খেলা

রোহিত-রাহুল-কোহলির ব্যাটে সিরিজ ভারতের

ছন্দে থাকা শেই হোপ এবার থিতু হয়েও ইনিংস বড় করতে পারেননি। তবে ঝড় তুলে ঠিকই দলকে লড়াইয়ের পূঁজি পাইয়ে দিয়েছিলেন নিকোলাস পুরান আর কাইরন পোলার্ড। রান তাড়ায় ওপেনারদের দারুণ শুরুর পর মিডল অর্ডারের দিক হারানো দলকে তীরে ভেড়ানোর কাজ করেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি।
Virat Kohli
ছবি: এএফপি

ছন্দে থাকা শেই হোপ এবার থিতু হয়েও ইনিংস বড় করতে পারেননি। তবে ঝড় তুলে ঠিকই দলকে লড়াইয়ের পূঁজি পাইয়ে দিয়েছিলেন নিকোলাস পুরান আর কাইরন পোলার্ড। রান তাড়ায় ওপেনারদের দারুণ শুরুর পর মিডল অর্ডারের দিক হারানো দলকে তীরে ভেড়ানোর কাজ করেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি।

কটকে সিরিজ নির্ধারণী তৃতীয় ওয়ানডেতে ৩১৬ রানের লক্ষ্য দিয়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তিন ফিফটিতে বল হাতে রেখে ওই লক্ষ্য পেরিয়ে ভারত জিতেছে ৪ উইকেটে। ক্যারিবিয়ানরা সিরিজের প্রথম ম্যাচ জেতার পর ঘুরে দাঁড়িয়ে বাকি দুটোই জিতল বিরাট কোহলির দল।

৩১৬ রান তাড়ায় ভারতের শুরুটা রাজকীয় বেশে। দুই ওপেনার রোহিত শর্মা আর লোকেশ রাহুলই দলকে এনে দেন ১২২ রান। ৮৯ বলে ৭৭ করে রোহিতের আউটে ভাঙে এই জুটি। কোহলির সঙ্গে ৪৫ রানের জুটির পর বিদায় নেন ৬৩ বলে ৬৩ করা রাহুলও। এরপর মিডল অর্ডারের তিন ব্যাটসম্যান শ্রেয়াস আইয়ার, ঋশভ পান্ত আর কেদার যাদবকে দ্রুত হারায় স্বাগতিকরা।

কিছুটা আশার আলো খুঁজে পায় ক্যারিবিয়ানরা। তবে অধিনায়ক কোহলির ব্যাট চওড়া হয়ে উঠলে ক্রমেই নিভে যায় পোয়ার্ডদের বাতি। দলকে একদম জয়ের কাছে নিয়ে ৮১ বলে ৮৫ রান করে প্লেড অন হয়ে যান কোহলি।

রবীন্দ্র জাদেজার (৩১ বলে ৩৯) সঙ্গে মিলে বাকি কাজ দ্রুত শেষ করেছেন শার্দুল ঠাকুর (৬ বলে ১৭)।

এর আগে টস হেরে ব্যাটিং পাওয়া উইন্ডিজের শুরুটাও একেবারে মন্দ নয়। উদ্বোধনী জুটিতে ৫৭ রান তুলে বিছিন্ন হন এভিন লুইস। হোপ ছিলেন বড় ভরসার নাম। কিন্তু এদিন ৫০ বলে ৪২ রানেই থেমে যান তিনি। পরে রোস্টোন চেজ (৩৮), শেমরন হেটমায়ার (৩৭) থিতু হয়ে ফেরেন। ছয়ে নামা পুরান ৬৪ বলে ৮৯ আর পোলার্ড ৫১ বলে ৭৪ করলে তিনশো ছাড়ায় সফরকারীদের ইনিংস।

Comments

The Daily Star  | English
VIP movements in Dhaka

VIP movements are Dhaka’s undiagnosed illness

If the capital's traffic condition makes you angry, you're normal

10h ago