খেলা

ছয় মাস পর ফিফটির দেখা পেলেন তামিম

প্রায় এক যুগ ধরে ওপেনিংয়ে বাংলাদেশ দলের হয়ে মুখ্য ভূমিকা পালন করে আসছেন তামিম ইকবাল। তাকে ঘিরে ম্যাচের অনেক পরিকল্পনাও সাজানো হয়। কিন্তু গত ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে গিয়ে হুট করেই ছন্দ হারিয়ে ফেলেন এ ওপেনার। এরপর শ্রীলঙ্কা সফরেও যাচ্ছেতাই পারফরম্যান্স। তাই সবধরনের ক্রিকেট থেকে কিছুদিন বিরতি নেন। ফিরেও অবশ্য সুবিধা করে উঠতে পারেননি। তবে বিপিএলের মঞ্চে এক ম্যাচ যেতেই চেনা ছন্দে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছেন তামিম।
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

প্রায় এক যুগ ধরে ওপেনিংয়ে বাংলাদেশ দলের হয়ে মুখ্য ভূমিকা পালন করে আসছেন তামিম ইকবাল। তাকে ঘিরে ম্যাচের অনেক পরিকল্পনাও সাজানো হয়। কিন্তু গত ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে গিয়ে হুট করেই ছন্দ হারিয়ে ফেলেন এ ওপেনার। এরপর শ্রীলঙ্কা সফরেও যাচ্ছেতাই পারফরম্যান্স। তাই সবধরনের ক্রিকেট থেকে কিছুদিন বিরতি নেন। ফিরেও অবশ্য সুবিধা করে উঠতে পারেননি। তবে বিপিএলের মঞ্চে এক ম্যাচ যেতেই চেনা ছন্দে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছেন তামিম।

মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে এদিন টস হেরে আগে ব্যাটিং করতে নামে ঢাকা প্লাটুন। তবে শুরুতেই ধাক্কা। খালি হাতে ফিরে যান ওপেনার এনামুল হক বিজয়। এরপর খুব বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি মেহেদী হাসান। তবে অন্য প্রান্তে তামিম ছিলেন অনড়। এভিন লুইসকে নিয়ে দেখে শুনে ব্যাট চালিয়ে ইনিংসে মেরামত করেন তিনি। পরে থিসারা পেরেরার সঙ্গে দারুণ জুটি গড়ে দলকে এনে দেন লড়াকু পুঁজি।

দাসুন শানাকার বলে আউট হওয়ার আগে ৫৩ বলে ৭৪ রান করেছেন তামিম। এ রান করতে ৬টি চার ও ৪টি ছক্কা মেরেছেন এ ওপেনার। তবে শুরুটা ছিল খুব ধীর স্থির। যদিও ব্যক্তিগত ৪ রানেই জীবন পেয়েছেন। এরপর নিজেকে আরও গুটিয়ে নেন। প্রথম ২৬ বলে রান ছিল মাত্র ১৭। পরে ধীরে ধীরে খোলস ভাঙেন। খেলেন কার্যকরী এক ইনিংস। তার ব্যাটে চড়েই কুমিল্লা ওয়ারিয়র্সের বিপক্ষে শেষ পর্যন্ত ১৮০ রানের সংগ্রহ করে ঢাকা।

সব মিলিয়ে প্রায় ছয় মাস পর ফিফটির দেখা পেলেন তামিম। এর আগে ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সর্বশেষ পঞ্চাশোর্ধ্ব রান করেন তিনি। বিশ্বকাপে ওই একটাই ছিল তার ফিফটি। বাকিটা সময় ছিলেন খোলসে আবদ্ধ। এরপর শ্রীলঙ্কা সিরিজে তো আরও করুণ অবস্থা ছিল তার। তিন ম্যাচে তার ব্যাট থেকে আসে মাত্র ২১ রান। এরপর অবশ্য সাময়িক বিরতিতে যান তামিম। মাঝে ভারত সফরে ফেরার কথা থাকলেও দ্বিতীয় সন্তানের বাবা হওয়ায় স্ত্রীর পাশে থাকতে বিরতির সময় আরও বাড়ান।

Comments