বার্সেলোনাকে জয়ে ফেরালেন মেসি

চলতি লিগে আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড মেসির ১৯তম লক্ষ্যভেদে জয়ে ফেরার পাশাপাশি পয়েন্ট তালিকার শীর্ষেও উঠেছে দলটি।
messi
ছবি: বার্সেলোনা টুইটার

রিয়াল সোসিয়েদাদের গোলমুখে একের পর এক আক্রমণ শানিয়েও জালের দেখা পাচ্ছিল না বার্সেলোনা। ন্যু ক্যাম্প জুড়ে যখন পয়েন্ট হারানোর আর শিরোপার লড়াই থেকে পিছিয়ে পড়ার চাপা শঙ্কা, ঠিক তখনই রক্ষাকর্তার ভূমিকায় অবতীর্ণ হলেন লিওনেল মেসি। পেনাল্টি থেকে গোল করে জয় নিশ্চিত করার সঙ্গে সঙ্গে স্বস্তি ফেরালেন কাতালান শিবিরে।

শনিবার রাতে স্প্যানিশ লা লিগায় ঘরের মাঠে সোসিয়েদাদকে ১-০ গোলে হারিয়েছে বার্সেলোনা। চলতি লিগে আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড মেসির ১৯তম লক্ষ্যভেদে জয়ে ফেরার পাশাপাশি পয়েন্ট তালিকার শীর্ষেও উঠেছে দলটি। আগের ম্যাচে এল ক্লাসিকোতে তারা ২-০ ব্যবধানে হেরে গিয়েছিল চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদের কাছে।

ম্যাচের শুরু থেকে অতিথিদের রক্ষণে ভীতি ছড়ায় বার্সেলোনা। প্রথম ১৫ মিনিটের মধ্যে দারুণ দুটি সুযোগ পান মার্টিন ব্র্যাথওয়েট। কিন্তু জালের ঠিকানা খুঁজে পাননি। সোসিয়েদাদও সুযোগ পেলেই আক্রমণে উঠে জেরার্দ পিকে-ক্লেমোঁ লংলেদের পরীক্ষা নেয়।

প্রথমার্ধের ৩০ ও ৩৯তম মিনিটে রেকর্ড ছয়বারের ব্যালন ডি’অর জয়ী মেসির দুটি প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়। প্রথমটিতে তার সামনে বাধার দেয়াল হয়ে দাঁড়ান সোসিয়েদাদ গোলরক্ষক অ্যালেক্স রেমিরো। পরেরবার ফ্রেংকি ডি ইয়ংয়ের কাছ থেকে বল পেয়ে তার নেওয়া বাঁ পায়ের শট চলে যায় পোস্টের বাইরে।

বিরতির পরও চাপ ধরে রাখে বার্সেলোনা। একের পর এক আক্রমণে তারা ব্যতিব্যস্ত রাখে সোসিয়েদাদের রক্ষণভাগ ও গোলরক্ষককে। ৫৪তম মিনিটে মেসির আরেকটি শট লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। দশ মিনিট পর ইভান রাকিতিচের প্রচেষ্টা রুখে দেন রেমিরো। পরের মিনিটে পিকের হেডও সহজেই লুফে নেন তিনি।

খেলার ধারার বিপরীতে এগিয়ে যাওয়ার দারুণ এক সুযোগ পেয়েছিল সোসিয়েদাদ। কিন্তু দলটির স্ট্রাইকার আলেকজান্ডার ইসাক বল লক্ষ্যেই রাখতে পারেননি। এর ছয় মিনিট পর কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা পায় লিগের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বার্সা। সোসিয়েদাদের মিকেল ওইয়ারজাবালের হাতে বল লাগায় ভিএআরের সাহায্য নিয়ে পেনাল্টির সিদ্ধান্ত দেন রেফারি। স্পট-কিক থেকে গোল করতে ভুল করেননি মেসি।

ম্যাচের যোগ করা সময়ে আরও একবার সোসিয়েদাদের জাল কাঁপায় বার্সেলোনা। কিন্তু জর্দি আলবার গোলটি বাতিল হয় আনসু ফাতি অফসাইডে থাকায়। তাতে ন্যূনতম ব্যবধানে জয় নিয়ে মাঠে ছাড়ে স্বাগতিকরা।

২৭ ম্যাচে ১৮ জয়, চার ড্র আর পাঁচ হারে কিকে সেতিয়েনের শিষ্যদের অর্জন ৫৮ পয়েন্ট। এক ম্যাচ কম খেলা রিয়াল মাদ্রিদের পয়েন্ট ৫৬। শীর্ষে ফেরার লড়াইয়ে রবিবার রাতে তারা রিয়াল বেতিসের মাঠে খেলতে নামবে।

Comments

The Daily Star  | English