কেমন হতে পারে বাংলাদেশ-ভারতের একাদশ

কলকাতার ইডেন গার্ডেন্সে ঐতিহাসিক তকমা পাওয়া উপমহাদেশের প্রথম গোলাপি বলের দিবা-রাত্রির টেস্টে বড় নির্ণায়ক হতে পারেন পেসাররা। রাতে ফ্লাডলাইটের আলোয় ভয়ংকর হয়ে উঠতে পারে রিস্ট স্পিন। মাঠের খেলা শুরুর আগেই বিপুল উন্মাদনা তৈরি করা এই টেস্টে কেমন হতে পারে দুদলের একাদশ?

কলকাতার ইডেন গার্ডেন্সে ঐতিহাসিক তকমা পাওয়া উপমহাদেশের প্রথম গোলাপি বলের দিবা-রাত্রির টেস্টে বড় নির্ণায়ক হতে পারেন পেসাররা। রাতে ফ্লাডলাইটের আলোয় ভয়ংকর হয়ে উঠতে পারে রিস্ট স্পিন। মাঠের খেলা শুরুর আগেই বিপুল উন্মাদনা তৈরি করা এই টেস্টে কেমন হতে পারে দুদলের একাদশ?

বাংলাদেশ

বিকল্প ওপেনার সাইফ হাসান চোটের কারণে ছিটকে যাওয়ায় শুরুতেই একটি ধাক্কা খেয়েছে বাংলাদেশ। অধিনায়ক মুমিনুল হক আভাস দেন, চোট না থাকলে ওপেনিংয়ে সাদমান ইসলামের সঙ্গী হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে থাকতেন তিনিই। সেটা না হওয়ায় আরও একটি সুযোগ পেতে যাচ্ছেন ইমরুল কায়েস। সাদমানকে নিয়ে উপমহাদেশের প্রথম দিবা-রাত্রির টেস্টে বাংলাদেশের ইনিংস শুরু করার দায়িত্ব পড়ছে তার কাঁধেই।

অধিনায়ক মুমিনুল, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহদের জায়গা নিয়ে প্রশ্ন নেই। আগের টেস্টে চার নম্বরে ব্যাট করে হতাশ করা মোহাম্মদ মিঠুনের জায়গা নিয়ে আছে প্রশ্ন। কিন্তু দলে আর বিকল্প ব্যাটসম্যান না থাকায় এবারও দেখা যেতে পারে তাকে। তবে এবার আর চার নম্বরে নয়। ব্যাটিং অর্ডার বদল হয়ে নিচে নামতে পারেন তিনি।

সাত নম্বরে উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান লিটন দাস থাকছেন। বাকি চারটি জায়গা বরাদ্দ বোলারদের জন্য। গোলাপি বলে দিবা-রাত্রির টেস্ট বলেই ফিঙ্গার স্পিনারদের ভূমিকা সীমিত। বাংলাদেশ একাদশে অন্তত তিনজন পেসারের খেলা প্রায় নিশ্চিত। মেহেদী হাসান মিরাজ বা তাইজুল ইসলামের যে কোনো একজনকে দেখা যাবে বিশেষজ্ঞ স্পিনার হিসেবে। ব্যাটিং দক্ষতা আমলে নিলে এগিয়ে থাকবেন মিরাজই।

পেস আক্রমণে এই টেস্টে মোস্তাফিজুর রহমানের ফেরা প্রায় নিশ্চিত। তার সঙ্গে আগের ম্যাচে দারুণ করা আবু জায়েদ রাহি তো থাকছেনই। অন্য পেসারের জায়গায় এগিয়ে আছে আল-আমিন হোসেনের নাম। আগের টেস্টে নিষ্প্রভ থাকা ইবাদত নেটেও খুব আশা জাগাতে পারেননি। তাকে বাদ দিয়ে প্রায় পাঁচ বছর পর সুযোগ দেওয়া হতে পারে আল-আমিনকে।

বাংলাদেশের সম্ভাব্য একাদশ: সাদমান ইসলাম, ইমরুল কায়েস, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মোহাম্মদ মিঠুন, লিটন দাস, মেহেদী হাসান মিরাজ/তাইজুল ইসলাম, মোস্তাফিজুর রহমান, আল-আমিন হোসেন, আবু জায়েদ রাহি।

ভারত

ঘরের মাঠে ফর্মের তুঙ্গে থাকা ভারতীয় দলে নেই চোট সমস্যা। সময়ের সেরা অবস্থায় থেকেই তারা নামতে পারছে মাঠে। থাকছে সেরা একাদশ বেছে নেওয়ার সুযোগ। ভারতের ব্যাটিং-বোলিং কোনো জায়গাতেই নেই কোনো ঘাটতি। তবে গোলাপি বলে দিবা-রাত্রির টেস্টের কথা ভেবে তারা একাদশে আনতে পারে বদল।

সেখানে এগিয়ে আছেন চায়নাম্যান বোলার কুলদীপ যাদব। গোলাপি বলে রিস্ট স্পিনারদের সাফল্যের সম্ভাবনাই কুলদীপকে এগিয়ে রাখছে। কুলদীপ এগিয়ে থাকছেন গোলাপি বলে ঘরোয়া ক্রিকেটে তার পারফরম্যান্সের কারণেও।

দুলীপ ট্রফিতে ম্যাচে ১০ উইকেট নেওয়ার নজির আছে কুলদীপের। তাকে খেললে বসানো হতে পারে একজন ফিঙ্গার স্পিনারকে। সেক্ষেত্রে রবিচন্দ্রন অশ্বিন নাকি রবীন্দ্র জাদেজার বদলে কুলদীপকে খেলানো হয়, সেটাই এখন কৌতূহলের। ব্যাটিংয়ের দিক থেকে এগিয়ে থাকবেন জাদেজা। কিন্তু অফ স্পিনের সঙ্গে লেগ স্পিন করতে পারার দক্ষতা এগিয়ে রাখছে অশ্বিনকেও।

ভারতের ব্যাটিং লাইনআপে অবশ্য বদলের কোনো খবর নেই।

ভারতের সম্ভাব্য একাদশ: রোহিত শর্মা, মায়াঙ্ক আগারওয়াল, চেতশ্বর পূজারা, বিরাট কোহলি, আজিঙ্কা রাহানে, ঋদ্ধিমান সাহা, রবিচন্দ্রন অশ্বিন/রবীন্দ্র জাদেজা, কুলদীপ যাদব, উমেশ যাদব, মোহাম্মদ শামি, ইশান্ত শর্মা।

Comments

The Daily Star  | English

Afif exposing BCB’s bitter truth

Afif Hossain has been one of the most fortuitous cricketers in the national fold since his debut in February 2018.

7h ago