করোনাভাইরাসে আক্রান্ত স্ত্রীকে হাসপাতালে ফেলে যেতে নারাজ স্বামী

জ্বর শ্বাসকষ্টে আক্রান্তদের ফেলে রেখে প্রিয়জনের পালিয়ে যাওয়ার মতো নির্মমতার খবর যখন গণমাধ্যমে উঠে আসছে তখন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত স্ত্রীর প্রতি ভালোবাসার অনন্য নজির স্থাপন করলেন এক স্বামী। স্ত্রী সংক্রামক রোগে আক্রান্ত জেনেও এক সপ্তাহ ধরে হাসপাতালে পড়ে আছেন তিনি।

জ্বর শ্বাসকষ্টে আক্রান্তদের ফেলে রেখে প্রিয়জনের পালিয়ে যাওয়ার অমানবিকতার খবর যখন গণমাধ্যমে উঠে আসছে তখন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত স্ত্রীর প্রতি ভালোবাসার অনন্য নজির স্থাপন করলেন এক স্বামী। স্ত্রী সংক্রামক রোগে আক্রান্ত জেনেও হাসপাতালে পড়ে আছেন তিনি।

জয়পুরহাটের আক্কেলপুরের গোপীনাথপুর ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজি আইসোলেসন ইউনিটে ভর্তি রয়েছেন ১৯ বছরের স্ত্রী। প্রবল দায়িত্ববোধ থেকে এক সপ্তাহ ধরে স্ত্রীর সঙ্গে রয়েছেন ২৬ বছরের স্বামীও।

করোনা ইউনিটের দায়িত্বে থাকা আতিকুর রহমান জানান, স্ত্রীর কোভিড-১৯ উপসর্গ নিয়ে গত ৬ মে তারা হাসপাতালে আসেন। পরীক্ষায় করোনা নিশ্চিত হওয়ার পর স্ত্রীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ডাক্তার, নার্স সবাই তার স্বামীকে বুঝিয়ে বাড়িতে ফেরত পাঠানোর যথাসাধ্য চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু স্ত্রীকে ফেলে রেখে যেতে নারাজ তিনি। বাধ্য হয়ে হাসপাতালেই একটি জায়গায় তার থাকার ব্যবস্থা করেছে কর্তৃপক্ষ।

এই কদিন একবারের জন্যও হাসপাতাল কমপ্লেক্সের বাইরে যাননি তিনি। করোনার উপসর্গ না থাকলেও সম্প্রতি তার নমুনা পরীক্ষার জন্য বগুড়ায় পাঠানো হয়েছে। স্ত্রীর সঙ্গে খাচ্ছেন হাসপাতালের খাবার।

স্বামী টেলিফোনে দ্য ডেইলি স্টারকে জানান, তারা ঢাকার একটি পোশাক কারখানার শ্রমিক। কারখানা বন্ধ ঘোষণা হওয়ায়, আক্কেলপুরে বাড়িতে আসেন তারা। ফিরে আসার পরে, স্ত্রীর করোনাভাইরাসের উপসর্গ দেখাতে শুরু করলে হাসপাতালে নিয়ে যান।

স্বামী বলেন, ‘আমি তাকে [স্ত্রী] ছেড়ে কোথাও যাব না।’

হাসপাতালের এক চিকিৎসক জানান, তার স্ত্রীকে আরও ১০/১৫ দিন হাসপাতালে থাকতে হতে পারে।

Comments

The Daily Star  | English

Loan default now part of business model

Defaulting on loans is progressively becoming part of the business model to stay competitive, said Rehman Sobhan, chairman of the Centre for Policy Dialogue.

2h ago