বাগেরহাটে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের নিয়ে ধান কাটলেন বোর্ড চেয়ারম্যান

বাগেরহাটে দরিদ্র ও বর্গা চাষীদের ধান কেটে ঘরে তুলে দিতে এবার মাঠে নেমেছেন শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। রোববার সকালে বাগেরহাট সদর উপজেলার বারাকপুর গ্রামের দুই কৃষকের ছয় বিঘা জমির ধান কাটার মাধ্যমে স্বেচ্ছাশ্রমের এই কর্মসূচির উদ্বোধন করেন যশোর শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান মোল্লা আমির হোসেন।
বাগেরহাট সদর উপজেলার বারাকপুর গ্রামে কৃষকের ধান কেটে দিচ্ছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। ছবি: স্টার

বাগেরহাটে দরিদ্র ও বর্গা চাষীদের ধান কেটে ঘরে তুলে দিতে এবার মাঠে নেমেছেন শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। রোববার সকালে বাগেরহাট সদর উপজেলার বারাকপুর গ্রামের দুই কৃষকের ছয় বিঘা জমির ধান কাটার মাধ্যমে স্বেচ্ছাশ্রমের এই কর্মসূচির উদ্বোধন করেন যশোর শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান মোল্লা আমির হোসেন।

এদিন ধান কাটায় অংশ নেয় বাগেরহাট সদর উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ১২০ জন শিক্ষক ও শিক্ষার্থী।

শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের ধান কাটতে দেখে স্থানীয়রা ভিড় করেন জমির কৃষক চিত্তরঞ্জন মন্ডল ও কার্তিক মন্ডলের ধান খেতের পাশে।

কৃষক চিত্তরঞ্জন বলেন, 'করোনা পরিস্থিতি ও মৌসুমের শুরুতে বৃষ্টি হওয়ায় ধান কাটার শ্রমিক সংকটে ফসল ঘরে তোলা নিয়ে খুব শঙ্কায় ছিলাম। কিন্তু হঠাৎ করে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা এসে আমাদের জমির ধান কেটে দিলেন। এতে আমি খুব খুশি হয়েছি।'

যশোর শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান মোল্লা আমির হোসেন বলেন, 'কৃষকেরা যদি সময়মত ধান ঘরে তুলতে না পারে, তাহলে তারা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হবেন। তাই কৃষকদের বাঁচাতে এবং যাতে কৃষকরা ক্ষতিগ্রস্থ না হয় তাই আমরা শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের নিয়ে এই কর্মসূচি নিয়েছি। সব কৃষকের ধান কাটা ও মাড়াই হওয়া পর্যন্ত আমাদের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা মাঠে থাকবেন।'

এ সময় যশোর শিক্ষা বোর্ডের প্রকৌশলী কামাল হোসেন, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান, বাগেরহাট বহুমুখী কলেজিয়েট স্কুলের অধ্যক্ষ ফারহানা আক্তার, বিএসসি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ঝিমি মন্ডলসহ অনেকেই স্বেচ্ছাশ্রমে অংশ নেন।

 

Comments

The Daily Star  | English

Through the lens of Rafiqul Islam

National Professor Rafiqul Islam’s profound contribution to documenting the Language Movement in Bangladesh was the culmination of a lifelong passion for photography.

19h ago