থানায় বিএফডিসির ফ্লোর ইনচার্জের রহস্যজনক মৃত্যু, বিক্ষোভ-প্রতিবাদ

রাজধানীর তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানা হেফাজতে গতকাল (১৯ জানুয়ারি) ভোরে অচেতন অবস্থায় আবু বক্কর সিদ্দিক বাবু (৪৫) নামে বিএফডিসির ফ্লোর ইনচার্জকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায় পুলিশ। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
রাজধানীর তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানায় বিএফডিসির ফ্লোর ইনচার্জ আবু বক্কর সিদ্দিক বাবুর মৃত্যুর প্রতিবাদে সহকর্মীদের বিক্ষোভ। ২০ জানুয়ারি ২০২০। ছবি: স্টার

রাজধানীর তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানা হেফাজতে গতকাল (১৯ জানুয়ারি) ভোরে অচেতন অবস্থায় আবু বক্কর সিদ্দিক বাবু (৪৫) নামে বিএফডিসির ফ্লোর ইনচার্জকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায় পুলিশ। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ধর্ষণ ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামলায় গত ১৮ জানুয়ারি তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। তার পরিবারের অভিযোগ, থানায় নির্যাতন করে তাকে হত্যা করা হয়েছে। যদিও পুলিশের দাবি, গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে আসামি বাবু।

থানা হেফাজতে বাবুর মৃত্যুর প্রতিবাদে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সভা করেছে এফডিসির কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা। তারা সহকর্মীর মৃত্যুর সঠিক তদন্ত করে দোষীদের বিচার দাবি করেন।

আজ (২০ জানুয়ারি) সকাল ১০টায় এফডিসির মূল ফটকের সামনে এই প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে উপস্থিত এফডিসির জনসংযোগ কর্মকর্তা হিমাদ্রি বড়ুয়া দ্য ডেইলি স্টার অনলাইনকে বলেছেন, “আমরা আমাদের সহকর্মীর রহস্যময় মৃত্যুর সুষ্ঠু তদন্ত চাই। সেই দাবিতেই আমরা সবাই এক হয়েছি।”

প্রতিবাদ সভা শেষে এফডিসির জহির রায়হান কালার ল্যাবের প্রজেকশন হলে একটি আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে এফডিসির ভারপ্রাপ্ত এমডি নুজহাত ইয়াসমিনসহ অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। সেখানে বক্তারা বাবুর মৃত্যু নিয়ে বেশ কিছু প্রশ্ন তোলেন। তারা পুলিশি হেফাজতে একজন সরকারি কর্মকর্তার মৃত্যু নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

সেসময় এফডিসির ভারপ্রাপ্ত এমডি সবাইকে শান্ত থাকতে বলেন। তিনি বলেন, “এটা একটা স্পর্শকাতর বিষয়। আমাদের সহকর্মীর মৃত্যুতে আমরা সবাই শোকাহত, বাকরুদ্ধ। তবে আমাদের বুদ্ধি জাগ্রত রাখতে হবে। এটাকে সুন্দর করে মোকাবিলা করতে হবে।”

“আমরা অপেক্ষা করছি বাবুর ময়নাতদন্ত রিপোর্টের জন্য। সেটা হাতে এলে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। আমি সবাইকে শান্ত থাকার জন্য অনুরোধ করছি। পাশাপাশি মৃতের পরিবারকে এই শোক কাটিয়ে উঠার জন্য তাদের পাশে আমরা থাকবো,” যোগ করেন তিনি।

Comments

The Daily Star  | English
Prof Yunus, 13 others granted bail in graft case

Labour law violation: Bail of Prof Yunus extended till July 4

A Dhaka tribunal today extended bail of Nobel Laureate Prof Muhammad Yunus and three directors of Grameen Telecom till July 4 in a labour law violation case

14m ago