খেলা

করোনায় আক্রান্ত হননি, জানালেন দিবালা

গুঞ্জন দিবালার চোখও এড়ায়নি। অনেকেই তার কাছ থেকে সঠিক সংবাদ জানতে চেয়েছেন। সবার কৌতূহল মেটাতে তাই সামাজিক মাধ্যমে তিনি নিজেই দিলেন সংবাদটা। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হননি, জানালেন জুভেন্টাসের এই পোস্টারবয়।
ছবি: এএফপি

ভেনেজুয়েলার একটি সংবাদমাধ্যমের সূত্র ধরে সাড়া বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আর্জেন্টাইন তারকা পাওলো দিবালা। অন্যান্য আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমেও তা ফলাও করে এসেছে। সামাজিক মাধ্যমে তো রীতিমতো ভাইরাল। আর গুঞ্জন দিবালার চোখও এড়ায়নি। অনেকেই তার কাছ থেকে সঠিক সংবাদ জানতে চেয়েছেন। সবার কৌতূহল মেটাতে তাই সামাজিক মাধ্যমে তিনি নিজেই দিলেন সংবাদটা। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হননি, জানালেন জুভেন্টাসের এই পোস্টারবয়।

সামাজিক মাধ্যম টুইটারে এক টুইটে শুক্রবার (১৩ মার্চ) দিবালা লিখেছেন, ‘হ্যালো সবাই, আমি সবাইকে নিশ্চিত করে জানাতে চাই, আমি ভালো আছি এবং সেচ্ছাসেবীদের অধীনে আইসোলেশনে আছি। আমাকে মেসেজ দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ। আমি আশা করছি, আপনারাও ভালো আছেন।’

এরপর দুই হাত জড়ো করে অনুরোধ করার ভঙ্গির ইমো দিয়ে তিনি বলেছেন, কোনো ধরনের ভুল সংবাদ প্রকাশ না করতে।

দুই দিন আগেই সিরি আ’র প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে জুভেন্টাস ডিফেন্ডার দানিয়েল রুগানির করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সংবাদ প্রচারিত হয়। তখন থেকেই আশঙ্কা ছিল জুভেন্টাসের আরও খেলোয়াড় আক্রান্ত হয়ে থাকতে পারেন। এরপর থেকেই দলের সবাইকে আলাদা করে রাখার জন্য আইন অনুসারে প্রক্রিয়া শুরু জুভেন্টাস। স্বেচ্ছায় কোয়ারেন্টাইনে গিয়েছেন সব খেলোয়াড়। মাদেইরাতে কোয়ারেন্টাইনে আছেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোও। ক্লাবের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, ক্লাবের খেলোয়াড়, ম্যানেজার, অন্যান্য স্টাফসহ মোট ১২১ জনকে আইসোলেশনে পাঠিয়েছে ইতালিয়ান জায়ান্টরা।

গত রোববার ইন্টার মিলানের বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের দিন জুভেন্টাসের স্কোয়াডে ছিলেন রুগানি। যদিও কোচ মাওরিজিও সারি তাকে মাঠে নামাননি। তবে ২-০ গোলের ব্যবধানে ম্যাচ জয়ের পর দলের সঙ্গে উদযাপন করেছেন রুগানি। তখন দলের সকল খেলোয়াড়ের সংস্পর্শে আসেন। ড্রেসিং রুমে তাদের উদযাপনের একটি ছবি সামাজিক মাধ্যমে আপলোড করেন দলের অন্যতম সদস্য মিরালেম পিয়ানিচ।

উল্লেখ্য, বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস ইতালিতে ভয়াবহ পরিস্থিতি তৈরি করেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ইতালিতে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে নতুন করে আরও ১৮৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে এক হাজার ১৬ জনে দাঁড়িয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন আরও দুই হাজার ৬২১ জন। আক্রান্ত মোট ১৫ হাজার ১১৩ জন। আর করোনাভাইরাস সংক্রমণ এড়াতে সতর্কতার অংশ হিসেবে সিরি আ’সহ সব ধরনের ক্রীড়া ইভেন্ট আগামী ৩ এপ্রিল পর্যন্ত স্থগিত করেছে ইতালি সরকার।

Comments