সাভারে বেতন আনতে গিয়ে পোশাক শ্রমিকরা মারের শিকার

সাভারের আশুলিয়ার চারাবাগ এলাকায় একটি তৈরি পোশাক কারখানায় বকেয়া বেতন আনতে গিয়ে মালিকপক্ষের ইন্ধনে বহিরাগতদের মারধরের শিকার হয়েছেন শ্রমিকরা।
Savar-1.jpg

সাভারের আশুলিয়ার চারাবাগ এলাকায় একটি তৈরি পোশাক কারখানায় বকেয়া বেতন আনতে গিয়ে মালিকপক্ষের ইন্ধনে বহিরাগতদের মারধরের শিকার হয়েছেন শ্রমিকরা।

ভুক্তভোগী শ্রমিকরা জানায়, চারাবাগ এলাকায় ‘এলাইন অ্যাপারেলস লিমিটেড’ কারখানায় কাজ করতেন তারা। গত চার মাস আগে কারখানা থেকে অব্যাহতি পান। মালিকপক্ষ শ্রমিকদের পাওনা দেই, দিচ্ছি করে সময়ক্ষেপণ করে আসছে। আজ শ্রমিকদের বকেয়া বেতন দেওয়ার কথা ছিল। তা আনতে সকালে শ্রমিকরা কারখানায় যান। এসময় মালিক পক্ষের ইন্ধনে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য হোসেন আলী’র সমর্থকরা শ্রমিকদের লাঠি দিয়ে পিটিয়ে কারখানার সামনে থেকে তাড়িয়ে দেয়।

গার্মেন্টস শ্রমিক সংহতির আশুলিয়া থানা কমিটির সভাপতি বিল্লাল শেখ দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘মালিকপক্ষের নির্ধারিত দিন আজ সোমবার সকাল ১০টার দিকে ২৫ জন শ্রমিক নিয়ে কারখানার গেটে যাওয়া মাত্রই ফরহাদ নামে স্থানীয় একজনের নেতৃত্বে কয়েকজন সন্ত্রাসী শ্রমিকদের ওপর লাঠিসোটা নিয়ে হামলা চালায়। এসময় নারী-পুরুষ মিলে ১০ জন শ্রমিক আহত হন। আহত শ্রমিকদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

এ ঘটনায় ঢাকা শিল্প-পুলিশ-১ এ লিখিত অভিযোগ করেছি বলেও জানান তিনি।

শ্রমিকদের মারধরের অভিযোগ অস্বীকার করে ইউপি সদস্য হোসেন আলী বলেন, ‘আমি ছেলেদেরকে বলে দিয়েছি, পোশাক শ্রমিকরা যেখানে আছে সেখানে না যেতে। শ্রমিকদের মারধর করবে কেন, হয়ত তাড়িয়ে দিয়েছে।’

শ্রমিকদের মারধরের বিষয়টি অস্বীকার করে এলাইন অ্যাপারেলস লিমিটেড’র ব্যবস্থাপক (প্রশাসন) রাজন বলেন, ‘শ্রমিকদের পাওনা পরিশোধের দিন পরিবর্তন করে আগামীকাল নির্ধারণ করা হয়েছে।

শ্রমিকদের মারধরের বিষয়টি জানা নেই বলেও দাবি করেন তিনি।

যোগাযোগ করা হলে ঢাকা শিল্প পুলিশ-১ এর সহকারী পুলিশ সুপার জানে আলম খান বলেন, ‘মালিকপক্ষের ইন্ধনে বহিরাগতরা শ্রমিকদের মারধর করবে, এটা কোনোভাবেই কাম্য নয়। আমরা বিষয়টি দেখছি।’

Comments

The Daily Star  | English

44 lives lost to Bailey Road blaze

33 died at DMCH, 10 at the burn institute, and one at Central Police Hospital

9h ago