রাজনৈতিক কারণে কোচের দায়িত্ব ছাড়লেন ম্যারাডোনা

দায়িত্ব নেওয়ার আগেই জানিয়েছিলেন হিমনাসিয়ার প্রেসিডেন্ট গ্যাব্রিয়েল পেল্লেগ্রিনো থাকলেই কোচ হিসেবে থাকবেন আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি দিয়াগো ম্যারাডোনা। কিন্তু নির্বাচনের আগেই মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন পেল্লেগ্রিনি। তাই সরে দাঁড়ালেন ম্যারাডোনাও। দায়িত্ব নেওয়ার মাত্র তিন মাসের মধ্যেই আর্জেন্টিনার প্রথম বিভাগের ক্লাবটির কোচের পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন এ কিংবদন্তি।
ছবি: রয়টার্স (ফাইল)

দায়িত্ব নেওয়ার আগেই জানিয়েছিলেন হিমনাসিয়ার প্রেসিডেন্ট গ্যাব্রিয়েল পেল্লেগ্রিনো থাকলেই কোচ হিসেবে থাকবেন আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি দিয়াগো ম্যারাডোনা। কিন্তু নির্বাচনের আগেই মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন পেল্লেগ্রিনি। তাই সরে দাঁড়ালেন ম্যারাডোনাও। দায়িত্ব নেওয়ার মাত্র তিন মাসের মধ্যেই আর্জেন্টিনার প্রথম বিভাগের ক্লাবটির কোচের পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন এ কিংবদন্তি।

আর্জেন্টিনা জাতীয় দলের দায়িত্ব পালনের পর এবারই প্রথম নিজ দেশে কোচের দায়িত্ব নিয়েছিলেন ম্যারাডোনা। তিনি কোচ হয়ে আসার মুহূর্তে লিগে পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে ছিল হিমনাসিয়া। রাজধানীর পাশের এ ক্লাবটি কেবল রেলিগেশন ঠেকাতেই তাকে দায়িত্ব দিয়েছিলেন। এরপর তার অধীনে আট ম্যাচের তিনটিতে জয় পায় দলটি। উঠে আসে পয়েন্ট টেবিলের ২২ নম্বরে অবস্থানে। যদিও শুরুর তিন ম্যাচই হেরেছিলেন তিনি।

আর কোচের পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর পর ম্যারাডোনার দায়িত্ববোধ নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। কারণ এখন পর্যন্ত ছয়টি ক্লাবের দায়িত্ব নিয়ে সর্বোচ্চ এক বছরের বেশি টিকতে পেরেছেন তিনি। ২০১১-১২ মৌসুমে আরব আমিরাতের আল ওয়াসেলের কোচ হিসেবে ১৪ মাস টিকেছিলেন বিশ্বকাপ জয়ী এ কিংবদন্তি। 

হিমনাসিয়ার যোগ দেওয়ার আগে মেক্সিকোর দ্বিতীয় স্তরের ক্লাব দোরাদোস দে সিনালোয়াকে ৯ মাস কোচিং করিয়েছিলেন। তবে তাদের শীর্ষ লিগে তুলে আনতে ব্যর্থ হন তিনি। কাঁধে ও হাঁটুতে অস্ত্রোপচার করানোর জন্য গত জুনে সে দলের দায়িত্ব ছাড়েন তিনি।

Comments

The Daily Star  | English