলনা বিভাগ), নাজমুল হোসেন শান্ত (রাজশাহী), ইবাদত হোসেন (সিলেট বিভাগ), নাঈম হাসান (চট্টগ্রাম), ইয়াসির রাব্বি (চট্টগ্রাম) , আবু হায়দার (ঢাকা মেট্রো), রিশাদ হোসেন (রংপুর), মেহেদী হাসান মিরাজ (খুলনা)।

মিঠুন, সাব্বির, মিরাজ, শান্ত আর রিশাদ ম্যাচ ফেলে আসবেন কক্সবাজার থেকে। আবু হায়দার রনি আসবেন বগুড়া থেকে। রাজশাহীর ভেন্যু থেকে আসবেন ইয়াসির রাব্বি, নাঈম হাসান আর ইবাদত হোসেন। 

শনিবার বিকেলে মিরপুরে এসেই অনুশীলনের মাঝে মাঠে ঢুকেন বোর্ড প্রধান নাজমুল হাসান। লেগ স্পিনার আমিনুল ইসলাম বিপ্লবকে নিয়ে অনুশীলন চালিয়ে যাওয়া ড্যানিয়েল ভেট্টোরির সঙ্গে পরিচিত হন শুরুতেই। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নুও। আলাদাভাবে কথাও বলেন তারা।

পরে ভেট্টোরিকে নিয়ে ইনডোরে গিয়ে আধাঘণ্টারও বেশি সময় বৈঠক করে বিসিবি প্রধান। ফিরে এসে ভেট্টোরির পরখ করে দেখার জন্য ক্যাম্পে পর্যাপ্ত স্পিনার না থাকার আক্ষেপও প্রকাশ করেন তিনি,  ‘আজ আসার একটা কারণ ছিল ভেট্টোরির সঙ্গে দেখা করা। কাল পরশু দুটো প্রস্তুতি ম্যাচ আছে আমাদের। এখন সমস্যা হলো এই মুহূর্তে এখানে স্পিনাররা নাই। অথচ দল যাচ্ছে ভারতের মতো শক্তিশালী দলের বিপক্ষে খেলতে। কিন্তু এখন ও তো দেখার সুযোগ পাচ্ছে না স্পিনারদের। উদাহরণ হিসেবে যদি বলি মেহেদী হাসান মিরাজ আছে, তাইজুল আছে, তারপর নতুনদের মধ্যে রিশাদ আছে, নাঈম আছে। এছাড়াও আফ্রিদি আছে। আমাদের অনেক স্পিনার আছে। যেহেতু ওরা নেই কাজেই কোচের তো বিকল্প নেই এখানে। এখন আমার জানা মতে দুটো স্পিনার (সাকিব ছাড়া) আছে আরাফাত সানি আর বিপ্লব। কিন্তু টেস্টের জন্য স্পিনার লাগবে। তাদেরকেও যদি ভেট্টোরি দেখতে পারত, তাহলে আমার মনে হয় ভাল হত।’

এদিনই বোর্ড প্রধান ঠিক করেন জাতীয় লিগ থেকে কয়েকজনকে উড়িয়ে আনার, ‘আমরা ঠিক করেছি কয়েকজনকে আনব।  যদিও খেলা শুরু হয়ে গেছে প্রথম শ্রেণীর। দুটো ম্যাচ শুরু হয়নি, সেখান থেকে একজন করে আনা যাবে। আর অন্য ম্যাচ থেকেও  কালকের ম্যাচের জন্য কিছু খেলোয়াড় আমাদের ডাকতে হচ্ছে।’

এবার জাতীয় লিগকে আলাদা গুরুত্ব দিচ্ছিল বিসিবি। কিন্তু জাতীয় দলের দুটো প্রস্তুতি ম্যাচের জন্য প্রথম শ্রেণীর ম্যাচ খেলার মাঝ থেকে নিয়ে আসা হচ্ছে মিঠুন, সাব্বির, মিরাজ, শান্ত ও রিশাদকে। এরমধ্যে প্রথম দিনে পাঁচ উইকেট নেন রিশাদ। মিঠুন, সাব্বির ও শান্ত নিজ নিজ দলের হয়ে ব্যাট করেছেন। খুলনার হয়ে মিরাজ প্রথম দিন শেষে ৩০ রানে অপরাজিতও ছিলেন।  এরা ছাড়া বাকি চারজনের ম্যাচ শুরু না হওয়ায় তাদের নিজ নিজ দল খেলার মাঝপথে বিপদে পড়ছে না।

Comments

The Daily Star  | English

Why was Abu Sayed shot dead in cold blood?

Why was Abu Sayed of Rangpur's Begum Rokeya University shot down by police? He was standing alone, totally unarmed with arms stretched out, holding no weapons but a stick

41m ago