খেলা

'ইউনিভার্স বস' আর আসবে না: গেইল

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট মানেই ধুমধাড়াক্কা চার-ছক্কার খেলা। তাই অতি আগ্রাসন নিয়েই খেলতে হয় ক্রিকেটারদের। হালের এ নতুন সংস্করণে নিজেকে প্রমাণও করেছেন অনেকে। কিন্তু ক্রিস গেইলের মতো কেউ নেই। বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে একাই প্রতিপক্ষকে উড়িয়ে দিয়েছেন বহুবার। তাই নিজেই নিজেকে নাম দিয়েছেন 'ইউনিভার্স বস'। বাস্তব প্রেক্ষাপটের সঙ্গে মিলে যাওয়ায় এক বাক্যেই সবাই তা মেনেও নিয়েছেন। এবার জানালেন তার পর আর কোন 'ইউনিভার্স বস' আসবে না ক্রিকেট অঙ্গনে।
gayle
ফাইল ছবি: ফিরোজ আহমেদ

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট মানেই ধুমধাড়াক্কা চার-ছক্কার খেলা। তাই অতি আগ্রাসন নিয়েই খেলতে হয় ক্রিকেটারদের। হালের এ নতুন সংস্করণে নিজেকে প্রমাণও করেছেন অনেকে। কিন্তু ক্রিস গেইলের মতো কেউ নেই। বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে একাই প্রতিপক্ষকে উড়িয়ে দিয়েছেন বহুবার। তাই নিজেই নিজেকে নাম দিয়েছেন 'ইউনিভার্স বস'। বাস্তব প্রেক্ষাপটের সঙ্গে মিলে যাওয়ায় এক বাক্যেই সবাই তা মেনেও নিয়েছেন। এবার জানালেন তার পর আর কোন 'ইউনিভার্স বস' আসবে না ক্রিকেট অঙ্গনে।

অথচ বয়সটা ৪০ পেরিয়েছে অনেক আগেই। সমবয়সী অনেক খেলোয়াড় এখন ক্রিকেট ছেড়ে ভিন্ন পেশা ধরেছেন। কিন্তু এখনও তরুণের মতো খেলে চলেছেন গেইল। এবারের বিপিএলেও মধ্যমণি তিনি। ভক্তদের আগ্রহের কেন্দ্র বিন্দু। অথচ এ সময় নতুন কোন তরুণে চোখ রাখার কথা ছিল সমর্থকদের। এখনও ভক্তদের আগ্রহের শীর্ষে থাকায় দারুণ উচ্ছ্বসিত গেইল, 'আর কোন ক্রিস গেইল কিংবা ইউনিভার্স বস আসবে না। সবসময়ই একজন না একজন আসবে এবং সেই একজন আমার মতো হবে না।'

আর কেন আসবে না তার যুক্তিও উপস্থাপন করেছেন এ ক্যারিবিয়ান, 'নিজের স্বকীয়তার জন্য আপনাকে অবশ্যই বিশ্বব্যাপি ঘুরতে হবে, নিজের নামটাকে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে, সব ধরণের কন্ডিশনে পারফর্ম করতে হবে এবং আমি নিজের ক্ষেত্রে সেটাই কিছুটা ভালো ভাবে করতে পেরেছি। আমার আর কিছুই প্রমাণ করার নেই এবং আপনারা জানেন যে ক্রিকেট ক্যারিয়ারে আমি কোন জায়গায় আছি। সুতরাং তারা (নতুনরা) কিভাবে এগোচ্ছে সেদিকে খেয়াল রাখুন। তাদের অধিকাংশই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ক্যারিয়ারের জন্য তেমন সুযোগ পায় না। এ কারণে অনেকেই বিশ্বব্যাপি খেলার সুযোগটা পায়না, যেহেতু তারা অধিকাংশই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলে।'

তবে ইউনিভার্স বস হিসেবে কেউ না আসলেও অনেক তরুণদেরই পরবর্তী সুপারস্টার হিসেবে দেখছেন গেইল। যদিও নির্দিষ্ট কাউকে বেছে নেননি তিনি, 'বাজারে অনেক নতুন খেলোয়াড়। শুধুমাত্র একজনকে খুঁজে বের করা কঠিন। কোন কোন ক্ষেত্রে আপনি সবসময় দেখবেন যে নতুন প্রজন্মের কেউ বেরিয়ে এসেছে। তাদের টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের জৌলুসটা এবং নিজেদের নামটা ধরে রাখতে হবে, উত্তরাধিকার হিসেবে নিজেদের গড়ে তুলতে হবে এবং এভাবেই তারা পরবর্তী মহাতারকা হয়ে উঠবে। পৃথিবীটা একটা চক্র এবং আমরা যাওয়া-আসার মধ্যে আছি।'

বিপিএলে সবচেয়ে সফল বিদেশি খেলোয়াড় গেইল। এ আসরের আগে মাত্র ৩৮ ম্যাচে ৪১.৮১ গড়ে করেছেন ১৩৩৮ রান। আসরে সর্বোচ্চ পাঁচটি সেঞ্চুরিও এসেছে তার ব্যাট থেকে। ছক্কা মেরেছেন মোট ১২০টি। শুধু যে বিপিএল নয়, খেলে থাকেন বিশ্বের সকল ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে। টি-টোয়েন্টি সংস্করণের সর্বোচ্চ রানের অধিকারীও তিনি। রেকর্ড ২২টি সেঞ্চুরিতে করেছেন মোট ১৩১৭৫ রান। দ্বিতীয় স্থানে থাকা কাইরন পোলার্ড এখন পর্যন্ত এক হাজার রানও করতে পারেননি।

Comments