অক্ষরে অক্ষরে নির্দেশনা মেনে চলুন: প্রধানমন্ত্রী

করোনাভাইরাস থেকে তৈরি হওয়া সংকট ধৈর্য ও সাহসিকতার সঙ্গে মোকাবিলা করার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দেশবাসীর উদ্দেশে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, করোনাভাইরাস-আক্রান্ত দেশ থেকে যারা স্বদেশে ফিরেছেন, সেসব প্রবাসী ভাইবোনদের কাছে অনুরোধ—আপনাদের হোম কোয়ারেন্টিন বা বাড়িতে সঙ্গ-নিরোধসহ যেসব নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে সেগুলো অক্ষরে অক্ষরে মেনে চলুন।

করোনাভাইরাস থেকে তৈরি হওয়া সংকট ধৈর্য ও সাহসিকতার সঙ্গে মোকাবিলা করার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দেশবাসীর উদ্দেশে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, করোনাভাইরাস-আক্রান্ত দেশ থেকে যারা স্বদেশে ফিরেছেন, সেসব প্রবাসী ভাইবোনদের কাছে অনুরোধ—আপনাদের হোম কোয়ারেন্টিন বা বাড়িতে সঙ্গ-নিরোধসহ যেসব নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে সেগুলো অক্ষরে অক্ষরে মেনে চলুন।

মানুষের জীবন বাঁচানোর জন্য এই নির্দেশনা মেনে চলা প্রয়োজন—উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘মাত্র ১৪ দিন আলাদা থাকুন। আপনার পরিবার, পাড়া-প্রতিবেশি, এলাকাবাসী এবং সর্বোপরি দেশের মানুষের জীবন বাঁচানোর জন্য এসব নির্দেশনা মেনে চলা প্রয়োজন।’

‘আমি সকলের মানসিক অবস্থা বুঝতে পারছি। কিন্তু এই সংকটময় সময়ে আমাদের ধৈর্য্য এবং সাহসিকতার সঙ্গে পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে হবে।’

এই মুহূর্তে করণীয় সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘কয়েকটি স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললে করোনাভাইরাস প্রতিরোধ সহজ হবে। ঘনঘন সাবান-পানি দিয়ে হাত ধুতে হবে। হাঁচি-কাশি দিতে হলে রুমাল বা টিস্যু পেপার দিয়ে নাক-মুখ ঢেকে নিবেন। যেখানে-সেখানে কফ-থুথু ফেলবেন না।’

‘করমর্দন বা কোলাকুলি থেকে বিরত থাকুন। যতদূর সম্ভব ঘরে থাকবেন। অতি প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে যাবেন না। বাইরে জরুরি কাজ সেরে বাড়িতে থাকুন। মুসলমান ভাইয়েরা ঘরেই নামাজ আদায় করুন এবং অন্যান্য ধর্মের ভাইবোনদেরও ঘরে বসে প্রার্থনা করার অনুরোধ জানাচ্ছি।’

 

প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ নিয়ে আরও পড়ুন: 

গৃহহীন-ভূমিহীনরা ৬ মাস বিনামূল্যে খাবার পাবেন

‘আপনারা যে যেখানে আছেন, সেখানেই অবস্থান করুন’

‘স্বাস্থ্যকর্মীদের সুরক্ষার বিষয়ে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে’

‘কৃষকের ঘরে প্রচুর পরিমাণ খাদ্যশস্য মজুদ আছে’

‘রপ্তানিমুখী শিল্পের জন্য ৫ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ’

 

Comments

The Daily Star  | English
Dhaka brick kiln

Dhaka's toxic air: An invisible killer on the loose

Dhaka's air did not become unbreathable overnight, nor is there any instant solution to it.

13h ago