মেহেদী-মাশরাফির দুর্দান্ত বোলিংয়ে প্লে অফে ঢাকা

জিতলেই নকআউট পর্ব নিশ্চিত। এমন পরিসংখ্যান নিয়েই মাঠে নেমেছিল ঢাকা প্লাটুন। অন্যদিকে যদি-কিন্তুর সমীকরণের সম্ভাবনাটা টিকিয়ে রাখতে জয়ের কোন বিকল্প ছিল না রংপুর রেঞ্জার্সের। এমন ম্যাচে জয় পেয়েছেন ঢাকা। ফলে তৃতীয় দল হিসেবে নক আউট পর্বের টিকেট পেয়েছে দলটি। রংপুরকে ৬১ রানের বড় ব্যবধানেই হারিয়েছে ঢাকা।
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

জিতলেই নকআউট পর্ব নিশ্চিত। এমন পরিসংখ্যান নিয়েই মাঠে নেমেছিল ঢাকা প্লাটুন। অন্যদিকে যদি-কিন্তুর সমীকরণের সম্ভাবনাটা টিকিয়ে রাখতে জয়ের কোন বিকল্প ছিল না রংপুর রেঞ্জার্সের। এমন ম্যাচে জয় পেয়েছেন ঢাকা। ফলে তৃতীয় দল হিসেবে নক আউট পর্বের টিকেট পেয়েছে দলটি। রংপুরকে ৬১ রানের বড় ব্যবধানেই হারিয়েছে ঢাকা।

বোলারদের দাপটেই বড় জয় পায় ঢাকা। বিশেষকরে স্পিনার মেহেদী হাসান। ১৩ রানের খরচায় পেয়েছেন ৩টি উইকেট। ১৮ রানের খরচায় ২টি  উইকেট পান  মাশরাফি বিন মুর্তজা। এছাড়া ফাহিম আশরাফ ও শাদাব খানও নেন ২টি করে উইকেট। মাত্র তিনজন ব্যাটসম্যান দুই অঙ্কের কোটা স্পর্শ করতে পেরেছেন রংপুরের। সর্বোচ্চ ২৩ রান করেন আল-আমিন জুনিয়র।

মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বুধবার লক্ষ্য তাড়ায় সূচনাটাই ভালো হয়নি রংপুরের। প্রথম ওভারেই দুই ওপেনারকে হারায় দলটি। অধিনায়ক শেন ওয়াটসনতো রানের খাতাই খুলতে পারেননি। এরপর মিডল অর্ডারের ব্যাটসম্যানরাও দায়িত্ব নিতে পারেননি। পারেননি লেজের ব্যাটসম্যানরাও। ফলে ১৫.৩ ওভারে মাত্র ৮৪ রানে অলআউট হয়ে যায় রংপুর।

এর আগে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে ঢাকা। কোন ব্যাটসম্যানই সে অর্থে দায়িত্ব নিতে পারেননি ফলে গড়ে ওঠেনি বলার মতো কোন জুটি। সপ্তম উইকেটে দুই পাকিস্তানি তারকা শাদাব খান ও ফাহিম আশরাফের গড়া ২৮ রানের জুটিটিই সর্বোচ্চ।

তবে ওপেনার তামিম ইকবাল এক প্রান্ত আগলে রেখে কিছুটা চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু রানের গতি বাড়াতে পারেননি। ৩৮ বলে ৫টি চারের সাহায্যে ৪১ রান করে ১৪তম ওভারে তাসকিনের বলে আউট হন তামিম। এরপর দায়িত্ব নিতে পারেননি দলের দুই বিদেশি আসিফ আলী ও থিসারা পেরেরাও।

তবে শেষ দিকে একাই চেষ্টা করেছিলেন পাকিস্তানি ক্রিকেটার শাদাব খান। তার ১৯ বলে ৩১ রানের ইনিংসেই লড়াইয়ের পুঁজি পায় ঢাকা। ১টি চার ও ৩টি ছক্কার সাহায্যে নিজের ইনিংস সাজান শাদাব। ফলে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১৪৫ রান সংগ্রহ করে দলটি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ঢাকা প্লাটুন: ২০ ওভারে ১৪৫/৯ (তামিম ৪০, বিজয় ১১, মেহেদী ১, আরিফুল ১৩, মুমিনুল ৭, আসিফ ৯, থিসারা ১০, শাদাব ৩১*, ফাহিম ৫, মাশরাফি ৬, হাসান ০*; সানি ০/১৯, মোস্তাফিজ ৩/৩৪, গ্রেগরি ১/২৮, তাসকিন ৩/৩২, নবি ২/২১, ডেলপোর্ট ০/৯)।

রংপুর রেঞ্জার্স: ১৫.৩ ওভারে ৮৪ (নাঈম ৪, ওয়াটসন ০, ডেলপোর্ট ২০, গ্রেগরি ৫, ফজলে ৩, আল-আমিন ২৩, নবি ১২, জহুরুল ৮, সানি ০, তাসকিন ৪, মোস্তাফিজ ২; মেহেদী ৩/১৩, মাশরাফি ২/১৮, ফাহিম ২/২৬, হাসান ১/১১, শাদাব ২/১৪)।

ফলাফল: ঢাকা প্লাটুন ৬১ রানে জয়ী।

Comments

The Daily Star  | English
 foreign serial

Iran-Israel tensions: Dhaka wants peace in Middle East

Saying that Bangladesh does not want war in the Middle East, Foreign Minister Hasan Mahmud urged the international community to help de-escalate tensions between Iran and Israel

4h ago