ইন্টারে যোগ দেওয়ার গুঞ্জন উড়িয়ে দিলেন মেসি

কদিন আগেই লিওনেল মেসি ইন্টার মিলানে আনা সম্ভব বলে মন্তব্য করেছিলেন ইন্টার মিলানের সাবেক সভাপতি মাসিমো মোরাতি। এরপর এ নিয়ে নানা গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে। বার্সার সঙ্গে নতুন চুক্তি না করায় অনেকেই এমন সম্ভাবনাকে বাস্তবতা মানছিলেন। তবে এ সব গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়েছেন বার্সা অধিনায়ক। সামাজিক মাধ্যম ইনস্টাগ্রামে এ পোস্ট করে এ ধরণের সংবাদ মিথ্যা বলে জানিয়েছেন তিনি। পাশাপাশি প্যারাগুয়েতে সাবেক সতীর্থ রোনালদিনহোর জামিনে সহায়তা করার ব্যাপারটিও উড়িয়ে দিয়েছেন রেকর্ড ছয় বারের ব্যালন ডি'অর জয়ী এ তারকা।

কদিন আগেই লিওনেল মেসিকে ইন্টার মিলানে আনা সম্ভব বলে মন্তব্য করেছিলেন ইন্টার মিলানের সাবেক সভাপতি মাসিমো মোরাতি। এরপর এ নিয়ে নানা গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে। বার্সার সঙ্গে নতুন চুক্তি না করায় অনেকেই এমন সম্ভাবনাকে বাস্তবতা মেনেছিলেন। তবে এ সব গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়েছেন বার্সা অধিনায়ক। সামাজিক মাধ্যম ইনস্টাগ্রামে এ পোস্ট করে এ ধরণের সংবাদ মিথ্যা বলে জানিয়েছেন তিনি। পাশাপাশি প্যারাগুয়েতে সাবেক সতীর্থ রোনালদিনহোর জামিনে সহায়তা করার ব্যাপারটিও উড়িয়ে দিয়েছেন।

আর্জেন্টিনার টিভি চ্যানেল টিএনটি স্পোর্টস এ দুটি খবর ছাপিয়েছে ফলাও করে। সে সংবাদের স্ক্রিনশট ইনস্টাগ্রামের ‘স্টোরি’তে প্রকাশ করে খবর দুটি মিথ্যা বলে জানালেন মেসি। হ্যাশট্যাগ দিয়ে লিখেছেন ‘ফেইক নিউজ’ বা ভুয়া খবর। পরে দুটি খবরের পাশে লিখেছেন, ‘মিথ্যা নম্বর ১’ ও ‘মিথ্যা নম্বর ২’। এর নিচে যোগ করে রেকর্ড ছয় বারের ব্যালন ডি'অর জয়ী এ তারকা আরও লিখেছেন, ‘কয়েক সপ্তাহ আগে তারা নিউয়েলস ওল্ড বয়েজ সম্পর্কে যা বলেছিল, সেটও মিথ্যা। ঈশ্বরকে ধন্যবাদ কেউ তাদের বিশ্বাস করেননি...।’

টিএনটি স্পোর্টস দাবি করে, লিওনেল মেসির সঙ্গে আর্জেন্টাইন লিগের দল ভেলেজ সার্জফিল্ডের উইঙ্গার থিয়াগো আলমাইদাও ইন্টারে যোগ দিচ্ছেন। আর পাসপোর্ট জালিয়াতি কাণ্ডে প্যারাগুয়েতে রোনালদিনহো আটক হওয়ার পর থেকেই তাকে টাকা দেওয়ার গুঞ্জন শুরু হয়। আটক হওয়ার পর জামিন নেওয়ার অনেকবারই চেষ্টা করেছিলেন এ ব্রাজিলিয়ান। গুঞ্জন তখন থেকেই। পরে ৩২ দিন জেলে থাকার পর ১.৬ মিলিয়ন ইউরো মুচলেকা দিয়ে জেল থেকে ছাড়া পেয়েছেন। তখন ফের আরও একবার এ গুঞ্জন চাউর হয়।

সাম্প্রতিক সময়ে কোনো প্রতিবাদ করতে ইনস্টাগ্রামকেই বেছে নিচ্ছেন মেসি। এর আগে বার্সার সাবেক কোচ এরনেস্তো ভালভার্দের বরখাস্ত হওয়ার দায় খেলোয়াড়দের ওপর চাপিয়ে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন ক্লাবের ক্রীড়া পরিচালক ও সাবেক ডিফেন্ডার এরিক আবিদাল। তার প্রতিবাদও মেসি ইনস্টাগ্রামেই করেছিলেন। আর সপ্তাহ খানেক আগে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবেও খেলোয়াড়রা কম বেতন নিতে রাজি হননি বলে সংবাদ প্রকাশ হয়েছিল। খেলোয়াড়দের চাপে রাখার জন্য একটি বিশেষ মহল এমনটা করেছে বলে ধারণা করা হয়। তখনও এর প্রতিবাদ ইনস্টাগ্রামেই করেছিলেন বার্সা অধিনায়ক।

Comments

The Daily Star  | English

Trade at centre stage between Dhaka, Doha

Looking to diversify trade and investments in a changed geopolitical atmosphere, Qatar and Bangladesh yesterday signed 10 deals, including agreements on cooperation on ports, and overseas employment and welfare.

3h ago