টেস্ট র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে ফিরতে চান পাকিস্তান অধিনায়ক

লক্ষ্য পূরণে আগ্রাসী ক্রিকেট খেলার ওপর জোর দিচ্ছেন এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান।
azhar ali
ছবি: এএফপি

সবশেষ প্রকাশিত টেস্ট র‍্যাঙ্কিংয়ে পাকিস্তান আছে সাত নম্বরে। এই হতাশাজনক অবস্থা থেকে উত্তরণ চান দলটির সাদা পোশাকের অধিনায়ক আজহার আলি। দীর্ঘ সংস্করণের ক্রিকেটের র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষস্থান পুনরুদ্ধার করতে পরিকল্পনা আঁটছেন তিনি। আর লক্ষ্য পূরণে আগ্রাসী ক্রিকেট খেলার ওপর জোর দিচ্ছেন এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান।

২০১৬ সালে আইসিসি টেস্ট র‍্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বরে উঠেছিল পাকিস্তান। ওই দলের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ছিলেন আজহার। আর সেসময় পাকিস্তানকে নেতৃত্ব দেওয়া মিসবাহ-উল-হক বর্তমানে দলটির কোচ ও প্রধান নির্বাচক। তার অধীনে নিজেদের খেলার মানের উন্নতি করতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ আজহার।

শুক্রবার নিজ দেশের গণমাধ্যম দ্য নেশনকে ভিডিও কলে সাক্ষাৎকার দেন আজহার। র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে ফিরতে ঘরের মাঠের পাশাপাশি বাইরেও ভালো পারফরম্যান্স করার গুরুত্ব বর্ণনা করেন তিনি, ‘আমার পরিকল্পনা হলো ভয়ডরহীন ক্রিকেট খেলা। লক্ষ্যটি হলো নিজেদের টেস্টের অন্যতম সেরা দল হিসেবে প্রমাণ করা। আর সেজন্য আমাদের ঘরে এবং বিদেশের মাটিতে উভয় সিরিজে দুর্দান্ত পারফর্ম করতে হবে। ইংল্যান্ড এবং নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে আগামী সিরিজগুলোতে আমাদের নিজেদের যোগ্যতা প্রমাণ করতে হবে। কারণ, এক নম্বর দল হওয়ার দিকে এগিয়ে যেতে এটি দারুণ একটি পদক্ষেপ হবে।’

ভয়ডরহীন ক্রিকেট খেললে পাকিস্তানের শীর্ষে ওঠা কেউ আটকাতে পারবে না বলেও মনে করেন আজহার, ‘আমরা যদি কেবল ঘরের মাঠে জিতি, তবে আমরা এক নম্বর টেস্ট দল হতে পারব না। আমাদের বিদেশের মাটিতেও অসাধারণ ফল করতে হবে।… প্রত্যেক খেলোয়াড় যদি নির্ভীক ক্রিকেট খেলেন, নিজের দায়িত্ব পালন করেন এবং ধারাবাহিক পারফরম্যান্স উপহার দেন, তাহলে লক্ষ্য পূরণ করা থেকে কেউ আমাদের থামাতে পারবে না।’

উল্লেখ্য, গেল মার্চে সবশেষ প্রকাশিত টেস্ট র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে আছে ভারত। তাদের রেটিং পয়েন্ট ১১৬। দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে আছে যথাক্রমে নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া। সপ্তম অবস্থানে থাকা পাকিস্তানের রেটিং পয়েন্ট ৮৫।

Comments

The Daily Star  | English

1.6m marooned in Sylhet flood

Eid has not brought joy to many in the Sylhet region as homes of more than 1.6 million people were flooded and nearly 30,000 had to move to shelter centres.

7h ago