সাংবাদিকের প্রশ্নের কারণে জাতীয় দলে এসে ফর্ম হারান ইমরুল

ভারত সফরে টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক বলেছিলেন, সাংবাদিকরা প্রতিপক্ষের শক্তির কথা মনে করিয়ে দেন বলেই চাপ পড়ে তাদের উপর। এবার ইমরুল কায়েস তার ঘরোয়া পর্যায়ে পারফরম্যান্স জাতীয় দলে অনুদিত না হওয়ার পেছনেও সাংবাদিকদের প্রশ্নের দায় দেখছেন।
Imrul Kayes
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

ভারত সফরে টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক বলেছিলেন, সাংবাদিকরা প্রতিপক্ষের শক্তির কথা মনে করিয়ে দেন বলেই চাপ পড়ে তাদের উপর। এবার ইমরুল কায়েস তার ঘরোয়া পর্যায়ে পারফরম্যান্স জাতীয় দলে অনুদিত না হওয়ার পেছনেও সাংবাদিকদের প্রশ্নের দায় দেখছেন।

বিপিএলের উদ্বোধনী ম্যাচেই হেসেছে ইমরুলের ব্যাট। তার ৩৮ বলে ৬১ রানের ইনিংসের উপর ভর করেই সিলেট থান্ডারকে ৫ উইকেটে হারায় চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স।

এদিন ইমরুল চার নম্বরে নেমে খেলেছেন দৃষ্টিনন্দন সব শট। দাপট দেখিয়ে চাপের মধ্যে থাকা দলকে জিতিয়েছেন অনায়াসে। ৬৪ রানে চার উইকেট হারানোর পরও তার ব্যাটে ১৬৩ রান তাড়া করে জেতে চট্টগ্রাম।

অথচ বিপিএলের ঠিক আগে ভারত সফরে চিত্র ছিল ভিন্ন। টেস্ট খেলতে যাওয়া ইমরুল পুরো সিরিজেই ধুঁকেছেন। দুই টেস্টের চার ইনিংসে মোটে করতে পেরেছিলেন ২১ রান। কোন ইনিংসেই যেতে পারেননি দুই অঙ্কে। শুধু তা-ই নয় ভারতে তার ব্যাটিংয়ের ধরণও ছিল দৃষ্টিকটু। ওপেন করতে নেমে আউট হওয়ার আগে কাঁপাকাঁপি করেছেন তিনি।

আবার ভারত সফরের আগেও জাতীয় লিগে ডাবল সেঞ্চুরি এসেছে তার ব্যাটে। ঘরোয়া পর্যায়ে যে ছন্দে খেলেন, জাতীয় দলে কেন তা থাকে না। ম্যাচ সেরা হয়ে আসা ইমরুলকে এক সাংবাদিকদের প্রশ্ন ছিল এমনই। জবাবে ইমরুল দায় দিলেন সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নেরই, ‘এই আপনাদের (সাংবাদিকদের) এই বলাটার (প্রশ্নের) জন্য আমি ফর্ম থেকে হারিয়ে যাচ্ছি। ফর্মে থাকতে থাকতে আমি ফর্ম থেকে হারিয়ে যাই।’

জাতীয় দলে রান না পাওয়ার পেছনে অবশ্য পরে আরেক কারণ দিয়েছেন তিনি। ঘরোয়া পর্যায়ের টানা খেলার স্বাধীনতা জাতীয় দলে পাওয়া যায় না বলে ফর্ম ধরে রাখা কঠিন হয় তার জন্য, ‘জাতীয় দলে আমরা একটা বা দুইটা ম্যাচ খেলি। টেস্ট খেলের পর টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলি। জাতীয় দলে এক ম্যাচ রান না করলে কঠিন। এখানে (বিপিএলে) আমি জানি সব ম্যাচ খেলব। এই স্বাধীনতা থাকলে রান করা সহজ হয়।’

তবে রান না পেলে, খারাপ খেললে উঠা সমালোচনাও ইমরুল দেখছেন স্বাভাবিকভাবে। তার মত বিদেশ সফরে সেরা প্রস্তুতি নিয়ে না গেলে ফল ভাল করা সম্ভব না, ‘সমালোচনা তো  হবেই। মানুষ বিখ্যাত না হলে তো সমালোচনা হয় না। ভারত সিরিজে আমি খারাপ করছি। আমি নিজেও খুব আপসেট। টেস্ট ম্যাচের প্রস্তুতি আরও ভাল হওয়া উচিত আমি মনে করি। দুই চার দিনের প্রস্তুতি নিয়ে, জাতীয় লিগের বোলারদের খেলে ওই পর্যায়ে ফেস করা কঠিন ভাই। এটা আমার জন্য না। দুনিয়ার বড় বড় ব্যাটসম্যানদের জন্যও কঠিন।’

Comments

The Daily Star  | English
Dhaka Airport Third Terminal: 3rd terminal to open partially in October

HSIA’s terminal-3 to open in Oct

The much anticipated third terminal of the Dhaka airport is likely to be fully ready for use in October, enhancing the passenger and cargo handling capacity.

9h ago