করোনায় চীনে প্রায় ৫ লাখ প্রতিষ্ঠান বন্ধ

করোনাভাইরাসের ধাক্কা সামলাতে না পেরে চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে চীনের প্রায় পাঁচ লাখ প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে গেছে।
সাংহাইয়ের রাস্তায় মাস্ক পরে হাঁটছেন এক নারী। ছবি: রয়টার্স

করোনাভাইরাসের ধাক্কা সামলাতে না পেরে চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে চীনের প্রায় পাঁচ লাখ প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে গেছে।

আজ সোমবার সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টের প্রতিবেদন এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বন্ধ হয়ে যাওয়া প্রায় ৪ লাখ ৬০ হাজার প্রতিষ্ঠানের বেশির ভাগই অন্তত তিন বছরের পুরনো। এদের মধ্যে ২৬ হাজার প্রতিষ্ঠান পণ্য রপ্তানি করতো।

এই সময়ের মধ্যে নতুন প্রতিষ্ঠানের নিবন্ধনও কমে গেছে প্রায় ২৯ শতাংশ।

বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহৎ অর্থনীতির দেশ চীনে করোনাভাইরাসের কারণে গত তিন মাস ধরে উৎপাদন ও রপ্তানি কমে যাওয়ায় দেশটির অর্থনীতিতে লেগেছে বিরাট ধাক্কা। সেই ধাক্কার প্রকোপ কাটিয়ে উঠতে না পেরে একদিকে যেমন এই প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ হয়েছে, অপর দিকে এই প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ হওয়ায় দেশটির অর্থনীতি পুনরুদ্ধারে পূর্ণ গতি ব্যাহত হবে বলে বলছেন অর্থনীতি বিশ্লেষকরা।

করোনাভাইরাসের প্রভাব কাটিয়ে চীন স্বাভাবিক হয়ে উঠলেও, পুরো বিশ্ব অস্থির। ইউরোপ, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ বিশ্বের প্রায় ২০০ দেশ ও অঞ্চল বাঁচার লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে। ফলে চীনে নেই কোনো নতুন অর্ডার।

অর্ডার না থাকায় চীনের খেলনা ও ব্যাগ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান ডংগান ফ্যান্টাসটিক টয় কোম্পানি অনেক কর্মী অবৈতনিক ছুটিতে পাঠিয়েছে। একই পরিস্থিতি প্রায় সব প্রতিষ্ঠানের।

চীনে প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দিতে হলে বেশ কিছু প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হয়। দেউলিয়া ঘোষণা করতে আদালতকে দেখাতে হয় যে প্রতিষ্ঠানের কোনো দেনা নেই।

Comments