ডেইলি স্টারে প্রতিবেদনের পর খাদ্য সহায়তা পৌঁছাল বিচ্ছিন্ন দ্বীপচরে

পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার বিচ্ছিন্ন দ্বীপচরে নৌকায় করে খাবার পৌঁছে দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন।
পটুয়াখালীর বিচ্ছিন্ন দ্বীপ চরকাশেম-এ খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। ছবি: সংগৃহীত

পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার বিচ্ছিন্ন দ্বীপচরে নৌকায় করে খাবার পৌঁছে দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন।

গত ২০ এপ্রিল ‘অনাহার-অর্ধাহারে দিন কাটাচ্ছেন পটুয়াখালীর দ্বীপচরের মানুষ’ শিরোনামে দ্য ডেইলি স্টার অনলাইনে একটি সংবাদ প্রকাশ হয়।

বিষয়টি নজরে নিয়ে রাঙ্গাবালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. মাশফাকুর রহমান নিজেই নৌকায় করে খাবার নিয়ে গতকাল বুধবার বিকেলে বিচ্ছিন্ন দ্বীপ ‘চরকাশেম’ এ যান।

সেখানকার শতাধিক পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দেওয়া হয়েছে। খাদ্য সহায়তায় ছিল ১০ কেজি চাল, ৩ কেজি আলু, ১ কেজি ডাল, ১ কেজি পেঁয়াজ ও ১ লিটার সয়াবিন তেল।

ইউএনও মো. মাশফাকুর রহমান বলেন, ‘করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে কর্মহীনদের ত্রাণ দেওয়ার জন্য রাঙ্গাবালীতে ৯০ মেট্রিক টন চাল বরাদ্ধ হয়েছে। যা সব ইউনিয়নে জনসংখ্যা হারে জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে বিতরণ করা হয়েছে। হয়তো বরাদ্দ কম হওয়ার কারণে জনপ্রতিনিধিরা দ্বীপচরে পৌঁছাতে পারেনি। তবে আমি যখন বিষয়টি গণমাধ্যমে দেখেছি তখন নিজেই সেখানে খাবার পৌঁছে দিয়েছি।’

রাঙ্গাবালী উপজেলায়- চরকাশেম, চরনজীর, চরআন্ডা ও কলাগাছিয়া নামের বিচ্ছিন্ন ৪টি দ্বীপচর রয়েছে। যেখানে সড়ক পথে কোনও যোগাযোগ নেই।

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে সেখানকার নিম্ন আয়ের মানুষ প্রায় এক মাস ধরে কর্মহীন। যাদের বেশিরভাগই জেলে কিংবা দিনমজুর। লকডাউনে দ্বীপের মধ্যে তারা আটকা পরেন। অনেক পরিবার খাবারের অভাবে অনাহারে ছিল।

 

Comments

The Daily Star  | English

Next set of programmes to be announced tonight

At least six people were killed in three districts, including the capital, in clashes between Chhatra League and quota reform protesters today.

2h ago