খেলা

এক টেস্ট পরই রুবেল-মোস্তাফিজ নিয়ে ভাবনায় বদল

রাওয়ালপিন্ডি টেস্টের পরপরই ৩৬০ ডিগ্রি ঘুরে এই দুজনকে নিয়ে নির্বাচকদের ভাবনার বাঁক বদল হয়েছে আবার।
Mostafizur Rahman & Rubel Hossain

ছন্দে না থাকায় রাওয়ালপিন্ডি টেস্টে প্রথমবারের মতো মোস্তাফিজুর রহমানকে বাদ দেওয়ার কথা জানিয়েছিলেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন। লাল বলে তার কার্যকারিতা নিয়েও তোলা হয়েছিল প্রশ্ন। একই টেস্টের দলে অভিজ্ঞতার কথা মাথায় নিয়ে ফেরানো হয় রুবেল হোসেনকে। অথচ রাওয়ালপিন্ডি টেস্টের পরপরই ৩৬০ ডিগ্রি ঘুরে এই দুজনকে নিয়ে ভাবনার বাঁক বদল হয়েছে আবার।

রবিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) ঘোষিত জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টের বাংলাদেশ দলে ফেরানো হয়েছে মোস্তাফিজুর রহমানকে। আর বাদ পড়েছেন রুবেল হোসেন। টেস্টে কমপক্ষে ৩ হাজার বল করেছেন, এমন বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে বাজে বোলিং গড় আর স্ট্রাইক রেট রুবেলের। তাই তার টেস্টে ফেরাও তখন ছিল প্রশ্নবিদ্ধ। রাওয়ালপিন্ডিতে নিজেকে নতুন করে চেনাতে পারেননি। একমাত্র ইনিংসে পরিকল্পনাহীন বোলিং করে ১১৩ রানে তিনি পান ৩ উইকেট।

যার টেস্ট পারফরম্যান্স আগে থেকেই প্রশ্নবিদ্ধ, সেই রুবেলকে এক ম্যাচ খেলিয়ে বাদ দেওয়ার পর নির্বাচকদের আবার মনে হয়েছে, তিনি কার্যকর নন টেস্টে! মিরপুর শের-ই-বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দল ঘোষণার সময় মিনহাজুল জানান, রুবেলকে সাদা বলে মনযোগী হতে বলেছে টিম ম্যানেজমেন্ট, ‘ওকে ব্যাকআপ বোলার হিসেবে নিয়েছিলাম (রাওয়ালপিন্ডিতে)। তারপর পাকিস্তানে গিয়ে আল-আমিনের (হোসেন) ইনজুরির জন্য ওকে ম্যাচে নেওয়া হয়। আমাদের ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে যে আলাপ হয়েছে, টিম ম্যানেজমেন্ট চাচ্ছে, ও সাদা বলে পুরোপুরি মনোযোগী হোক। (জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে) কয়টা পেস বোলার নিয়ে খেলব, তার একটা পরিকল্পনা আছে। ম্যানেজমেন্টও দেখতে চাচ্ছে। আসলে ওই কারণেই কিছু নতুন প্লেয়ারকে, যেমন- হাসান মাহমুদকে নেওয়া।’

রুবেলকে নিয়ে টিম ম্যানেজমেন্টের চিন্তায় সায় দিলেও মোস্তাফিজের বেলায় বড় কোনো কারণ ছাড়াই বদল হয়েছে ভাবনার। দলের বাইরে থেকে ঘরোয়া চার দিনের আসর বিসিএলে খেলা মোস্তাফিজ এক ইনিংসে ৬৮ রানে পান ৪ উইকেট, আরেক ইনিংসে পান ৫৪ রানে ২ উইকেট। তার বোলিংয়ে ছিল না আহামরি কিছুর ছাপ।

কোচ রাসেল ডমিঙ্গো মোস্তাফিজের লাল বলের কার্যকারিতা নিয়ে আগেই তুলেছিলেন প্রশ্ন। গেল বছরের শেষদিকে ভারত সফরে দুই টেস্টের সিরিজে দলের সঙ্গে রাখলেও তাকে খেলানো হয়নি কোনো ম্যাচ। তবে বিসিএলে মাঠে বসে মোস্তাফিজের বোলিং দেখে কোচকে বুঝিয়ে নির্বাচকরাই আবার তাকে ফিরিয়েছেন টেস্টে, ‘আমাদের নির্বাচক প্যানেল থেকে বলা হয়নি (লাল বলে মোস্তাফিজের কার্যকর নয়)। কোচ এটা চিন্তা করেছিল। কিন্তু এখন আমরা চিন্তা করছি, বিসিএলে ও যেভাবে ফিরে এসেছে। এখন চিন্তা করছি, অবশ্যই, তাকে লাল বলে বিবেচনা করা যায়। এটা আজকে (রবিবার) সকালেই কোচের সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। তখনই আমরা অন্তর্ভুক্ত করেছি।’

‘একটা ভাবনা ম্যানেজমেন্ট অবশ্যই আমাদের দিবে এবং ঘরোয়া ক্রিকেটে ও (কোচ ডমিঙ্গো) খুব একটা ম্যাচ দেখেনি। মোস্তাফিজের পরপর দুটো বিসিএল ম্যাচ দেখেছি এবং সে আগের মতোই (ছন্দে) বল করেছে।’

Comments