আমেরিকা-ইসরাইলের পতাকা তৈরির জমজমাট ব্যবসা ইরানে

ইরানে জমে উঠেছে পতাকার ব্যবসা। পতাকা তৈরি ও বিক্রি করে বেশ জমজমাট ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন তেহরানের দক্ষিণপশ্চিমে খোমেইন শহরের পতাকা তৈরির কারখানার মালিকরা।
flag for protest
ইরানের খোমেইন শহরে একটি পতাকা তৈরির কারখানায় কাজ করছেন তরুণ-তরুণীরা। ছবি: রয়টার্স

ইরানে জমে উঠেছে পতাকার ব্যবসা। পতাকা তৈরি ও বিক্রি করে বেশ জমজমাট ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন তেহরানের দক্ষিণপশ্চিমে খোমেইন শহরের পতাকা তৈরির কারখানার মালিকরা।

নিজ দেশের পতাকা কিংবা, বিশ্বকাপের বিভিন্ন জনপ্রিয় দেশের পতাকা নয়। সেখানে তৈরি হচ্ছে আমেরিকা, ব্রিটেন ও ইসরাইলের পতাকা।

ইরানের জনগণের ক্ষোভ রয়েছে পশ্চিমের দেশগুলোর ওপর। বিভিন্ন সমাবেশে বিক্ষোভ প্রদর্শনের অংশ হিসেবে ইসরায়েল, আমেরিকা ও ব্রিটেনের পতাকা পোড়ানো একটি নিয়মিত ঘটনা।

খোমেইন শহরে একটি পতাকা তৈরির কারখানা ‘দিবা পারচাম’। সেখানে তরুণ-তরুণীরা নিজেরাই হাতে পতাকা তৈরি করে পরে ঝুলিয়ে রাখে রঙ শুকানোর জন্য।

বছরে প্রায় ১৫ লাখ বর্গফুট পতাকা তৈরি করা হয় এই কারখানা থেকে। যখন চাহিদা খুব বেশি থাকে তখন মাসে সর্বাধিক ২ হাজার আমেরিকা ও ইসরাইলের পতাকা সরবরাহ করতে পারে কারখানাটি।

‘দিবা পারচাম’র মালিক ঘাসেম ঘানজানির নিজেরও ক্ষোভ রয়েছে পশ্চিমের সরকারগুলোর প্রতি। ব্রিটিশ সংবাদপত্র গার্ডিয়ানকে তিনি বলেছেন, “আমেরিকা ও ইসরায়েলের জনগণ জানে যে তাদের সঙ্গে আমাদের কোনো সমস্যা নেই। কেবল তাদের সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানানোর জন্য বিভিন্ন সমাবেশে এসব দেশের পতাকা পোড়ানো হয়।”

আমেরিকার প্রতি ইরানিদের মনোভাব প্রকাশের অংশ হিসেবে পতাকা পোড়ানো খুবই সাধারণ ঘটনা বলে মনে করেন কারখানার অন্যতম ব্যবস্থাপক রেজাই।

Comments

The Daily Star  | English

Confiscate ex-IGP Benazir’s 119 more properties: court

A Dhaka court today ordered the authorities concerned to confiscate assets which former IGP Benazir Ahmed and his family members bought through 119 deeds.

1h ago