‘ওরা বলেছে দক্ষিণ আফ্রিকার চেয়ে আমরা ভাল করব’

বাণিজ্যিকভাবে সফল নয় বলে এতদিন বাংলাদেশকে তাদের মাঠে আমন্ত্রণ জানাতে অনীহা ছিল ভারতের। কিন্তু টি-টোয়েন্টি সিরিজের জম্পেশ লড়াইয়ের পর সেই ভাবনায় নাকি এসেছে বড় বদল। ঘরের মাঠে ভারত যাদের বিপক্ষে নিয়মিত খেলে সেসব প্রতিপক্ষের চেয়ে বাংলাদেশ প্রতিদ্বন্দিতাপূর্ণ ক্রিকেট উপহার দিয়েছে। বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান জানান, ভারত মনে করছে দক্ষিণ আফ্রিকার চেয়ে ভারতের মাঠে এগিয়ে বাংলাদেশই। টেস্ট সিরিজেও প্রোটিয়াদের চেয়ে বাংলাদেশই ভাল করবে।
Nazmul Hasan
ফাইল ছবি

বাণিজ্যিকভাবে সফল নয় বলে এতদিন বাংলাদেশকে তাদের মাঠে আমন্ত্রণ জানাতে অনীহা ছিল ভারতের। কিন্তু টি-টোয়েন্টি সিরিজের জম্পেশ লড়াইয়ের পর সেই ভাবনায় নাকি এসেছে বড় বদল। ঘরের মাঠে ভারত যাদের বিপক্ষে নিয়মিত খেলে সেসব প্রতিপক্ষের চেয়ে বাংলাদেশ প্রতিদ্বন্দিতাপূর্ণ ক্রিকেট উপহার দিয়েছে। বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান জানান, ভারত মনে করছে দক্ষিণ আফ্রিকার চেয়ে ভারতের মাঠে এগিয়ে বাংলাদেশই। টেস্ট সিরিজেও প্রোটিয়াদের চেয়ে বাংলাদেশই ভাল করবে।

মহারাষ্ট্রের নাগপুরে টি-টোয়েন্টি সিরিজের শেষ ম্যাচ খেলে পরদিনই মধ্যপ্রদেশের শহর ইন্দোরে চলে এসেছে বাংলাদেশ দল। এখানে বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হবে দুই দলের সিরিজের প্রথম টেস্ট। যা আবার বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপেরও অংশ।

দিল্লিতে প্রথম ম্যাচ আর নাগপুরে শেষ ম্যাচ মাঠে বসে দেখেছেন বিসিবি প্রধান। একটা বাংলাদেশ জিতেছে দাপট দেখিয়ে, আরেকটাতে জিততে জিততেই হেরেছে শেষ দিকে। সিরিজ হারলেও দলের পারফরম্যান্সে নাকি ভারতে এসে বুক ফুলাতে পারছেন নাজমুল। ভারতের কর্তাদের কাছ থেকে পেয়েছেন উচ্ছ্বসিত প্রংশসা, ‘ভারতের বিপক্ষে সিরিজ এর আগে পাইনি তো, অনেক চেষ্টা করেছি। আমার আগে যারা ছিলেন (বিসিবিতে) তারাও চেষ্টা করেছেন। আজকে ভারতের যত জনের সাথে বসেছি তারাও কল্পনা করেননি বাংলাদেশের সঙ্গে এত প্রতিদ্বদ্ধীতাপূর্ণ একটা সিরিজ হবে। আপনারা দেখেন, ভারত অনেক শক্তিশালী তারপরও ওরা এটা মনে করে এসেছে যে একটা শক্তিশালী লড়াই হবে। এবং সেই রকমই একটা খেলা আমরা খেলতে পেরেছি। যদিও আমি সব সময় মনে করেছিলাম এই ম্যাচটা আমরা জিতে যাব।’

টি-টোয়েন্টি সিরিজ শেষে মাঝে পাওয়া গেছে দু’দিন সময়। তারপরই শুরু দীর্ঘ পরিসরের ক্রিকেট। প্রথম টেস্ট শেষ হওয়ার তিন দিনের মধ্যে শুরু দ্বিতীয় টেস্ট, যেটি আবার হবে গোলাপী বলে। মাঝের এই সময়ের মধ্যে ভারতের এক রাজ্য থেকে আরেক রাজ্যে ভ্রমণও আছে। টেস্টের মতো কঠিন সংস্করণের জন্য এটা প্রস্তুত হতে সময়টা কি যথেষ্ট পাচ্ছে বাংলাদেশ? উঠেছে এমন প্রশ্ন।

টেস্টের আগে অন্তত একটি প্রস্তুতি ম্যাচ হলে ভালো হতো বলে জানিয়েছিলেন কোচ রাসেল ডমিঙ্গোও। তবে বোর্ড প্রধান জানালেন, প্রস্তুতি ঘাটতি দু’দলের জন্যই সমান। প্রস্তুতি কম হলেও বাংলাদেশ দক্ষিণ আফ্রিকানদের চেয়ে ভালো করবে বলে ভারতীয়দের কাছ থেকেই সম্ভাবনার কথা শুনেছেন তিনি, ‘আমরা তো গোলাপী বলে খেলিই নাই। ভারতও খেলে নাই। আমাদের যদি ফরম্যাট দেখেন, ওডিআইতে আমরা মোটামুটি ভাল, খুব ভাল কিছু না কিন্তু টি-টোয়েন্টিতে আমরা দুর্বল। আর টেস্টে সবচেয়ে বেশি দুর্বল। সেখানে ভারেতের মতো শক্তিশালী দলের বিপক্ষে ভারতে এসে খেলা কম কিছু না। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষেও ভারতের টেস্ট তিন দিনে শেষ হয়ে যায়। পি

গোলাপী বল আমাদের জন্য কঠিন। এর আগে আমরা খেলিনি। ওরাও খেলেনি। দেখা যাক কী হয়। তবে আমি বলব, ওরাও বলছে দক্ষিণ আফ্রিকার চেয়ে আমরা ভাল খেলব। এখন আমরা যদি সেটা রাখতে পারি, দক্ষিণ আফ্রিকার চেয়ে ভাল খেলতে পারি সেটাই হবে আমাদের সবচেয়ে বড় পাওয়া।’

Comments

The Daily Star  | English

Sajek accident: Death toll rises to 9

The death toll in the truck accident in Rangamati's Sajek increased to nine tonight

4h ago