খেলা

শেষ বিকালে নিউজিল্যান্ডকে কাঁপিয়ে দিলেন স্টার্ক

মারনাস লাবুশেনের সেঞ্চুরি ও ট্রাভিস হেডের হাফসেঞ্চুরির পর টেলএন্ডারদের কল্যাণে অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস ছাড়াল চারশ। তৃতীয় সেশনে ব্যাটিংয়ে নামা নিউজিল্যান্ড শুরুতেই হারাল দুই ওপেনারকে। তৃতীয় উইকেটে প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করলেন কিউই দলনেতা কেন উইলিয়ামসন ও অভিজ্ঞ রস টেইলর। এই জুটি ভেঙে শেষ বিকালে ৩ উইকেট তুলে নিয়ে নিউজিল্যান্ডকে কাঁপিয়ে দিলেন অজি পেসার মিচেল স্টার্ক।
australia and starc
ছবি: আইসিসি টুইটার

মারনাস লাবুশেনের সেঞ্চুরি ও ট্রাভিস হেডের হাফসেঞ্চুরির পর টেলএন্ডারদের কল্যাণে অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস ছাড়াল চারশ। তৃতীয় সেশনে ব্যাটিংয়ে নামা নিউজিল্যান্ড শুরুতেই হারাল দুই ওপেনারকে। তৃতীয় উইকেটে প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করলেন কিউই দলনেতা কেন উইলিয়ামসন ও অভিজ্ঞ রস টেইলর। এই জুটি ভেঙে শেষ বিকালে ৩ উইকেট তুলে নিয়ে নিউজিল্যান্ডকে কাঁপিয়ে দিলেন অজি পেসার মিচেল স্টার্ক।

শুক্রবার (১৩ ডিসেম্বর) পার্থে দিবা-রাত্রি টেস্টে প্রথম ইনিংসে ৫ উইকেটে ১০৯ রান তুলে দ্বিতীয় দিন শেষ করেছে নিউজিল্যান্ড। অস্ট্রেলিয়ার চেয়ে এখনও ৩০৭ রানে পিছিয়ে আছে সফরকারীরা। ৮৬ বলে ৬৬ রানে অপরাজিত আছেন টেইলর। তার সঙ্গী বিজে ওয়াটলিং ৮ বল খেলে এখনও রানের খাতা খুলতে পারেননি।

এর আগে প্রথম ইনিংসে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়া অলআউট হয় ৪১৬ রানে। ৪ উইকেটে ২৪৮ রান নিয়ে দিন শুরু করেছিল তারা। আগের দিন সেঞ্চুরি তুলে নেওয়া লাবুশেন এদিন আরও ৩৩ রান যোগ করেন। ২৪০ বলে ১৮ চার ও ১ ছয়ে ১৪৩ রান করা এই ব্যাটসম্যান নিল ওয়াগনারের শিকার হন। ৯৭ বলে ৫৬ রান করে হেড বিদায় নেন টিম সাউদির বলে। এরপর অধিনায়ক টিম পেইনের ৩৯, প্যাট কামিন্সের ২০ ও স্টার্কের ৩০ রানে ভর করে বড় সংগ্রহ পায় অজিরা। নিউজিল্যান্ডের হয়ে ৯২ রানে ৪ উইকেট নেন বাঁহাতি পেসার ওয়াগনার। ডানহাতি পেসার সাউদি সমান সংখ্যক উইকেট পান ৯৩ রানে।

চা বিরতির পর ব্যাটিংয়ে নামা নিউজিল্যান্ডকে প্রথম ধাক্কা দেন বাঁহাতি স্টার্ক। ইনিংসের পঞ্চম বলে টম লাথামকে ফেরান তিনি। শূন্য রানে ফেরেন এই কিউই ওপেনার। পরের ওভারে জস হ্যাজেলউডের বলে আউট হন আরেক ওপেনার জিত রাভাল। তিনি করেন ১ রান। তৃতীয় উইকেটে ৭৬ রানের জুটিতে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা চালায় কিউইরা। কিন্তু তা ব্যর্থ হয়। ৭ চারে ৭০ বলে ৩৪ রান করা উইলিয়ামসনকে সাজঘরে পাঠানোর পর শেষ দিকে টানা দুই বলে হেনরি নিকোলস ও ওয়াগনারকে ফেরান স্টার্ক। নিকোলস করেন ৭ রান। ওয়াগনার রানের দেখা পাননি।

তোপ দাগিয়ে ৩১ রানে ৪ উইকেট নেন স্টার্ক। তবে অজিদের জন্য ধাক্কা হয়ে এসেছে হ্যাজেলউডের চোট। হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট পেয়ে ১.২ ওভার করার পর মাঠ ছেড়ে যান তিনি। পরের দিনগুলোতে তিনি খেলতে পারবেন কি-না তা জানা যাবে মেডিক্যাল পরীক্ষার পর। প্রথম দিন পেশিতে চোট পেয়ে এরই মধ্যে এই টেস্ট থেকে ছিটকে গেছেন নিউজিল্যান্ডের গতি তারকা লোকি ফার্গুসন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: (দ্বিতীয় দিন শেষে)

অস্ট্রেলিয়া প্রথম ইনিংস: (আগের দিন ২৪৮/৪) ১৪৬.২ ওভারে ৪১৬ (লাবুশেন ১৪৩, হেড ৫৬, পেইন ৩৯, কামিন্স ২০, স্টার্ক ৩০, লায়ন ৮, হ্যাজেলউড ০*; সাউদি ৪/৯৩, ফার্গুসন ০/৪৭, ওয়াগনার ৪/৯২, ডি গ্র্যান্ডহোম ১/৩৭, স্যান্টনার ০/১১১, রাভাল ১/৩৩)

নিউজিল্যান্ড প্রথম ইনিংস: ৩২ ওভারে ১০৯/৫ (রাভাল ১, লাথাম ০, উইলিয়ামসন ৩৪, টেইলর ৬৬*, নিকোলস ৭, ওয়াগনার ০, ওয়াটলিং ০*; স্টার্ক ৪/৩১, হ্যাজেলউড ০/১, কামিন্স ০/৩৪, ওয়েড ০/৮, লায়ন ০/৩৫)।

Comments