মাহমুদউল্লাহকে পাওয়ার অপেক্ষা বাড়ছে আরও

ভারত থেকে বয়ে আনা হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটের কারণে বঙ্গবন্ধু বিপিএলের প্রথম দুই ম্যাচে নামতে পারেননি মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। গ্রেড ওয়ান টিয়ারের সেই চোট কাটিয়ে মাঠে ফিরে খেলেন টানা তিন ম্যাচ। ব্যাটে পান রানও। কিন্তু চট্টগ্রাম পর্বে ঢাকা প্লাটুনের বিপক্ষে ঝড়ো ইনিংস খেলতে গিয়ে আবার পড়ে টান। সেই চোট না সারায় খেলেলনি পরের দুই ম্যাচ। নিরাশার বিষয় হলো, চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স অধিনায়কের মাঠে ফেরার অপেক্ষা বাড়ছে আরও।
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

ভারত থেকে বয়ে আনা হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটের কারণে বঙ্গবন্ধু বিপিএলের প্রথম দুই ম্যাচে নামতে পারেননি মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। গ্রেড ওয়ান টিয়ারের সেই চোট কাটিয়ে মাঠে ফিরে খেলেন টানা তিন ম্যাচ। ব্যাটে পান রানও। কিন্তু চট্টগ্রাম পর্বে ঢাকা প্লাটুনের বিপক্ষে ঝড়ো ইনিংস খেলতে গিয়ে আবার পড়ে টান। সেই চোট না সারায় খেলেলনি পরের দুই ম্যাচ। নিরাশার বিষয় হলো, চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স অধিনায়কের মাঠে ফেরার অপেক্ষা বাড়ছে আরও।

চট্টগ্রাম পর্ব শেষে আগামীকাল শুক্রবার শুরু হচ্ছে ঢাকায় আরেক ধাপের খেলা। ঢাকায় এবারের পর্বের প্রথম ম্যাচেই চট্টগ্রামের প্রতিপক্ষ সেই ঢাকা। এই ম্যাচে মাহমুদউল্লাহ যে থাকছেন না এটা একরকম নিশ্চিত। আগামী মঙ্গলবার ঢাকায় এই ধাপে চট্টগ্রামের শেষ ম্যাচেও অনিশ্চিত তিনি।

ঢাকা পর্ব শেষে আগামী বছরের ২ জানুয়ারি থেকে খেলা যাবে সিলেটে। সেখানে একটাই ম্যাচ আছে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের। ওই ম্যাচ দিয়েই আবার বিপিএলে ফিরতে পারেন মাহমুদউল্লাহ।

অনেকগুলো ম্যাচ মিস করলেও মাহমুদউল্লাহর চোট খুব গুরুতর না। এমআরআই প্রতিবেদনে কোনো খারাপ খবর নেই। কিন্তু সামনেই আছে জাতীয় দলের অনেকগুলো খেলা। ঝুঁকি এড়াতে তাই এই ব্যাটসম্যানকে দেওয়া হয়েছে এক সপ্তাহের বিশ্রাম।

বিশ্রামে থাকা মাহমুদউল্লাহকে ছাড়াই বৃহস্পতিবার (২৬ ডিসেম্বর) অনুশীলন করেছে চট্টগ্রাম। তার পরিবর্তে অধিনায়কত্ব করা ইমরুল কায়েসও নিয়মিত অধিনায়কের পরের দুই ম্যাচ খেলা নিয়ে জানালেন অনিশ্চয়তা, ‘সব নির্ভর করছে ফিজিওর উপর। কালকের ম্যাচে যদি না-ও পাওয়া যায়, তাহলে সামনের ম্যাচগুলো থেকে হয়তো পাওয়া যেতে পারে। তবে নিশ্চিত না।’

Comments

The Daily Star  | English

Court orders to freeze, attach ex-IGP Benazir’s properties

A Dhaka court today ordered to freeze and attach all moveable and immovable properties of Benazir Ahmed, former inspector general of police, in connection with the allegations of corruption brought against him

53m ago