মুশফিকের ইতিহাস গড়া ব্যাট কিনল আফ্রিদির ফাউন্ডেশন

ঐতিহাসিক স্মারকটি কিনে নিয়েছেন শহিদ আফ্রিদি। ব্যাটটির জন্য নিজের ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে তিনি খরচ করছেন ২০ হাজার ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ১৭ লাখ টাকা)।
Mushfiqur Rahim's Bat
ছবি: সংগৃহীত

কিছুটা চমকে যাওয়ার মতো ঘটনাই বটে। যে ব্যাটটি দিয়ে বাংলাদেশের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে টেস্টে ডাবল সেঞ্চুরি করেছিলেন মুশফিকুর রহিম, সেই ঐতিহাসিক স্মারকটি কিনে নিয়েছেন শহিদ আফ্রিদি। ব্যাটটির জন্য নিজের ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে তিনি খরচ করছেন ২০ হাজার ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ১৭ লাখ টাকা)।

শুক্রবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে নিজের অফিসিয়াল পেজ থেকে লাইভে এসে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মুশফিক। এ সময় তিনি ধন্যবাদ দিয়েছেন জাতীয় দলের সতীর্থ তামিম ইকবালকে। কারণ, ব্যাটটি বিক্রির জন্য নিলাম আয়োজন করা হলেও শেষ পর্যন্ত পাকিস্তানের সাবেক অলরাউন্ডার আফ্রিদির ফাউন্ডেশন তা কিনে নিয়েছে এবং পুরো প্রক্রিয়াতে মধ্যস্থতা ও সহায়তা করেছেন বাঁহাতি ওপেনার তামিম।

গেল শনিবার রাত ১০টা থেকে অনলাইনে শুরু হয় উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান মুশফিকের ইতিহাস গড়া ব্যাটের নিলাম। বিক্রির অর্থ দিয়ে করোনাভাইরাসের কারণে তৈরি হওয়া অচলাবস্থায় সংকটে পড়া অসহায় মানুষদের সাহায্য করার উদ্দেশ্য নিয়ে। ব্যাটের ভিত্তিমূল্য রাখা হয়েছিল ৬ লাখ টাকা। নিবকো স্পোর্টস ম্যানেজমেন্টের আয়োজনে ই-কমার্স সাইট পিকাবু ডট কম এটি পরিচালনা করে। কিন্তু গেল সোমবার বিকাল সাড়ে তিনটা থেকে নিলাম কার্যক্রম স্থগিত রাখা হয়। কারণ, নকল নাম-পরিচয় ব্যবহার করে হাঁকানো হচ্ছিল ভুয়া দর। পরে আবার নিলাম চালু করা হয়।

এমন পরিস্থিতিতে ব্যাট কিনতে আগ্রহ প্রকাশ করেন আফ্রিদি। মুশফিক জানান, ‘আফ্রিদি ব্যক্তিগত আমার সঙ্গে যোগাযোগ করেন। আমি তাকে নিলামের লিঙ্কটি দিই। গেল ১৩ মে প্রস্তাবপত্র পাঠান তিনি। ২০ হাজার ডলারে (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ১৭ লাখ টাকা) কিনে নেওয়ার প্রস্তাব দেন। পরে এ দামেই তিনি কিনে নিয়েছেন ব্যাটটি। এ ক্ষেত্রে তামিম ইকবালকেও ধন্যবাদ দিতে হবে। সে আমাকে অনেক সহায়তা করেছে।’

একই প্লাটফর্ম থেকে নিজের দুটি স্মারক নিলামে তুলেছিলেন বাংলাদেশ যুব দলের অধিনায়ক আকবর আলি। গেল ফেব্রুয়ারিতে মাঠে গড়ানো অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচে তিনি যে জার্সি পরে খেলেছিলেন, তা বিক্রি হয়েছে ২ হাজার ডলারে (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ১ লাখ ৭০ হাজার টাকা)। কিনেছেন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশি রিয়াজুল ইসলাম জুয়েল। তবে ওই ম্যাচে আকবরের ব্যবহৃত ব্যাটিং গ্লাভস এখনও বিক্রি হয়নি।

Comments

The Daily Star  | English

Lucky’s sources of income, wealth don’t add up

Laila Kaniz Lucky is the upazila parishad chairman from Raypura upazila of Narshingdi and a retired teacher of a government college.

2h ago