দ্বিতীয় ইনিংসেও সেঞ্চুরি করলেন বিজয়

ধারাবাহিকতা বজায় রেখে ঢাকা বিভাগের বিপক্ষে দ্বিতীয় ইনিংসেও সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন এনামুল হক বিজয়। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ২০তম শতক হাঁকিয়ে খুলনা বিভাগের ওপেনিং ব্যাটসম্যান অপরাজিত থেকেছেন ১৫১ রানে।
Anamul Haque
ফাইল ছবি

জোড়া সেঞ্চুরি করেছেন এনামুল হক বিজয়। ধারাবাহিকতা বজায় রেখে ঢাকা বিভাগের বিপক্ষে দ্বিতীয় ইনিংসেও সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন তিনি। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ২০তম শতক হাঁকিয়ে খুলনা বিভাগের ওপেনিং ব্যাটসম্যান অপরাজিত থেকেছেন ১৫১ রানে।

মঙ্গলবার (২৯ অক্টোবর) জাতীয় লিগের তৃতীয় রাউন্ডের চতুর্থ ও শেষ দিনে ফের আলো ছড়িয়েছেন বিজয়। বাংলাদেশ জাতীয় দলের বাইরে থাকা এই ক্রিকেটারের ব্যাটে চড়ে ৩ উইকেটে ৩০১ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করেছে খুলনা। তাতে জয়ের জন্য ঢাকা বিভাগ পেয়েছে ৩৫৭ রানের বড় লক্ষ্য।

কক্সবাজারের শেখ কামাল আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে আগের দিনের ২ উইকেটে ১৪৫ রান নিয়ে খেলতে নেমেছিল খুলনা। দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান বিজয় ৬১ ও তুষার ইমরান ১৬ রান নিয়ে খেলা শুরু করেছিলেন।

অভিজ্ঞ তুষার বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি। ৬১ বলে ২১ রান করে বাঁহাতি স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপুর বলে বিদায় নেন তিনি। এরপর চতুর্থ উইকেটে নুরুল হাসান সোহানের সঙ্গে অবিচ্ছিন্ন ১৪০ রানের জুটি গড়েন বিজয়।

২০১ বলে সেঞ্চুরি পূরণ করার পর আগ্রাসী হয়ে ওঠেন বিজয়। ব্যাটিং করেন টি-টোয়েন্টি ঢঙে। একশো থেকে দেড়শোতে পৌঁছাতে তিনি খেলেন মাত্র ২৪ বল। এসময় ৫টি ছয় মারেন তিনি। তার মাইলফলক স্পর্শ করার পরপরই ইনিংস ঘোষণা করেন খুলনার দলনেতা আব্দুর রাজ্জাক।

২২৫ বলে ১৫১ রানের ইনিংসে ৯টি চার ও ৮টি ছয় হাঁকান বিজয়। উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান সোহানও তুলে নেন হাফসেঞ্চুরি। তিনি অপরাজিত থাকেন ৮২ বলে ৬১ রানে। তার ব্যাট থেকে আসে ১ চার ও ৪ ছক্কা।

এর আগে খুলনার প্রথম ইনিংসে ১২৬ রান করেছিলেন বিজয়। ২২৪ বলে মোকাবিলা করে ১০ চার ও ৫ ছয় মেরেছিলেন তিনি। তার কল্যাণে খুলনা তুলেছিল ৩৭১ রান। জবাবে ঢাকা বিভাগ প্রথম ইনিংসে থেমেছিল ৩১৬ রানে।

Comments

The Daily Star  | English

Desire for mobile data trumps all else

As one strolls along Green Road or ventures into the depths of Karwan Bazar, he or she may come across a raucous circle formed by labourers, rickshaw-pullers, and street vendors.

14h ago